Advertisement
০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Justice Gangopadhyay on Mamata Banerjee

‘মুখ্যমন্ত্রী ভাল কাজ করছেন, কেন খারাপ বলব?’ বললেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

রাজ্যের আইনজীবী ভাস্করপ্রসাদ বৈশ্যকে বিচারপতি জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী ভাল কাজ করছেন। তাঁকে কেন খারাপ কথা বলবেন তিনি? বরং তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে বলে দাবি করেন বিচারপতি।

মুখ্যমন্ত্রী ভাল কাজ করছেন, একটি শুনানি চলাকালীন জানালেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী ভাল কাজ করছেন, একটি শুনানি চলাকালীন জানালেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। — ফাইল ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৮ ডিসেম্বর ২০২২ ১৪:১৯
Share: Save:

শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি মামলার শুনানির সময় কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় নানা বিধ মন্তব্য করেছেন। তবে তার কোনওটাই কখনও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশে নয়। বৃহস্পতিবার প্রাথমিকে নিয়োগের একটি মামলার শুনানিতে হালকা মেজাজে সে কথা স্পষ্ট করে দিতে চাইলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। রাজ্যের আইনজীবী ভাস্করপ্রসাদ বৈশ্যকে জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী ভাল কাজ করছেন। তাঁকে কেন খারাপ কথা বলবেন তিনি? বরং তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে বলে দাবি করেন বিচারপতি।

Advertisement

এজলাসের কথোপকথন যেমন ছিল—

বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়: মুখ্যমন্ত্রী ভাল কাজ করছেন। আমি কেন খারাপ কথা বলব? আমাকে বলতে বাধ্য করা হচ্ছে।

সে দিন ধেড়ে ইঁদুর বলেছিলাম সুব্রতদার (হাই কোর্টের আইনজীবী সুব্রত মুখোপাধ্যায়) সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে। উনি বুঝতে পেরেছিলেন কেন বলেছি। কিন্তু সেটা অন্য রকম ভাবে ধরা হয়েছে।

Advertisement

ঢাকি সমেত বিসর্জন দিয়ে দেব বলেছিলাম। এটা ওঁরা (পর্ষদের আইনজীবী) আমাকে বলতে বাধ্য করেছেন।

রাজ্যের আইনজীবীকে বিচারপতি: চন্দ্রিমাদি (মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য)-কে বলে দেবেন, আর কোনও মন্তব্য করব না। আমি কেন খারাপ মন্তব্য করব বলুন তো? মুখ্যমন্ত্রী তো ভাল কাজ করছেন।

আইনজীবী বৈশ্য (হাতজোড় করে): মামলার বক্তব্য শুনে আপনি যে কোনও নির্দেশ দিন। কিন্তু দয়া করে দল সম্পর্কে কিছু বলবেন না। আমি বিষয়টি চন্দ্রিমাদিকে বলব। এমনকি, মুখ্যমন্ত্রীর নজরে আনার চেষ্টা করব।

এর পরেই তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষকে নিয়ে মুখ খোলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়।

বিচারপতি: কুণাল ঘোষের কথায় আমি খুব আনন্দ পাই। রোজই আমার বিরুদ্ধে কিছু না কিছু বলেন। এখন এ নিয়ে আমি অতিরিক্ত মন্তব্য করতে চাই না! কিন্তু আমার মন্তব্যগুলির অন্য রকম ব্যাখ্যা হয়ে যাচ্ছে।

আইনজীবী বৈশ্য: আপনার কথার অন্য রকম মানে করে প্রচার করছে সংবাদমাধ্যম।

বিচারপতি: না না, সংবাদ মাধ্যম আমাকে অনেক ভালবাসে।

এর আগে শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত একটি মামলায় বিচার গঙ্গোপাধ্যায় জানান, আগামী ৩ ডিসেম্বর এসএসসি কর্তৃপক্ষ, মামলাকারী এবং সিবিআই নিজেদের মধ্যে বৈঠক করবেন। গাজিয়াবাদ এবং স্কুল সার্ভিস কমিশন (এসএসসি)-এর দফতর থেকে বাজেয়াপ্ত হার্ডডিস্ক থেকে ইতিমধ্যেই ওএমআর শিট (উত্তরপত্র)-এর যে নমুনা দেওয়া হয়েছে, তা খতিয়ে দেখে রিপোর্ট দেবে সিবিআই। এই প্রসঙ্গে এসএসসির উদ্দেশে বিচারপতি বলেছিলেন, ‘‘কোনও রকম ভয় পাবেন না। অনেক ধেড়ে ইঁদুর বেরোবে।’’

মঙ্গলবার গ্রুপ ডি নিয়োগ সংক্রান্ত মামলায় বিচারপতি ২০১৬ সালের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত গোটা প্যানেল বাতিলের হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। এর ফলে বাতিল হতে পারে ৪২ হাজার ৫০০ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্যানেলটি। ওই প্রসঙ্গে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় মন্তব্য করেছিলেন, ‘‘আমি ঢাকি সমেত বিসর্জন দিয়ে দেব।’’ এ-ও জানিয়েছিলেন, কেন এই কথা বলছেন, তা সময় এলে বোঝা যাবে। মনে করা হচ্ছিল, রাজ্য সরকার এবং শাসকদলের উদ্দেশেই এ সব বলেছেন বিচারপতি। এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। সরব হন বিরোধীরা। তাঁরা দাবি করেন, রাজ্য সরকারের উদ্দেশেই এ সব বলেছেন বিচারপতি। সেই দাবি বৃহস্পতিবার খারিজ করে দিলেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। জানান, কোনও ভাবেই মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে করে এ কথা বলেননি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.