Advertisement
০৬ অক্টোবর ২০২২
High Court

High Court: ইডিকে পার্টি করার নির্দেশ পুনর্বিবেচনা করুন! সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় কোর্টে ফিরহাদরা

কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, অরূপ রায়। সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলা নিয়ে নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি।

হাই কোর্টের দ্বারস্থ রাজ্যের মন্ত্রীরা।

হাই কোর্টের দ্বারস্থ রাজ্যের মন্ত্রীরা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১২ অগস্ট ২০২২ ১৪:০৩
Share: Save:

নেতা-নেত্রীদের সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় শুক্রবার আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন রাজ্যের তিন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এবং অরূপ রায়। গত সোমবার হাই কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, ওই মামলায় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-কে পার্টি করা হোক। আদালতের সেই নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছেন তাঁরা।

হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে শুক্রবার আর্জি জানান ওই তিন মন্ত্রী। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর মামলার শুনানি হতে পারে। নেতা-নেত্রীদের সম্পত্তি বৃদ্ধি মামলায় গত ৮ অগস্ট তৃণমূলের ১৯ জন নেতা-মন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলায় ইডিকে যুক্ত করে আদালত।

রাজ্যের নেতা-নেত্রীদের সম্পত্তি বৃদ্ধি নিয়ে হাই কোর্টে ২০১৭ সালে দু'টি জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়। দুই মামলাকারী অনিন্দ্যসুন্দর দাস এবং বিপ্লবকুমার চৌধুরী সেই সময় তৃণমূলের ১৯ জনের নামে মামলা করেন। তাঁদের অভিযোগ ছিল, ২০১১ থেকে ২০১৬— এই ৫ বছরে কী ভাবে এই ১৯ জনের সম্পত্তি এত বৃদ্ধি পেল? সম্পত্তির খতিয়ান হিসাবে দেখানো হয় নির্বাচন কমিশনে দেওয়া ওই নেতাদের হলফনামা।

১৯ জন তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীর তালিকায় নাম রয়েছে ফিরহাদ হাকিম, ব্রাত্য বসু, মলয় ঘটক, শিউলি সাহা, অমিত মিত্র, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, অরূপ রায়, জাভেদ খান, সব্যসাচী দত্ত, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি রাজ্যের প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাধন পাণ্ডে, কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়েরও। ২০১৭ সালে করা অনিন্দ্যসুন্দর এবং বিপ্লবের করা সেই মামলার সূত্রেই নতুন করে আদালতে আবেদন করেন আইনজীবী শামিম আহমেদ। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই গত সোমবার ইডিকেও জুড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালেই অনিন্দ্যসুন্দরের পর আরও একটি মামলা করেন অরিজিৎ। তিনিও ৩০ জনের নাম আদালতে জমা দেন। সেখানে সূর্যকান্ত মিশ্র, অধীর চৌধুরীর নাম ছিল। অনিন্দ্যসুন্দরের সঙ্গে অরিজিতের মামলাটি তখনই জুড়ে দিয়েছিলেন বিচারপতি। এই মামলার সঙ্গে যুক্ত আইনজীবী অনিন্দ্যসুন্দর জানিয়েছেন, ‘‘ওই সময় অরিজিতের মামলায় ইডিকে পার্টি করা হয়েছিল। কিন্তু আমাদের পিটিশনে ইডি ছিল না।’’ সেই দু’টি মামলার সূত্রেই নতুন করে আবেদন করেন আইনজীবী শামিম, যার প্রেক্ষিতে ইডিকে এই মামলায় জুড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.