Advertisement
২২ জুন ২০২৪
Coronavirus in Kolkata

ফের এক জন আক্রান্ত রাজারহাটে

পঞ্চায়েত সমিতি সূত্রের খবর, করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় ৫৬ বছর বয়সি ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৩ মে ২০২০ ০২:৩১
Share: Save:

রাজারহাটের রাইগাছিতে ফের এক জন আক্রান্ত করোনায়। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ইতিমধ্যেই এলাকাটি ঘিরে দিয়ে জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে বলে রাজারহাট পঞ্চায়েত সমিতি সূত্রের খবর। আক্রান্ত ব্যক্তি যেখানে ভাড়া থাকেন, সেখানকার ৩৯ জনকে সোমবার বারাসত কোয়রান্টিন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। তাঁরা সকলেই মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা। কর্মসূত্রে রাইগাছিতে আছেন।

পঞ্চায়েত সমিতি সূত্রের খবর, করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় ৫৬ বছর বয়সি ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে রিপোর্ট পজ়িটিভ আসায় তাঁর ৩৯ জন সঙ্গীকে কোয়রান্টিনে পাঠানো হয়। তাঁদেরও লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রবীর কর জানান, আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা চলছে। স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: সুস্থ হয়ে ফিরছেন আক্রান্তেরা, স্বস্তি হজ হাউসে

ব্যবসা সংক্রান্ত কারণেই মহারাষ্ট্রের ওই বাসিন্দা রাজারহাটে বাড়ি ভাড়া নিয়েছিলেন। লকডাউন চালু হয়ে যাওয়ায় তিনি ও তাঁর কারবারে যুক্ত ৩৯ জন সেখানে আটকে পড়েন। স্থানীয় সূত্রের খবর, বাড়ি ফেরার জন্য প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন তাঁরা। ট্রেন চালু হওয়ার খবর পেয়ে তাঁরা টিকিটও বুক করেছিলেন। তখনই তাঁদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে খোঁজ নিতে গিয়ে জানা যায়, এক জনের করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছে। এর পরেই সকলের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

রাইগাছি এলাকায় আরও একটি পরিবারের একাধিক সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ওই এলাকাটি কন্টেনমেন্ট জ়োন হিসেবে চিহ্নিত করে আগেই পদক্ষেপ করেছিল পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন। ফের সেখানে এক জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় নিষেধ আরও জোরদার করা হয়েছে বলে বিডিও অফিস সূত্রের খবর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Coronavirus in Kolkata Rajarhat
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE