Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

শপিংমলে খুলে পড়ল ৩৫ হিরের ব্রেসলেট, তার পর শুধুই নাটক 

রবিবার ফুলবাগান থানা এলাকায় একটি শপিং মলে গিয়েছিলেন বৌবাজারের বাসিন্দা শ্রদ্ধা জয়সওয়াল। সেখানে আচমকাই তাঁর হাত থেকে খুলে পড়ে যায় হিরে বসানো

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৬ জানুয়ারি ২০২০ ১৭:০২
Save
Something isn't right! Please refresh.
এই সেই হিরে বসানো সোনার ব্রেসলেট। নিজস্ব চিত্র।

এই সেই হিরে বসানো সোনার ব্রেসলেট। নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

এ যেন খড়ের গাদায় সূচ খোঁজা! রবিবার ফুলবাগান থানা এলাকায় একটি শপিং মলে গিয়েছিলেন বৌবাজারের বাসিন্দা শ্রদ্ধা জয়সওয়াল। সেখানে আচমকাই তাঁর হাত থেকে খুলে পড়ে যায় হিরে বসানো একটা সোনার ব্রেসলেট। প্রায় ১৫ গ্রাম ওজনের সোনার ব্রেসলেটে বসানো ছিল ৩৫টি হিরে। শপিং মলের বিভিন্ন অংশে খোঁজার পরেও কয়েক লাখ টাকা দামের ওই গয়নার হদিশ না পেয়ে ফুলবাগান থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন শ্রদ্ধা।

মলকর্মী থেকে শুরু করে বিভিন্ন দোকানের কর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ নিশ্চিত হয় যে, কেউ কুড়িয়ে পেয়েছে ওই ব্রেসলেট। এর পর শুরু হয় খড়ের গাদায় সূচ খোঁজার কাজ। শ্রদ্ধা যেখানে যেখানে ওই দিন গিয়েছিলেন, সেই সূত্র ধরে একের পর এক সিসি ক্যামেরার ফুটেজ তন্ন তন্ন করে দেখা হয়। সেই ফুটেজ দেখতে দেখতে এক মহিলাকে শনাক্ত করা হয়। যাঁকে ওই ব্রেসলেটটি কুড়িয়ে নিতে দেখা যায়। সর্বাণী মুখোপাধ্যায় নামে দক্ষিণ পূর্ব রেলের ওই কর্মীকেও পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে।পুলিশের কাছে সর্বাণী দাবি করেন, তিনি ব্রেসলেটটি কুড়িয়ে পেয়েছিলেন। কিন্তু তার পরে তাঁর মনে হয়, অন্যের জিনিস কুড়িয়ে নেওয়া উচিত নয়। তাই তিনি সেটা মলের মধ্যেই ফেলে দেন।

এর পর ফের পুলিশ খতিয়ে দেখতে থাকে ফুটেজ। এবার দেখা যায়, এক ব্যক্তি কিছু একটা কুড়িয়ে নিচ্ছেন মলের ভেতর থেকে। ওই ব্যক্তিকে চিহ্নিত করার পর তাঁকে শনাক্ত করা কঠিন হয়ে যায় পুলিশের পক্ষে। শেষ পর্যন্ত ফুটেজ ধরে ওই ব্যক্তি কোথায় কোথায় গিয়েছিলেন, সেই সমস্ত দোকানে খোঁজ করা শুরু করে পুলিশ। একটি দোকানে দেখা যায় তিনি কিছু কেনাকাটা করেছেন। সেই দোকান থেকে কেনাকাটার সময় তিনি নিজের মোবাইল নম্বরও দিয়েছিলেন। এক তদন্তকারী বলেন, ‘‘প্রথমে আমরা ওই ব্যক্তিকে ফোন করি। বলা হয় থানায় ওই ব্রেসলেটটি জমা দিতে।”

Advertisement

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ফোন পেয়েই ওই ব্যক্তি ফুলবাগান থানায় এসে ব্রেসলেটটি জমা দিয়ে যান। ডিসি (পূর্ব শহরতলি) অজয় প্রসাদ বলেন, ‘‘ওই ব্যক্তি পেশায় ব্যাঙ্ককর্মচারী। বছর তিরিশের ওই ব্যক্তি আমাদের জানিয়েছেন যে, তিনি চেষ্টা করেছিলেন জিনিসটা ফেরত দিতে। কিন্তু কাকে দেবেন? তাই রেখে দিয়েছিলেন নিজের কাছেই।”

যে হেতু শ্রদ্ধা জয়সওয়াল এফআইআর করেছেন, তাই ওই ব্রেসলেট তাঁকে আদালতের মাধ্যমেই ফেরত দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে পুলিশ সূত্রে।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement