×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

ভাড়া বৃদ্ধির প্রথম দিনেই যাত্রী কম, তবু ভাঁড়ার ভরল মেট্রোর

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ০১:৪৯
অফিসের ব্যস্ত সময়েও যাত্রী কম মেট্রোয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়, সেন্ট্রাল স্টেশনে। ছবি: সুমন বল্লভ

অফিসের ব্যস্ত সময়েও যাত্রী কম মেট্রোয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়, সেন্ট্রাল স্টেশনে। ছবি: সুমন বল্লভ

ভাড়া বৃদ্ধির প্রথম দিনেই যাত্রীর সংখ্যা কমেছে। তবে বৃহস্পতিবার ভরেছে মেট্রোর আয়ের ভাঁড়ার।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পাওয়া মেট্রোর হিসেব বলছে, অন্য দিনের তুলনায় এ দিন প্রায় ৪০ হাজার যাত্রী কম চড়েছেন। তবে এর পরেও কর্তৃপক্ষের সাত লক্ষ টাকা বেশি আয় হয়েছে। দিনের শেষে আয়ের পরিমাণ আরও বাড়বে বলেই মত মেট্রো কর্তৃপক্ষের। নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে মেট্রোয় ভাড়া বৃদ্ধির কথা জানায় রেল মন্ত্রক। সর্বনিম্ন ও সর্বাধিক ভাড়া অপরিবর্তিত রয়েছে। মাঝের ধাপে পরিবর্তন হয়েছে ভাড়া।

মেট্রো সূত্রের খবর, ২০১৩ সালে নভেম্বরে শেষ বার মেট্রোর ভাড়া বেড়েছিল। ছ’বছর পরে ভাড়া বাড়ায় খানিকটা অভিযোগের সুর যাত্রীদের মধ্যে। এক নিত্যযাত্রী এ দিন বলেন, ‘‘আগে এসপ্লানেড থেকে যতীন দাস পার্ক পর্যন্ত পাঁচ টাকায় সফর করা যেত। এখন সে জায়গায় রবীন্দ্র সদন যেতেই ১০ টাকা দিতে হচ্ছে!’’ চাঁদনি চক থেকে দমদম যেতে আগে ১০ টাকা লাগত, এখন ১৫ টাকা লাগবে। চাঁদনি থেকে নোয়াপাড়া পর্যন্ত দিতে হবে ২০ টাকা। এসপ্লানেড থেকে পাঁচ টাকার টিকিটে সেন্ট্রাল পর্যন্ত যাওয়া যাবে।

Advertisement

এ দিন সন্ধ্যা পর্যন্ত হিসেব বলছে, বুধবারের তুলনায় বৃহস্পতিবার ২০ হাজার যাত্রী কম টোকেন কিনেছেন। স্মার্ট কার্ডের ক্ষেত্রেও কমবেশি ২০ হাজার যাত্রী কমেছে। মেট্রো রেলের এক আধিকারিক বলেন, ‘‘পরিষেবার মানোন্নয়নে ভাড়া বৃদ্ধি জরুরি ছিল। তবে যাত্রীদের কথা ভেবেই

বর্ধিত ভাড়া পাঁচ টাকার মধ্যে রাখার চেষ্টা হয়েছে।’’

Advertisement