Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ভাড়া বাড়তেই বাসের ভিড় মেট্রোয়

যাত্রী-সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় মেট্রোর আয়ও চার শতাংশের কাছাকাছি বেড়েছে বলে খবর। গত তিন মাসের হিসেব থেকে সেই ইঙ্গিতই মিলেছে। মেট্রো সূত্রের খবর

ফিরোজ ইসলাম
১৫ জুলাই ২০১৮ ০১:২২
ঠাসাঠাসি: বাসের ভাড়া বাড়ায় খরচ কমাতে মেট্রোর উপরেই ভরসা করছেন নিত্যযাত্রীদের একাংশ। শনিবার। নিজস্ব চিত্র

ঠাসাঠাসি: বাসের ভাড়া বাড়ায় খরচ কমাতে মেট্রোর উপরেই ভরসা করছেন নিত্যযাত্রীদের একাংশ। শনিবার। নিজস্ব চিত্র

নড়বড়ে পরিষেবা নিয়েও বাসের যাত্রী কাড়ছে কলকাতা মেট্রো!

গত এক মাসে মেট্রোর যাত্রী-সংখ্যার হিসেব তেমনটাই ইঙ্গিত দিচ্ছে।

তথ্য বলছে, আগের তুলনায় সপ্তাহের কাজের দিনে গড়ে ২০ থেকে ২৫ হাজার বেশি যাত্রী মেট্রোয় যাতায়াত করছেন। এমনকি, দু’-এক দিন সেই সংখ্যা ২৫ বা ৩০ হাজারেও দাঁড়াচ্ছে।

Advertisement

মেট্রোকর্তাদের অনুমান, ভাড়া বৃদ্ধির কারণেই বাসযাত্রীদের একাংশ এখন মেট্রোকেই যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছেন। যাত্রী-সংখ্যার আকস্মিক বৃদ্ধি সেই প্রবণতারই সম্ভাব্য প্রমাণ।

যাত্রী-সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় মেট্রোর আয়ও চার শতাংশের কাছাকাছি বেড়েছে বলে খবর। গত তিন মাসের হিসেব থেকে সেই ইঙ্গিতই মিলেছে। মেট্রো সূত্রের খবর, ২.১ শতাংশ অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহণের জন্য আয় বেড়েছে ৩.৭১ শতাংশ।

তবে মেট্রোকর্তাদের অনুমান, আগামী ত্রৈমাসিকে এই হার আরও খানিকটা বাড়তে পারে। কারণ, বাসের ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়েছে জুন মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের পরে। তত দিনে অর্থবর্ষের প্রথম ত্রৈমাসিক প্রায় শেষের পথে। তাই শেষ হিসেব মিলছে শেষের ওই কয়েক দিনেরই।

মেট্রো সূত্রে খবর, মাসখানেক আগেও সপ্তাহের কাজের দিনে (সোমবার থেকে শুক্রবার) রোজ ৩০০টি ট্রেন চালিয়ে গড়ে সাড়ে ৬ লক্ষের মতো যাত্রী পরিবহণ করা হত। গত কয়েক সপ্তাহে সেই যাত্রী-সংখ্যা বাড়তে বাড়তে ৬.৬৪ থেকে ৬.৭৫ লক্ষের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। এমনকি, গত ৯ জুলাই, সোমবার ওই সংখ্যা ৬.৮২ লক্ষে গিয়ে ঠেকেছিল। তার ঠিক আগেই গত ৭ জুলাই, শনিবার মাত্র ২২৪টি ট্রেন চালিয়ে যাত্রী-সংখ্যা হয়েছিল ৬.০৯ লক্ষ।

জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহে সরকার বাসের ভাড়ার নতুন হার ঘোষণা করেছে। ওই হার অনুযায়ী, বেসরকারি সাধারণ বাসে ন্যূনতম সাত টাকা খরচ করে চার কিলোমিটার যাওয়া যায়। মিনিবাসের ক্ষেত্রে ন্যূনতম আট টাকা খরচ করে যাওয়া যায় মাত্র তিন কিলোমিটার। বাতানুকূল বাসের ক্ষেত্রে ন্যূনতম ভাড়া ২০ টাকা। যাওয়া যায় পাঁচ কিলোমিটার। ভলভোর ক্ষেত্রে ২০ টাকায় যাওয়া যায় মাত্র দু’কিলোমিটার পথ।

কিন্তু সেখানে মেট্রোয় ন্যূনতম ভাড়া এখনও পাঁচ টাকা, যাতে পাঁচ কিলোমিটার যাওয়া যায়। ফলে শহরের মধ্যে অল্প দূরত্বে বাসের
চেয়ে মেট্রোয় যাতায়াতই সাশ্রয়কারী ও সুবিধাজনক বলে মানছেন বাসমালিক সংগঠনের কর্তারাও। সুতরাং মেট্রোর ভাড়া না বাড়লে বাসের লোকসান আরও বাড়তে
পারে বলে আশঙ্কা করছেন বাসমালিকদের একাংশ।

বর্তমানে মেট্রোয় দূরত্ব অনুযায়ী ভাড়ার নিরিখে ৬টি জ়োন রয়েছে। গত জুন মাসের শেষ ১৫ দিনের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, বাসের তুলনায় ভাড়া কয়েক টাকা বেশি পড়লেও চতুর্থ জ়োনে ১৫ টাকা খরচ করে ২০ কিলোমিটার যেতে পারছেন যাত্রীরা। তাই ওই দূরত্বের টোকেন আগের তুলনায় দ্বিগুণ বিক্রি হয়েছে। মেট্রো রেলের এক আধিকারিক জানান, সব ক’টি মেট্রো প্রকল্পের সম্প্রসারণ সম্পূর্ণ হলে যে সব নতুন পথ দিয়ে মেট্রো চলবে, সেখানে যাতায়াতের অন্য মাধ্যম ছেড়ে অন্তত ৬৫ শতাংশ যাত্রী মেট্রোকেই
বেছে নেবেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে মেট্রো রেলের মুখ্য জনসংযোগ অধিকারিক ইন্দ্রাণী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “সব তথ্যই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নতুন পরিসংখ্যান অবশ্যই ভবিষ্যতের পরিকল্পনায় সাহায্য করবে। মেট্রোর প্রতি যাত্রীদের আস্থা যে বাড়ছে, এটা খুব আশাব্যঞ্জক।”

আরও পড়ুন

Advertisement