Advertisement
২৪ জুলাই ২০২৪

মিথ্যে বদনাম দিয়ে ছিনতাই

যুবক কিছুটা ভয় পেয়ে গেলে ওই দুই ব্যক্তি তাঁকে ধাক্কা মারতে মারতে পাশের একটি গলিতে নিয়ে যায়। সেখানে ভয় দেখিয়ে ওই যুবকের তিনটি আংটি, প্যান কার্ড এবং নগদ টাকা নিয়ে চম্পট দেয় ওই দুই ব্যক্তি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭ ০০:৩৬
Share: Save:

রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময়ে হঠাৎ এক যুবকের পথ আটকায় দুই ব্যক্তি। যুবকের দু’পাশে দাঁড়িয়ে তারা হুমকি দিতে থাকে, এলাকায় শ্লীলতাহানি করে এ ভাবে পালিয়ে বেড়ানো যাবে না। এ বার লোকজন ডেকে মারধর খাওয়ানো হবে তাঁকে৷ কথাটা শুনেই হকচকিয়ে গিয়েছিলেন যুবক। বোঝানোর চেষ্টা করছিলেন, কোথাও ভুল হচ্ছে। কিন্তু হম্বিতম্বি বাড়তেই থাকে। যুবক কিছুটা ভয় পেয়ে গেলে ওই দুই ব্যক্তি তাঁকে ধাক্কা মারতে মারতে পাশের একটি গলিতে নিয়ে যায়। সেখানে ভয় দেখিয়ে ওই যুবকের তিনটি আংটি, প্যান কার্ড এবং নগদ টাকা নিয়ে চম্পট দেয় ওই দুই ব্যক্তি।

শনিবার রাতে এমনই ঘটেছে কসবা থানা এলাকার রাজডাঙার কাছে। পুলিশ জানায়, অভিযোগকারীর নাম গৌরব রায়। কসবার এনডিবি রোডের বাসিন্দা ওই যুবক রবিবার কসবা থানাতেই ভয় দেখিয়ে তোলবাজির অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ মেলার পরেই তদন্তে নেমে পুলিশ সন্দেহভাজন কয়েক জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলেও সোমবার রাত পর্যন্ত দুষ্কৃতীদের কোনও খোঁজ মেলেনি।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানায়, অভিযোগকারী যুবক একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত। ঘটনার দিন ফুটপাথ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন তিনি। পুলিশের কাছে গৌরবের অভিযোগ, রাজডাঙার কাছে হঠাৎই অপরিচিত ওই দুই যুবক তাঁর
পথ আটকায়।

লালবাজার জানিয়েছে, ঘটনার পরে ওই যুবক কিছুটা হকচকিয়ে যায়। পরে পুলিশের দ্বারস্থ হন তিনি। অভিযোগকারীর বয়ান শুনে দুষ্কৃতীদের স্কেচ আঁকাচ্ছে পুলিশ। দুষ্কৃতীদের চিহ্নিত করতে এলাকার সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুলিশের দাবি, মিথ্যে বদনাম দিয়ে ভয় দেখিয়ে তোলাবাজি করার একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরেই শহরের বুকে সক্রিয়। এর আগে হেয়ার স্ট্রিট, নেতাজিনগর-সহ একাধিক থানায় ওই চক্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে পুলিশ দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারও করেছে বলে দাবি লালবাজারের। তবে ওই চক্রের সঙ্গে কসবার ঘটনার দুষ্কৃতীরা জড়িত কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে তদন্তকারীদের দাবি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Beating Stolen Young Man
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE