Advertisement
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Death

বাজ পড়ে মৃত পাঁচ, সাত জখম

সোমবার দুপুরে ঝাড়গ্রাম জেলার  বজ্রবিদ্যুৎ-সহ মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়।  তখনই দুর্ঘটনাগুলি ঘটে।

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

নিজস্ব সংবাদদাতা
ঝাড়গ্রাম শেষ আপডেট: ২১ জুলাই ২০২০ ০৫:২৭
Share: Save:

ঝাড়গ্রাম জেলায় পৃথক তিনটি জায়গায় বাজ পড়ে মৃত্যু হল দুই মহিলা-সহ পাঁচজনের।

সোমবার দুপুরে ঝাড়গ্রাম জেলার বজ্রবিদ্যুৎ-সহ মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়। তখনই দুর্ঘটনাগুলি ঘটে। পুলিশ জানায়, মৃতেরা হলেন সাঁকরাইলের দুধিয়ানালা গ্রামের যতন কালিন্দি (৫০), সুন্দরী কালিন্দি (৪৫), জামবনি থানার পড়িহাটির শেখ মুক্তার (৪৫) ও বাগঘোরি গ্রামের পূর্ণচন্দ্র মুর্মু (৩৫) এবং গোপীবল্লভপুর থানার মহুলি গ্রামের ফুদিল মহাপাত্র (৪৮)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন দুপুরে সাঁকরাইলের ধানঘোরি পঞ্চায়েতের দুধিয়ানালা এলাকায় মাঠে ধান পোঁতার সময়ে বাজ পড়ে গুরুতর জখম হন যতন ও সুন্দরী। ভাঙাগড় গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁদের মৃত ঘোষণা করা হয়। জামবনির পড়িহাটি গ্রামের শেখ মুক্তার ও বাগঘোরির পূর্ণচন্দ্র মুর্মুও চাষ করার সময়েই বজ্রাহত হন। গোপীবল্লভপুরের মহুলি গ্রামের ফুদিল মহাপাত্র এদিন গরু চরিয়ে ফিরছিলেন। বাড়ির কাছে এসে বজ্রাঘাতে লুটিয়ে পড়েন।

শুধু মৃত্যু নয়। এদিন বাজ পড়ে জেলায় দুই মহিলা-সহ মোট সাতজন জখমও হয়েছেন। জখমদের মধ্যে রয়েছেন সাঁকরাইলের দুধিয়ানালার একজন, জামবনির নাচদা গ্রামের দু’জন ও বাগঘোরির দুই শিশু-সহ চার জন। দুধিয়ানালায় যিনি জখম হয়েছেন তিনি মৃত যতন ও সুন্দরীর সঙ্গেই মাঠে ধান পোঁতার কাজ করছিলেন। তাঁর চিকিৎসা চলছে ভাঙাগড় গ্রামীণ হাসপাতালে। এক মহিলা-সহ চারজন ঝাড়গ্রাম জেলা সুপার স্পেশ্যালিটিতে চিকিৎসাধীন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE