×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৮ মে ২০২১ ই-পেপার

ফের হাতির হানা, ক্ষতি চাষে

নিজস্ব সংবাদদাতা
মেদিনীপুর ও গোয়ালতোড় ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০২:২৮
দলবদ্ধ: ধানখেতে হাতির পাল। পিছু নিয়েছে গ্রামবাসী। গুড়গুড়িপালে। ছবি: সৌমেশ্বর মণ্ডল

দলবদ্ধ: ধানখেতে হাতির পাল। পিছু নিয়েছে গ্রামবাসী। গুড়গুড়িপালে। ছবি: সৌমেশ্বর মণ্ডল

মেদিনীপুর গ্রামীণে হানা দিল হাতির দল। আর গোয়ালতোড়ের দুধপতরির জঙ্গলে ঘাঁটি গেড়ে থাকা আরেকটি হাতির বদল করল তাদের ডেরা।বন দফতর সূত্রের খবর, হাতির একটি বড় দল চাঁদড়ার শুকনাখালির জঙ্গলে রয়েছে। হাতির দল এলাকায় চলে আসায় স্থানীয়েরা উদ্বেগেও রয়েছেন। বৃহস্পতিবার মেদিনীপুর বন বিভাগের ইতিউতি হাতির দল ছিল। সবচেয়ে বড় দলটি ছিল চাঁদড়া রেঞ্জের শুকনাখালিতে। দলটিতে ৩০-৩৫টি হাতি রয়েছে। নয়াবসত রেঞ্জের উখলায় ১টি হাতি রয়েছে। লালগড় রেঞ্জের কামরাঙ্গিতে ৬- ৭টি হাতি রয়েছে। পিঁড়াকাটা রেঞ্জের জামিরগোটে ১টি হাতি রয়েছে। পাথরিতে হাতি রয়েছে ২০-২১টি। অন্যদিকে, আড়াবাড়ি রেঞ্জের জোড়াকুশমিতে ১৪- ১৫টি হাতি রয়েছে। এখন জমিতে ধান রয়েছে। হাতির দল এলাকায় থেকে গেল ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।

এ দিন সকালে মেদিনীপুর গ্রামীণের একাধিক এলাকায় হানা দেয় হাতির দল। পরে স্থানীয়দের তাড়া খেয়ে দলটি জঙ্গলে যায়। পরিস্থিতি দেখে বন দফতর থেকে স্থানীয়দের সতর্ক করা হয়েছে। জঙ্গলে না যাওয়ার কথা জানানো হয়েছে। সব সময়ে সতর্ক থাকার কথাও জানানো হয়েছে। স্থানীয়দের একাংশের অভিযোগ, হাতি তাড়াতে পদক্ষেপ করছে না বন দফতর। বনকর্মীদের একাংশ জানাচ্ছেন, দিনের বেলায় হাতি তাড়াতে সমস্যা রয়েছে। তাই রাতের দিকেই হাতিগুলিকে অন্যত্র সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। ক্ষয়ক্ষতি যাতে না হয় সেই দিকটিও দেখা হচ্ছে। এ দিন হাতির হানায় কিছু ফসলের ক্ষতি হয়েছে। মেদিনীপুরের এক বন আধিকারিক মানছেন, ‘‘মেদিনীপুর সদর ব্লকের চাঁদড়ার এক জঙ্গলে হাতির একটি দল রয়েছে। দলটির গতিবিধির উপরে নজর রাখা হয়েছে। দলটিকে সরানোর সব রকম চেষ্টাও চলছে।’’ বন দফতরের আশ্বাস, ক্ষতিগ্রস্তদের নিয়মানুযায়ী ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। অতর্কিতে হাতির দলের হানায় এদিন একাধিক এলাকায় শোরগোলও পড়ে।

গোয়ালতোড়ের দুধপতরির জঙ্গলে ঘাঁটি গেড়ে থাকা ২৫টির মতো হাতির একটি দল আবার ডেরা বদলে এ দিন শালবনির পিড়াকাটার ভাউদির জঙ্গলে ঢুকেছে। পথে দেবগ্রামে ধানের প্রচুর ক্ষতি করেছে তারা। গড়বেতার ধাদিকার খড়িকাশুলির জঙ্গলে থাকা আরও একটি দল ডেরা বদলে কয়েক কিলোমিটার দূরে আস্তাশোলের জঙ্গলে গিয়েছে। এই দলে ৪টি শাবক-সহ ২২-২৫টি হাতি রয়েছে। দলের একটি অংশ এ দিন বাঁকুড়ার জঙ্গলে গিয়েছে বলে খবর। ডেরা বদলের পথে ধান ও আনাজে ক্ষতি করেছে এরাও।

Advertisement

হামলা ঝাড়গ্রাম চুবকাতেও

বিস্তীর্ণ জমিতে ধানচাষের ক্ষতি করল হাতির দল। বুধবার রাতে ঝাড়গ্রামের চুবকা এলাকার চিতলবনি মৌজায় ৪০-৪৫টি হাতির দল এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময়ে খেত মাড়িয়ে ধানগাছ খেয়ে ব্যাপক ক্ষতি করেছে। বন দফতর ও স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার রাতে কুমারির জঙ্গল থেকে বেরিয়ে হাতির দলটি পেঁচাপাড়া, সাতবল্লা, ডোমকলা হয়ে চিতলবনিতে হাজির হয়। আসার পথে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে ওই সব গ্রামের ধান খেতেও হানা দেয় তারা। হুলাপার্টি ও গ্রামবাসীর তাড়া খেয়ে ঘোড়াজাগির, দেওয়া‌চক, গুড়েডাঙা ও চিতলবনি মৌজায় ধানখেত তছনছ করে। চুবকা পঞ্চায়েতের প্রধান উদয়শঙ্কর সেন জানান, রাত একটা নাগাদ চিতলবনির হয়ে কংসাবতী নদী পেরিয়ে দলটি পশ্চিম মেদিনীপুরের সদর ব্লকের মণিদহের দিকে চলে যায়।

Advertisement