Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

কাল ক্যাম্পাসে গুগল কর্তা, প্রহর গুনছে খড়্গপুর আইআইটি

সুখবরটা জানাই ছিল। এ বার জানা গেল দিনক্ষণ। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে কাল, বৃহস্পতিবার খড়্গপুর আইআইটিতে আসবেন প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তনী, গুগলের সিইও

নিজস্ব সংবাদদাতা
খড়্গপুর ০৪ জানুয়ারি ২০১৭ ০০:৩৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
শুরু হয়েছে ক্যাম্পাস সাজানোর কাজ। — নিজস্ব চিত্র।

শুরু হয়েছে ক্যাম্পাস সাজানোর কাজ। — নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

সুখবরটা জানাই ছিল। এ বার জানা গেল দিনক্ষণ। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে কাল, বৃহস্পতিবার খড়্গপুর আইআইটিতে আসবেন প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তনী, গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই।

নতুন বছরের প্রথমেই যে সুন্দর খড়্গপুরে আসতে চান, তা ডিসেম্বর মাসেই জানিয়েছিলেন আইআইটির অধিকর্তা পার্থপ্রতিম চক্রবর্তী। তখনও দিনক্ষণ স্থির হয়নি। পরে ঠিক হয় ৫ জানুয়ারি নিজের পুরনো ক্যাম্পাসে আসবেন সুন্দর। ১৯৯৩ সালে আইআইটির ধাতুবিদ্যা বিভাগ থেকে বিটেক পাশের পরে এই প্রথম খড়্গপুরে আসছেন তিনি। ২০১৫ সালের ১০ অগস্ট আইআইটির এই প্রাক্তনীকে সিইও ঘোষণা করে গুগল। তারপর গত বছর খড়্গপুর আইআইটি কর্তৃপক্ষ ‘ডিস্টিংগুইশড্‌ অ্যালামনি অ্যাওয়ার্ড’- এর প্রাপক হিসেবে সুন্দরের নাম ঘোষণা করেন। কিন্তু সেই পুরস্কার নিতেও আসতে পারেননি সুন্দর।

আইআইটি সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা নাগাদ কলাইকুণ্ডায় বিমান নামবে সুন্দরের। সেখান থেকে হেলিকপ্টারে ক্যাম্পাসে পৌঁছবেন তিনি। তাঁর হাতে তুলে দেওয়া হবে ‘ডিস্টিংগুইশড্‌ অ্যালামনি অ্যাওয়ার্ড’। তারপর ধাতুবিদ্যা বিভাগ ও নেহরু হল (হস্টেল) ঘুরে দেখবেন তিনি। সব শেষে ছাত্রদের মুখোমুখি হবেন ‘টেগোর ওপেন-এয়ার থিয়েটারে’। এখন সে সবেরই প্রস্তুতি চলছে জোরকদমে। আইআইটি-র অ্যালমনি অ্যাফেয়ার্সের ডিন অধ্যাপক সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায় বলেন, “আমরা যত বেশি সংখ্যক ছাত্রকে ওই অনুষ্ঠানে রাখার ব্যবস্থা করছি। নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।”

Advertisement

কৃতী প্রাক্তনীর আসার খবরে আইআইটির বর্তমান পড়ুয়ারাও উৎসাহিত। ধাতুবিদ্যা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র দেবাঞ্জন নায়েক বলছিলেন, “সুন্দর পিচাই গুগলের সিইও হওয়ার পরে এই প্রথম ক্যাম্পাসে আসছেন। তাই আইআইটি জুড়ে সাজ সাজ রব। সকলেই শীতের ছুটি কাটিয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে এসেছি।”

১৯৯৩ সালে সুন্দর যখন আইআইটি ছেড়েছেন, তখনকার ধাতুবিদ্যা বিভাগের শিক্ষকদের মধ্যে কেউই আর এখন নেই। ২০১৫ সালে ধাতুবিদ্যা বিভাগ থেকে অবসর নেওয়া শিক্ষক সনৎ রায়কে অবশ্য বৃহস্পতিবারের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সনৎবাবু বলছিলেন, “আইআইটি তখন এত উন্নত ছিল না। তার মধ্যেও সুন্দর পিচাইয়ের মতো কিছু ঈশ্বর প্রদত্ত ছাত্র ছিল। ওর মতো একজন প্রাক্তনী আসায় আমি আপ্লুত। আশা করি, ওঁর আমাকে মনে পড়বে।”

তবে নিজের বিভাগে সুন্দর কতটা সময় দিতে পারবেন তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। ধাতুবিদ্যার বিভাগীয় প্রধান গৌরগোপাল রায় বলেন, “শুনছি সুন্দর পিচাই নিজের বিভাগে ১৫ মিনিট সময় দেবেন। আমরা ওঁর হাতে একটি স্মারক তুলে দেব। আর একটি গবেষণাগার দেখানোর ইচ্ছে রয়েছে।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement