Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

স্নাতকোত্তরে সব আসনেই ভর্তির পরীক্ষা

নিয়ম অনুযায়ী, স্নাতকোত্তরের মোট আসনের ৬০ শতাংশ আসনে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত কলেজের পড়ুয়ারাই ভর্তি হতে পারেন। এ ক্ষেত্রে সরাসরি মেধার ভ

নিজস্ব সংবাদদাতা
মেদিনীপুর ১৬ জুন ২০১৭ ০০:৩৬
দাবি: ৬০ শতাংশ আসনে মেধা তালিকার মাধ্যমে ভর্তির ব্যবস্থা বহাল রাখার দাবিতে বৃহস্পতিবার বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদ (টিএমসিপি) ও ডিএসও। বিক্ষোভের পাশাপাশি স্মারকলিপিও দেওয়া হয়। নিজস্ব চিত্র

দাবি: ৬০ শতাংশ আসনে মেধা তালিকার মাধ্যমে ভর্তির ব্যবস্থা বহাল রাখার দাবিতে বৃহস্পতিবার বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদ (টিএমসিপি) ও ডিএসও। বিক্ষোভের পাশাপাশি স্মারকলিপিও দেওয়া হয়। নিজস্ব চিত্র

মেধার ভিত্তিতে নয়, স্নাতকোত্তরে প্রবেশিকা পরীক্ষা দিয়েই ভর্তি হতে হবে পড়ুয়াদের— বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই নয়া নির্দেশে তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

নিয়ম অনুযায়ী, স্নাতকোত্তরের মোট আসনের ৬০ শতাংশ আসনে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত কলেজের পড়ুয়ারাই ভর্তি হতে পারেন। এ ক্ষেত্রে সরাসরি মেধার ভিত্তিতে পড়ুয়াদের ভর্তি নেওয়া হয়। বাকি ৪০ শতাংশ আসনে ভর্তির জন্য পড়ুয়াদের প্রবেশিকা পরীক্ষা দিতে হয়। এই আসনগুলিতে ভর্তির জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত কলেজ ছাড়া অন্য কলেজের পড়ুয়ারাও আবেদন করতে পারেন।

এই নিয়মের ভিত্তিতেই বিদ্যাসাগরে স্নাতকোত্তরে ভর্তির জন্য গত ২৫ মে থেকে ৫ জুন পর্যন্ত ফর্ম পূরণ হয়। বৃহস্পতিবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তরে ভর্তি শুরু হওয়ারও কথা ছিল। আচমকাই তা স্থগিত হয়ে যায়। বুধবার বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়, অনিবার্য পরিস্থিতির জন্য স্নাতকোত্তরে ভর্তি স্থগিত থাকছে। এরপরই নতুন সিদ্ধান্তের কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য রঞ্জন চক্রবর্তী বলেন, “স্নাতকোত্তরে প্রবেশিকা পরীক্ষার মাধ্যমেই ভর্তি হতে হবে। ফ্যাকাল্টি কাউন্সিল এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরফলে, সব ছাত্রছাত্রীর কাছে সমান সুযোগ থাকছে।”

Advertisement

নতুন বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, স্নাতকোত্তরে ভর্তির জন্য ৬০ ও ৪০ শতাংশ আসনের বিভাজন আগের মতোই থাকছে। তবে ভর্তির জন্য সকল পড়ুয়াকেই প্রবেশিকা পরীক্ষা দিতে হবে। মেধার ভিত্তিতে সরাসরি আর কোনও পড়ুয়া ভর্তি নেওয়া হবে না। এ ক্ষেত্রে দু’টি পরীক্ষা হবে। ৬০ শতাংশ আসনে ভর্তির জন্য প্রবেশিকা পরীক্ষা দিতে পারবেন শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত কলেজগুলোর পড়ুয়ারাই। বাকি ৪০ শতাংশ আসনের ক্ষেত্রে আগের নিয়মেই প্রবেশিকা পরীক্ষা হবে। প্রবেশিকা পরীক্ষা কবে হবে তা অবশ্য এখনও জানানো হয়নি। পরে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তা জানানো হবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর। নতুন বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ফর্ম পূরণের সময়সীমাও বাড়ানো হয়েছে। ১৫-২১ জুন পর্যন্ত ফর্ম পূরণ করা যাবে। যাঁরা ফর্ম পূরণ করেছেন তাঁদের অবশ্য নতুন করে আর ফর্মফিলাপ করতে হবে না।

কেন ভর্তি প্রক্রিয়ায় এই বদল? সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি কাউন্সিল সিদ্ধান্ত হয়, মেধার ভিত্তিতে সংরক্ষিত ৬০ শতাংশ আসনের ৫ শতাংশ স্বশাসিত মেদিনীপুর কলেজের পড়ুয়াদের জন্য সংরক্ষণ করা হবে। সে ক্ষেত্রে মেধার ভিত্তিতে সংরক্ষিত ৬০ শতাংশ আসনের বাকি ৫৫ শতাংশ আসনে ভর্তির সুযোগ পেতেন না মেদিনীপুর কলেজের পড়ুয়ারা। এরপরেই মেদিনীপুর কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে চিঠি দিয়ে জানায়, মাত্র ৫ শতাংশ আসন সংরক্ষণের ফলে তাদের কলেজের অনেক মেধাবী পড়ুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া থেকে বঞ্চিত হবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের এক আধিকারিকের কথায়, “সব দিক খতিয়ে ফ্যাকাল্টি কাউন্সিল পরীক্ষার মাধ্যমেই ছাত্র ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে, অন্য কলেজের মেধাবী ছাত্রদের স্বার্থ যেমন সুরক্ষিত থাকছে, তেমনই মেদিনীপুর কলেজের মেধাবী ছাত্রদের স্বার্থও সুরক্ষিত থাকছে।”

যদিও বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে সরব হয়েছে একাধিক ছাত্র সংগঠন। উচ্চ শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, বছর কয়েক আগে স্নাতকোত্তরে ভর্তির ক্ষেত্রে বলা হয়েছিল, ৬০ শতাংশ আসনে নিজেদের পড়ুয়াদের ভর্তি নেওয়া যাবে। যদিও কী প্রক্রিয়ায় ভর্তি নেওয়া হবে সে সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি। একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরাও জানাচ্ছেন, এ ভাবে উচ্চ শিক্ষা সংসদে সিদ্ধান্ত হওয়ার আগেই প্রবেশিকা নিয়ে পড়ুয়াদের ভর্তি করার সিদ্ধান্ত আশ্বর্যের। যদিও বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য রঞ্জনবাবুর দাবি, ‘‘উচ্চ শিক্ষা সংসদের নিয়ম লঙ্ঘন করা হয়নি। এ ক্ষেত্রে ৬০ শতাংশ ও ৪০ শতাংশের আসন বিভাজনের ভিত্তিতেই পড়ুয়াদের প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়া হবে।’’



Tags:
Vidyasagar University University Vidyasagarবিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন

Advertisement