×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

জেলা নয়, নজরে টিম পিকের রিপোর্ট

প্রার্থী কারা! বাড়ছে কৌতূহল

নিজস্ব সংবাদদাতা 
তমলুক ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৭:০৮
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

ভোটের ডঙ্কা বেজেছে শুক্রবার। সেই দিনই জানা গিয়েছে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ। কিন্তু এই ভোটে বঙ্গের অন্যতম যুযুধান তৃণমূল-বিজেপি’র প্রার্থী কারা! নির্ঘণ্ট ঘোষণার পরেই তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে জোর চর্চা।

পূর্ব মেদিনীপুরে দু’দফায় ভোট রয়েছে আগামী ২৭ মার্চ এবং ১ এপ্রিল। ১৬টি বিধানসভা নিয়ে গঠিত এই জেলায় রয়েছে নন্দীগ্রামের মতো কেন্দ্র। শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরে যেখানে সভা করে প্রার্থী হওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বাভাবিক ভাবেই রূপনায়ারণ এবং হলদির তীরে অবস্থিত এই জেলায় নজর রয়েছে সকলেরই।

জেলা তৃণমূল সূত্রের খবর, এবার প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে জেলা কমিটি থেকে কোনও সুপারিশ নেওয়া হয়নি। কারা প্রার্থী হবেন, সে নিয়ে ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর (পিকে) দলের সমীক্ষা রিপোর্ট বেশি গুরুত্ব পেয়েছে। তবে ২০১১ সালের পর ফের তমলুক কেন্দ্রে প্রার্থী হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে মন্ত্রী তথা জেলা তৃণমূলের সভাপতি সৌমেন মহাপাত্রের। ২১০৬ সালে পশ্চিম মেদিনীপুরের পিংলা থেকে জেতা সৌমেন সেই মতো প্রস্তুতিও নিয়েছেন। অন্যদিকে, হলদিয়া, খেজুরি, উত্তর কাঁথি ও এগরা কেন্দ্রে প্রার্থীপদে নতুন মুখ আসার সম্ভবনা প্রবল। সৌমেন বলছেন, ‘‘প্রার্থী হিসেবে কাকে চান, তা নিয়ে স্থানীয় নেতৃত্বরা অনেকে আমাকে মেসেজ করে জানাচ্ছেন। তবে এবার প্রার্থী তালিকা নিয়ে জেলা কমিটি থেকে সুপারিশ করা হয়নি। এ নিয়ে রাজ্য নেতৃত্ব প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছেন। আগামী এক-দু’দিনের মধ্যে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হবে।’’

Advertisement

২০১১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে পূর্ব মেদিনীপুরের সবক’টি কেন্দ্রে তৃণমূল জয়ী হয়। ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটে তিনটিতে জিতেছিল বামফ্রন্ট। তবে ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে পূর্ব মেদিনীপুরে প্রধান বিরোধী শক্তি হিসাবে উঠে আসে বিজেপি। গত ডিসেম্বর তৃণমূল থেকে শুভেন্দু, বনশ্রী মাইতি এবং দুই বাম বিধায়ক অশোক দিন্দা ও তাপসী মণ্ডল বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এর পরেই শুভেন্দু মমতাকে নন্দীগ্রামে হারানোর চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছেন। এমন আবহে এই প্রথমবার পূর্ব মেদিনীপুরের কোনও ভোটে ‘অধিকারী পরিবারে’র বদলে থেকে ‘অখিল গিরির পরিবারের উপরে বেশি দায়িত্ব দিয়েছেন তৃণূমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

বিজেপি’র প্রার্থী তালিকা নিয়েও কৌতূহল রয়েছে। তালিকায় বিজেপি’র পুরনো নেতৃত্বের পাশাপাশি শুভেন্দু অনুগামীরা থাকেন কি না, তা নিয়ে আলোচনা চলছে। কারণ, শুভেন্দুর হাত ধরে জেলার তিন বিধায়ক বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তাঁরা ফের তাঁদের পুরনো কেন্দ্রে প্রার্থী থাকেন কি না, ত-ও দেখার। যদিও বিজেপি জেলা (তমলুক) সভাপতি নবারুণ নায়েক সাফ বলছেন, ‘‘সাংগঠনিক পদ্ধতি মেনে রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব চূড়ান্ত তালিকাপ্রকাশ করবেন।’’

Advertisement