Advertisement
০২ ডিসেম্বর ২০২২
TMCP

TMCP: পথেও অগোছালো শাসক

শুক্রবার পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন কলেজের সামনে প্রতিবাদ কর্মসূচি করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ (টিএমসিপি)।

গুটিকয়েক কর্মীকে নিয়ে বিক্ষোভ  জামবনির কলেজ গেটের বাইরে।

গুটিকয়েক কর্মীকে নিয়ে বিক্ষোভ জামবনির কলেজ গেটের বাইরে।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৩ অগস্ট ২০২২ ০৭:৫৮
Share: Save:

ইডি, সিবিআই-সহ কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলির নিরপেক্ষ তদন্তের দাবিতে এবার পথে নামল রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ও তার শাখা সংগঠন। তবে সেই ঝাঁঝ থাকল না।

Advertisement

শুক্রবার পশ্চিম মেদিনীপুরের বিভিন্ন কলেজের সামনে প্রতিবাদ কর্মসূচি করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ (টিএমসিপি)। মেদিনীপুর কলেজের সামনেও কর্মসূচি হয়েছে। তবে তেমন ভিড় ছিল না। নেতৃত্বের সাফাই, বৃষ্টির জন্য অনেকে আসতে পারেননি। এদিন চন্দ্রকোনা রোডেও প্রতিবাদ মিছিল ও পথসভা করে তারা। সেই কর্মসূচিও কিছুটা অগোছালো ছিল। টিএমসিপি-র পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তীর অবশ্য দাবি, ‘‘এদিন বেশিরভাগ কলেজের সামনেই প্রতিবাদ কর্মসূচি হয়েছে। অংশগ্রহণ ভালই ছিল।’’

এদিন ঝাড়গ্রামেও জেলাজুড়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে টিএমসিপি। তবে সেখানেও ছাত্র-ছাত্রীদের যোগদান সেভাবে ছিল না। কোনও বিক্ষোভ কর্মসূচিতেই জনা তিরিশের বেশি জমায়েত ছিল না বলেই খবর। দুপুরে ঝাড়গ্রাম শহরের কলেজ মোড় এলাকায় মিছিল করে তৃণমূলের ছাত্র সংগঠন। সেখানেও ছিল একই ছবি। জেলা টিএমসিপির এক নেতা বলছেন, ‘‘বৃহস্পতিবার রাত্রি সাড়ে ন’টার পরে বিক্ষোভ প্রদর্শনের নির্দেশ আসে। সেই জন্য বেশি সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী হাজির করানো সম্ভব হয়নি।’’ তাঁর আরও দাবি, ‘‘শুক্রবার রাখিবন্ধন হয়েছে বেশ কিছু জায়গায়। পাশাপাশি ছুটির মরসুম চলছে। তাই পড়ুয়াদের হাজিরা ছিল কম।’’ এই নিয়ে কটাক্ষ করে জেলা এসএফআইয়ের এক নেতার টিপ্পনি, ‘‘পড়ুয়ারা টাকা উদ্ধারের ঘটনা দেখেছেন। অনেকেই বেকারত্বের জ্বালায় ভুগছেন। তাই স্ব-ইচ্ছায় হাজির হচ্ছেন না তাঁরা।’’ জেলা টিএমসিপির সভাপতি আর্য ঘোষ অবশ্য বলেন, ‘‘দলীয় নির্দেশ মেনে জেলার প্রতিটি কলেজ গেটের বাইরে ও বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ-কর্মসূচি হয়েছে। কিছু কিছু জায়গায় মিছিলও হয়েছে। জেলাজুড়ে এই আন্দোলন প্রতিনিয়ত চলবে।’’ বৃষ্টির জন্য কিছু জায়গায় মিছিল সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন তিনি। আজ, শনিবার ঝাড়গ্রাম জেলায় যুব তৃণমূলের বিক্ষোভ কর্মসূচি হওয়ার কথা। পরিস্থিতি যে একেবারেই অনুকূলে নেই না মেনে জেলা যুব তৃণমূলের এক নেতা বলছেন, ‘‘ভেবেছিলাম এই পরিস্থিতিতে কর্মসূচি করব না। কিন্তু জনা দশেক লোক নিয়েও তা করতে বলা হয়েছে।’’

রাজনৈতিক প্রতিহিংসার অভিযোগ তুলে শুক্রবার কেশপুরেও অবস্থান-বিক্ষোভ কর্মসূচি করেছে তৃণমূল। দলের পশ্চিম মেদিনীপুরের কো- অর্ডিনেটর অজিত মাইতি, ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা সভাপতি আশিস হুতাইত, কেশপুর ব্লক সভাপতি উত্তম ত্রিপাঠী প্রমুখ ছিলেন সেখানে। ঘাটালের বরদা চৌকানেও অবস্থান বিক্ষোভ হয়। জানা গিয়েছে, ব্লকের কর্মসূচি হলেও তা সফল করতে ক’দিন ধরে বাড়তি সক্রিয় হতে হয়েছিল নেতৃত্বকে। তারপরেও মেরেকেটে কয়েকশো তৃণমূল কর্মী আসেন। সেখানেও তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কোঅর্ডিনেটর অজিত মাইতি, তৃণমূলের ঘাটাল সাংগাঠনিক জেলা সভাপতি আশিস হুতাইত ছিলেন। বিজেপিকে নিশানা করে অজিত দাবি করেন, “তোমাদের ইডি সিবিআই আছে। তাই তোমরা তৃণমূলকে হেয় করার চেষ্টা করছ। কিন্তু বাংলার মানুষ বুঝতে পেরেছে, এটা এক ধরনের চক্রান্ত।’’ আজ, শনিবার চন্দ্রকোনা রোড, গড়বেতা ১, গোয়ালতোড়ে অবস্থান বিক্ষোভ হবে বলে তৃণমূল সূত্রে খবর। পার্থ ও অনুব্রতের জোড়া গ্রেফতারির পরে গড়বেতার তিন ব্লকেও তৃণমূল কর্মীদের একাংশ হতাশ। তাঁরা প্রকাশ্যে সে কথা বলছেনও। এই অবস্থায় কর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত যোগদান কতটা হবে তা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন নেতৃত্ব। শুক্রবার নারায়ণগড়ের খালিনাতেও মিছিল করে তৃণমূল। সেখানে অবশ্য মহিলাদের ভিড় ছিল। হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিলে যোগ দেন তাঁরা।

Advertisement

শুক্রবার খড়্গপুর মহকুমার সর্বত্র তৃণমূলকে পথে নামতে দেখা যায়নি। কর্মসূচি হয়নি খড়্গপুর শহরেও। এই মহকুমার কয়েকটি ব্লকে ছাত্ররা পথে নামলেও যুব সংগঠনকে সেভাবে দেখা যায়নি। অনেক জায়গাতেই আজ, শনিবার প্রতিবাদ কর্মসূচি করার কথা জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। পিংলা ব্লকের মালিগ্রামে কলেজের বাইরে রাখিবন্ধনের সঙ্গেই প্রতিবাদ জুড়ে দেওয়া হয়। ডেবরা কলেজ গেটে বাইরেও কর্মসূচি হয়। তবে কোথাও ঝাঁঝ ছিল না বললেই চলে। ডেবরা ব্লক যুব তৃণমূল সভাপতি আশুতোষ মাইতি বলেন, “ছাত্ররা কলেজের সামনে এই কর্মসূচি পালন করেছে। আমরা রবিবার প্রতিবাদ কর্মসূচি করব ভেবেছি। আসলে আমি বাইরে থাকায় আয়োজন করা যায়নি’’

বৃহস্পতিবারের মতো এদিনও পথে নেমেছিল বিজেপি। এদিন ঘাটাল শহরে একজনকে নকল অনুব্রত সাজিয়ে, গরু স্টোন চিপস নিয়ে ঢাক পিটিয়ে মিছিল করে গেরুয়া শিবির। পথচলতিদের নকুল দানাও বিলি করা হয়। ছিলেন ঘাটালের বিজেপি বিধায়ক শীতল কপাট প্রমুখ। এদিন বিজেপির ঝাড়গ্রাম নগর মণ্ডলের উদ্যোগে হয় রাখিবন্ধন। নিজস্ব চিত্র

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.