Advertisement
০১ মার্চ ২০২৪
adhir chowdhury

বহরমপুরে কংগ্রেসের মিছিলে বাধা, পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়ালেন অধীর

সমবায়ে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে শুক্রবার দুপুরে বহরমপুরের পঞ্চাননতলা এলাকার ভাগীরথী দুগ্ধ সমবায় সমিতিতে স্বারকলিপি জমা দিতে যাচ্ছিলেন অধীরেরা।

পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি অধীর চৌধুরীর।

পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি অধীর চৌধুরীর। —নিজস্ব চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
বহরমপুর শেষ আপডেট: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১৮:০৪
Share: Save:

বহরমপুরে ভাগীরথী দুগ্ধ সমবায় সমিতিতে ঢুকতে গিয়ে বাধার মুখে পড়লেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। মিছিল করে সমবায় সমিতির অফিসে যাওয়ার সময় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়ালেন কংগ্রেস কর্মীরা। পুলিশের দাবি, ১৪৪ ধারা জারি থাকার কারণেই মিছিলে বাধা দেওয়া হয়েছিল।

সমবায়ে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে শুক্রবার দুপুরে বহরমপুরের পঞ্চাননতলা এলাকার ভাগীরথী দুগ্ধ সমবায় সমিতিতে স্বারকলিপি জমা দিতে যাচ্ছিলেন অধীরেরা। মিছিলে কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের পাশাপাশি স্থানীয় দুগ্ধ চাষিরাও ছিলেন। সেই মিছিল আটকে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এর পরেই পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে প়ড়তে দেখা যায় বিক্ষোভকারীদের। যদিও অধীরের নেতৃত্বে মিছিল শেষ পর্যন্ত সমবায়ের অফিসের সামনে পৌঁছে আসে। পরে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে থেকে পাঁচ জন অফিসে গিয়ে স্বারকলিপি জমা দিয়ে আসেন।

অধীরের অভিযোগ, পুলিশ বেআইনি ভাবে তাঁদের আটকেছে। জেলাশাসকও গোটা ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে। কংগ্রেস সাংসদের কথায়, ‘‘এখানে পুলিশ, জেলাশাসক কোনও নিয়ম মানে না। কেউ আইন জানে না। যা খুশি তাই হচ্ছে। এ ভাবে চলতে পারে না। দুগ্ধ চাষিদের সঙ্গে অন্যায় হচ্ছে। তারই প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন তাঁরা। তাঁদের উপর এ রকম আক্রমণ মেনে নেওয়া যায় না। চাষিদের পয়সায় গড়ে তোলা সমিতিতে যদি চাষিরা প্রবেশ করতে না পারেন, এর থেকে লজ্জার আর কিছু নেই। জেলাশাসক ও পুলিশ একটি দলের হয়ে কাজ করছে, যা নিন্দনীয়।’’

এ প্রসঙ্গে মুর্শিদাবাদের জেলা শাসক রাজর্ষি মিত্র বলেন, ‘‘সংরক্ষিত এলাকায় ওই ভাবে জমায়েত করা যায় না। আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করা হয়েছ।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE