Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

আসছেন নড্ডা, প্রস্তুতি রথযাত্রার

দেবাশিস বন্দ্যোপাধ্যায় 
নবদ্বীপ ৩১ জানুয়ারি ২০২১ ০৯:১২
এলেন না আমিত শাহ। হেলিপ্যাডের সামনে পুলিশকর্মীরা। শনিবার মায়াপুরে।  —নিজস্ব চিত্র

এলেন না আমিত শাহ। হেলিপ্যাডের সামনে পুলিশকর্মীরা। শনিবার মায়াপুরে। —নিজস্ব চিত্র

একেবারে শেষ মুহূর্তে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের মায়াপুর সফর বাতিল হয়ে গিয়েছে। সেই শনিবারই নবদ্বীপে শুরু হয়ে গেল বিজেপির আর এক হেভিওয়েট নেতা আসার প্রস্তুতি।
বিজেপি সূত্রের খবর, আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি নবদ্বীপে আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জগৎপ্রকাশ নড্ডা। এখান থেকেই তিনি সূচনা করবেন বিজেপির ‘পরিবর্তন যাত্রা’ কর্মসূচির। হবে প্রকাশ্য জনসভা। নড্ডার সবুজ সঙ্কেতে নবদ্বীপ শহর থেকে ওই দিনই ছুটতে শুরু করবে বিজেপির ‘পরিবর্তন রথ’।
শুক্রবার নয়াদিল্লিতে ইজরায়েল দূতাবাসের সামনে বিস্ফোরণের জেরে বঙ্গসফর বাতিল করে দেন শাহ। বেশি রাতে আচমকা আসা সেই খবরে তাল কেটে যায় গত কয়েক দিন ধরে মায়াপুরে শাহী সফরের বিপুল আয়োজনের। হতোদ্যম হয়ে পড়েন আয়োজকেরা। মায়াপুরের ইস্কন কর্তৃপক্ষ অবশ্য জানিয়েছেন, সফর বাতিলের খবরে মনখারাপ হলেও তাঁরা আশাবাদী ফের কোনও এক সময়ে অমিত শাহ নিশ্চয় আসবেন।
ইস্কনে অমিত শাহের সফর ‘অরাজনৈতিক’ বলে বিজেপির তরফ থেকে বারবার দাবি করা হলেও এ দিন তিনি না আসায় কিছুটা হলেও যে আশাভঙ্গ হয়েছে জেলা বিজেপির তা বলাই বাহুল্য। এই অবস্থায় শনিবার থেকেই কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়ল বিজেপি। কেননা অমিত শাহের উত্তরসূরি, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি নড্ডাও ধারে-ভারে নেহাত কম ওজনদার নয়।
এই উপলক্ষে এ দিন সাতসকালে নবদ্বীপে চলে আসেন বিজেপির উত্তর সাংগঠনিক জেলা নেতৃত্ব। তাঁদের প্রধান কাজ ছিল নড্ডার সভার জন্য মাঠ বাছা। তার আগে নবদ্বীপ বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির মুখ্য কার্যালয় নবদ্বীপ কলেজ মোড়ের বিধানসভা ভবনে এক প্রস্তুতি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেলা সভাপতি আশুতোষ পাল, সহ-সভাপতি গৌতম পাল, জেলার সাধারণ সম্পাদক অপর্ণা নন্দী, নবদ্বীপ বিধানসভা কেন্দ্রের দলীয় আহ্বায়ক কমল রায়, নবদ্বীপ শহর এবং গ্রামীণ সব মণ্ডলের সভাপতি এবং বিভিন্ন শাখা সংগঠনের প্রধানেরা। সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দীর্ঘ বৈঠকের পর তাঁরা নবদ্বীপের বিভিন্ন মাঠ পরিদর্শন করেন।
বিজেপির নদিয়া উত্তর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি আশুতোষ পাল বলেন, “৬ ফেব্রুয়ারি নবদ্বীপে আসছেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নড্ডা। বিধানসভা ভোটের আগে রাজ্য জুড়ে শুরু হচ্ছে পরিবর্তন যাত্রা। রাজ্যকে সাংগঠনিক ভাবে আমরা পাঁচটি জ়োনে ভাগ করেছি। তার মধ্যে একটি নবদ্বীপ জোন। প্রতিটি জ়োন থেকে একটি করে রথ বেরোবে। নবদ্বীপ জোন থেকে বেরোবে ‘চৈতন্যচেতনা রথ’। সেই রথযাত্রার সূচনা করবেন নড্ডাজি। তার আগে হবে জনসভা। গোটা জ়োন থেকে লোক আসবেন। তারই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল।”
এ দিন নবদ্বীপের বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখতে গিয়ে বিজেপির নদিয়া উত্তর সাংগঠনিক জেলার সহ-সভাপতি গৌতম পাল বলেন, “পরের শনিবারই আমাদের সর্বভারতীয় সভাপতির সভা হওয়ার কথা। তিনটি বিষয়ে আমরা নজর দিচ্ছি— এক, জে পি নড্ডার মতো হাই-প্রোফাইল নেতা। দুই, জনসভা এবং তিন, সেই সঙ্গে রথযাত্রার সূচনা। সব মিলিয়ে মানুষের উন্মাদনা চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছবে বলেই আমাদের অনুমান। তাই বড়সড় মাঠের খোঁজ করা হচ্ছে। বিরাট সংখ্যায় গাড়ি আসবে। তাই পার্কিংয়ের দিকটাও ভাবতে হচ্ছে।” এখনই চূড়ান্ত কিছু না জানালেও নড্ডার জনসভা এবং রথযাত্রার জন্য নবদ্বীপের চটির মাঠ বিজেপির প্রথম পছন্দ বলে জানা যাচ্ছে। এখানে একাধিক ফুটবল মাঠ পাশাপাশি থাকায় হেলিপ্যাড থেকে সভাস্থল সবই এক চৌহদ্দির মধ্যে করা সম্ভবপর।
বিজেপির সূত্রে জানানো হয়েছে, পরিবর্তন যাত্রায় নবদ্বীপ জ়োনের চৈতন্যচেতনা রথ ৬ ফেব্রুয়ারি নবদ্বীপ থেকে যাত্রা শুরু করে ১৮দিন বিভিন্ন স্থান পরিক্রমা করবে। বিজেপির নদিয়া উত্তর সাংগঠনিক জেলার নবদ্বীপ থেকে যাত্রা শুরু করে গোটা মুর্শিদাবাদ ঘুরে ফের নদিয়া দক্ষিণ হয়ে, বনগাঁ, বসিরহাট বারাসাত হয়ে ব্যারাকপুরে পৌঁছবে সেই রথ। ব্যারাকপুরে গঙ্গার ধারেই রথের যাত্রা সমাপ্ত হওয়ার কথা।
নবদ্বীপ থেকে ফিরে বিকেলেই বিজেপির জেলা এবং রাজ্য নেতারা ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে এক জায়গায় রথযাত্রা নিয়ে বৈঠকে বসেন। নবদ্বীপ জোনের পর্যবেক্ষক বিশ্বপ্রিয় রায় চৌধুরী সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
রথযাত্রার নদিয়া উত্তর সাংগঠনিক জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত নবীন চক্রবর্তী বলেন, “সোনার বাংলা গড়ার ডাক দিয়ে পাঁচটি জ়োন থেকে রথযাত্রা করা হবে বাংলা জুড়ে। নবদ্বীপ থেকে চৈতন্যদেব আন্দোলন শিখিয়ে ছিলেন বিশ্ববাসীকে, আমরা তাই নবদ্বীপকে বেছে নিয়েছি এবং রথের নামও চৈতন্যদেবের নামে রাখা হয়েছে।”

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement