Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

নদিয়ায় আরও তিনটি নতুন থানার প্রস্তাব

নিজস্ব সংবাদদাতা
কৃষ্ণনগর ২২ মে ২০১৫ ০০:৪৫

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির সুষ্ঠু নিয়ন্ত্রণ করতে নদিয়ায় আরও তিনটি নতুন থানা তৈরির প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এই মুহূর্তে জেলায় মোট থানার সংখ্যা ২১টি। কোতোয়ালি ও চাপড়া থানাকে ভেঙে ভীমপুর থানা, তেহট্ট থানাকে ভেঙে পলাশীপাড়া থানা ও নবদ্বীপ থানাকে ভেঙে নতুন মায়াপুর থানা তৈরির প্রস্তাব জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে রাজ্যের কাছে পাঠানো হয়েছে। আইনশৃঙ্খলার নিয়ন্ত্রণ, ভৌগলিক অবস্থান ও থানা থেকে বিভিন্ন এলাকার দূরত্বের কথা মাথায় রেখেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে দাবি প্রশাসনের।

অতিরিক্ত জেলাশাসক উৎপল ভদ্র বলেন, ‘‘জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে যে তিনটি নতুন থানা তৈরির প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে তার মধ্যে একমাত্র মায়াপুর থানার জন্য জেলাশাসকের কাছে মতামত জানতে চেয়েছে সংশ্লিষ্ট দফতর। জেলাশাসক এই থানার ক্ষেত্রে ইতিবাচক মতামতই দিয়েছেন। তবে পলাশীপাড়া ও ভীমপুর থানার জন্য এখনও পর্যন্ত জেলা শাসকের কাছে কোন মতামত জানতে চাওয়া হয়নি।’’ তবে জেলার পুলিশ কর্তাদের দাবি, যে তিনটি নতুন থানার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে, রাজ্য তার অনুমোদন দেবে।

Advertisement

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ১২টি গ্রাম প ঞ্চায়েত ও একটি পুরসভা নিয়ে কোতোয়ালি থানার বিরাট এলাকা। যার মধ্যে এমন বেশ কিছু এলাকা আছে যেগুলি থানা থেকে প্রায় ২৩ থেকে ২৪ কিলোমিটার দূরে। বর্ষাকালে ওই সব এলাকায় টহল দিতে বা অন্য কোনও প্রয়োজনে পুলিশ গাড়ি নিয়ে ঢুকতেই পারে না। ডিগ্রি, নিধিরপোতা, জলকর-মথুরাপুর-সহ একাধিক এলাকা বর্ষাকালে দুর্গম হয়ে পড়ে। আসাননগর, ভীমপুর ও পোড়াগাছা গ্রাম পঞ্চায়েতের বেশ কিছু প্রত্যন্ত এলাকা কোতোয়ালি থানার পুলিশের কাছে রীতিমতো মাথাব্যাথার কারণ। একই রকম সমস্যা হয় চাপড়া থানার মহেশপুর ও বাগবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বেশ কিছু এলাকা নিয়ে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, চাপড়া ও কোতোয়ালি থানার বেশ কিছু প্রত্যন্ত এলাকায় একসময় মাওবাদীরা প্রভাব বিস্তার করেছিল। ওই এলাকাগুলিতে ফের তাদের সক্রিয় হওয়ার সম্ভবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না জেলা গোয়েন্দা দফতরের একটি অংশ। অনেক সময় দুষ্কতীরা কোনও ঘটনা ঘটিয়ে প্রত্যন্ত ওই এলাকায় গা ঢাকা দেয়। এই সব কারণেই ভীমপুর থানার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে জানান জেলা পুলিশের এক কর্তা।

বিরাট বড় এলাকা সামলানো একা তেহট্ট থানার পুলিশের পক্ষেও সম্ভব হচ্ছিল না বলে তেহট্ট থানার একটি অংশ নিয়ে পলাশীপাড়া থানার প্রস্তাবও পাঠানো হয়েছে। তেহট্ট ১ ও ২ ব্লকের ১৮টি গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে তেহট্ট থানা এলাকা। মুর্শিদাবাদ জেলা সংলগ্ন এই থানায় দুষ্কৃতীদের যথেষ্ট দাপট আছে। তেহট্টের বেশ কিছু এলাকায় বেআইনি পোস্তো চাষ ও আফিমের ব্যবসা হয়। আবার এই থানার একটা বিরাট এলাকা সীমান্তঘেঁষা। সব দিক বিচার করে জেলা পুলিশের তরফে তেহট্ট ২ ব্লকের ৭ টি গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে পলাশীপাড়া থানা তৈরির প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

অন্য দিকে নবদ্বীপ থানার যে এলাকা ভাগীরথীর পূর্বপাড়ে সেই এলাকা নিয়ে আলাদা মায়াপুর থানা তৈরিরও প্রস্তাব পাঠান‌ো হয়েছে। নবদ্বীপ থানায় ৮টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা আছে। মায়াপুর-বামুনপুকুর ১ ও ২ গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে একটি পুলিশ ফাঁড়ি আছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে এই দুটি পঞ্চায়েত নিয়ে নতুন মায়াপুর থানা তৈরির প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নবদ্বীপ থানা ভাগীরথীর পশ্চিম পাড়ে হওয়ায় মায়াপুরে কোনও বড়সড় ঘটনা ঘটে গেলে নদী পার হয়ে আসতে অনেকটা সময় লেগে যায়। উৎসবের সময় দেশ বিদেশের মানুষের উপচে পড়া ভিড় সামাল দিতে গিয়েও পুলিশকে হিমসিম খেতে হয়। সেই কারণেই এমন প্রস্তাব।

জেলাশাসক পি বি সালিম বলেন, ‘‘সব দিক বিচার করে তিনটি নতুন থানা তৈরির প্রস্তাব রাজ্যের কাছে পাঠানো হয়েছে। আশা করছি আমরা তিনটি থানার অনুমোদন পেয়ে যাব।’’

আরও পড়ুন

Advertisement