Advertisement
২১ জুন ২০২৪
CPIML Liberation

বিজেপি-কে ভোট নয়, মিছিল থেকে দাবি উঠল কলকাতায়

অনিকেত বলেন, ‘‘কেন জানেন বিজেপি-কে ভোট দিতে বারণ করছি। কারণ এই দলটির মতো সাম্প্রদায়িক দল ভারতবর্ষে একটাও নেই। এই দলটাকে পিছন থেকে চালায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ। ’’

বিজেপি-কে ভোট না দেওয়ার দাবিতে মিছিল

বিজেপি-কে ভোট না দেওয়ার দাবিতে মিছিল নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১১ মার্চ ২০২১ ০১:০১
Share: Save:

‘নো ভোট ফর বিজেপি’। বিজেপি-কে ভোট নয়, জনগণের কাছে এই আর্জি জানিয়ে বুধবার মিছিল হল কলকাতায়। মিছিলে পা মেলালেন পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায়, সিপিআইএমএল (লিবারেশন)-এর সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর ভট্টাচার্য, মানবাধিকার কর্মী সুজাত ভদ্র-সহ বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা ২৫ জন কৃষক।


বেকারত্ব, মূল্যবৃদ্ধি, বেসরকারিকরণ, কৃষি আইন বাতিল-সহ একাধিক দাবিতে বুধবার কলকাতার রামলীলা ময়দান থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত দলীয় পতাকা ছাড়া একটি মিছিল হয়। মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের দাবি, বিজেপি দেশের জন্য বিপজ্জনক। বিজেপি-র আমলে দেশে কোনও কর্মসংস্থান হয়নি! বেকারত্বের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। কৃষক থেকে সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমেছেন। তাই পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন নির্বাচনে বিজেপি-কে ভোট নয়। জনগণের কাছে এই আর্জিই জানিয়েছেন তাঁরা। তবে বিজেপি ছাড়া অন্য যে-কোনও দলকে তাঁরা ভোট দেওয়ার কথা বলেছে। ফলে এই মিছিলের সঙ্গে লিবারেশনের মতের মিল খুঁজে পাওয়া গিয়েছে।


লিবারেশনের মতে, দেশের প্রধান শত্রু বিজেপি। বিজেপি-র ফ্যাসিবাদী আচরণ দেশের পক্ষে ক্ষতিকর। তাই সবার আগে বিজেপি-কে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে। তার জন্য বিজেপি বিরোধী যে কোনও দলকে ভোট দেওয়া যেতে পারে। বিজেপি-র বিরুদ্ধে লড়াই করে বিহার ভোটে সাফল্য পাওয়ার এই পদ্ধতিই বাংলায় কাজে লাগাতে চাইছে লিবারেশন। বুধবারের মিছিল শেষে ধর্মতলার সভায় দীপঙ্করের গলায় সেই কথারই পুনরাবৃত্তি শোনা গেল। পাশাপাশি সদ্য বিজেপি-তে যোগ দেওয়া মিঠুন চক্রবর্তীকে নাম না করে আক্রমণ তিনি। বলেন, ‘‘একজন প্রাক্তন অভিনেতা বিজেপি-তে যোগ দিয়ে বলছেন এক ছোবলেই ছবি। ঠিকই বলেছেন! বিজেপি-র সঙ্গে নিজেকে মেলাতে পেরেছেন। বিজেপি যেভাবে ফ্যাসিবাদী মনোভাব নিয়ে চলে এটি সেই কথারই প্রতিফলন।’’


আবার অনিকেত বলেন, ‘‘কেন জানেন বিজেপি-কে ভোট দিতে বারণ করছি। কারণ এই দলটির মতো সাম্প্রদায়িক দল ভারতবর্ষে একটাও নেই। এই দলটাকে পিছন থেকে চালায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ। যার কথাতে এই দলটি উঠে বসে। তাই সাম্প্রদায়িক শক্তিকে আগে তাড়াতে হবে।’’ দীপঙ্কর ও অনিকেতের সুরে বিজেপি-কে ভোট না দেওয়ার কথা বলেন সুজাত-ও। এ ছাড়া বুধবারের মিছিলে পঞ্জাব, হরিয়াণা, রাজস্থান ও ওড়িশা থেকে ২৫ ন কৃষক মিছিলে অংশ নেন। তাঁরা জানান, কৃষি বিরোধী আইন শুধু কৃষক নয়, সাধারণ মানুষের জন্যও ক্ষতিকারক। তাই এ সরকারকে বাতিল করতে হবে। পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে বলব এই সরকারকে ভোট দেবেন না। শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয় যেখানে যেখানে ভোট রয়েছে সব জায়গায় যাব মানুষকে বিজেপি-র বিরুদ্ধে ভোট দিতে বলব।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE