Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

৩০ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিজেপি নেতার গালে চড় নেত্রীর

নিজস্ব সংবাদদাতা
বালুরঘাট ০১ নভেম্বর ২০১৭ ০২:০৫
বিতর্কে: বিজেপির দুই নেতা শুভেন্দুবাবু (উপরে) ও মৌসুমীদেবী। নিজস্ব চিত্র

বিতর্কে: বিজেপির দুই নেতা শুভেন্দুবাবু (উপরে) ও মৌসুমীদেবী। নিজস্ব চিত্র

দলেরই মহিলা নেত্রীর হাতে চড় খেলেন দক্ষিণ দিনাজপুর বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার। সোমবার রাতে এমনই অভিযোগ উঠেছে গঙ্গারামপুরের সদর বুনিয়াদপুরে। সেই নেত্রী সে কথা স্বীকারও করেছেন।

দলের টাউন মণ্ডলের কর্মী বৈঠক চলাকালীন ওই ঘটনায় বিজেপি মহলে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। বিষয়টি বিজেপির রাজ্য কমিটিকে জানানো হচ্ছে বলে দল সূত্রে জানা গিয়েছে।

সাম্প্রতিক বুনিয়াদপুর পুরভোটে বিরোধী শাসক দলের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দলীয় প্রার্থীদের বিপদে ফেলার অভিযোগ ওঠে শুভেন্দুবাবুর বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগ তুলে সরব হন বৈঠকে উপস্থিত বিজেপির জেলা সহ সভাপতি মৌসুমী মজুমদার। তিনি বুনিয়াদপুর পুরসভা ভোটে ২ নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থীও ছিলেন। অভিযোগ নিয়ে দলীয় কর্মীদের সামনে বিজেপির ওই দুই জেলা নেতার মুখোমুখি তর্ক শুরু হয়। বিজেপি জেলা সভাপতি শুভেন্দুবাবু দলীয় নেত্রী মৌসুমীদেবীর প্রতি অশালীন ইঙ্গিত করে তাঁর মোবাইল কেড়ে নিতে যান বলেও অভিযোগ ওঠে। সে সময় শুভেন্দুবাবুর জামার কলার ধরে মৌসুমীদেবী তাঁর গালে দুই চড় কষিয়ে দেন বলে অভিযোগ।

Advertisement

এ দিন ঘটনার কথা প্রথমে অস্বীকার করলেও পরক্ষণেই বিজেপি জেলা সভাপতি শুভেন্দুবাবু বলেন, ‘‘ব্যক্তিগত ক্ষোভ বিক্ষোভ থেকে এমন ঘটনা হয়েছে।’’ বিষয়টি তেমন কিছুই নয় বলে দাবি করে শুভেন্দুবাবুর মন্তব্য, দলীয় শৃঙ্খলার উপরে কেউ নন। দলের মহিলানেত্রীর ওই আচরণে দল বিরোধী কাজের অভিযোগ তুলে ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছন জেলা সভাপতি শুভেন্দুবাবু।

বিজেপির জেলা সহ সভাপতি মৌসুমীদেবী অভিযোগ করেন, ‘‘কর্মী বৈঠকে জেলা সভাপতিকে কাছে পেয়ে কিছু প্রশ্ন করতে চেয়ে বার বার আবেদন করলেও উপস্থিত নেতৃবৃন্দ এড়িয়ে যাচ্ছিলেন। পরে জেলা সভাপতির সঙ্গে একান্তে কথা বলতে পরামর্শ দেন তাঁরা।’’ তাঁর অভিযোগ, ‘‘আমি তারপরে উঠে দাঁড়িয়ে বুনিয়াদপুর পুরভোট নিয়ে কর্মীদের মনে ওঠা প্রশ্ন কেন শুনবেন না, বলে জিজ্ঞাসা করলে তিনি উত্তর দিতে চাননি। পাল্টা অভিযোগ করেন, কেন বার বার আমার মোবাইলে ফোন আসছে?’’ মৌসুমীদেবীর দাবি, ‘‘অশালীন ইঙ্গিত করে শুভেন্দুবাবু ফোনটি কেড়ে নিতে উদ্যত হন।’’ মৌসুমীদেবীর দাবি, ‘‘ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে শুভেন্দুবাবু কটূক্তি করে মোবাইল কেড়ে কল লিস্ট দেখতে উদ্যত হলে নিজেকে ঠিক রাখতে পারিনি। তাঁর কলার চেপে গালে চড় মারতে বাধ্য হই।’’

বুনিয়াদপুরের ওই কর্মী বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির এ জেলার পর্যবেক্ষক সঞ্জিত মিশ্র। তিনি বলেন, ‘‘ব্যক্তিগত বিদ্বেষ থেকে নেত্রী মৌসুমীদেবী জেলা সভাপতি শুভেন্দুবাবুর সঙ্গে ওই আচরণ করেন। পরে অবশ্য তিনি আমাকে ফোন করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তবে দলীয় শৃঙ্খলার উপরে কেউ নন। জেলা সভাপতি চাইলে নেত্রীর ওই আচরণের বিরুদ্ধে দলের তরফে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’



Tags:
BJP Suvendu Sarkar BjP Leaderদক্ষিণ দিনাজপুর

আরও পড়ুন

Advertisement