Advertisement
০৯ ডিসেম্বর ২০২২
Adventure Tourism

Adventure tourism: পযর্টন নীতিতে নতুন ভাবনাচিন্তা, অ্যাডভেঞ্চার টুরিজম নিয়ে বৈঠক

অ্যাডভেঞ্চার টুরিজ়ম কমিটির চেয়ারম্যান হয়েছেন কিংবদন্তি তেনজিং নোরগের ছেলে জামলিং তেনজিং।

কৌশিক চৌধুরী
শিলিগুড়ি শেষ আপডেট: ১৩ অগস্ট ২০২২ ০৭:৩৮
Share: Save:

টি-টুরিজ়ম থেকে হোম-স্টে— নানা ধরনের পর্যটনের নীতির পরে, এ বার রাজ্য সরকার আনতে চলেছে ‘অ্যাডভেঞ্চার টুরিজ়ম পলিসি’। শুক্রবার দুপুরে দার্জিলিঙে অ্যাডভেঞ্চার টুরিজ়ম নিয়ে রাজ্য সরকারের প্রথম টাস্ক ফোর্সের আওতাধীন কমিটির বৈঠক হল। প্রশাসন সূত্রের খবর, ২০১১ সালের পর থেকে পর্যটন দফতর রাজ্যের নানা পর্যটন নীতি তৈরি করেছে। অ্যাডভেঞ্চার টুরিজমের জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকায় এ বার সরকারি ভাবে এর নীতি-নিয়মাবলি তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেল।

Advertisement

এ দিনের বৈঠকে পর্যটন দফতরের তৈরি ১৮ পাতার খসড়া নীতি নিয়ে আলোচনা হয়। তা নিয়ে কমিটির সদস্যেরা আগামী ১০ দিনের মধ্যে তাঁদের লিখিত মতামত ও প্রস্তাব জানাবেন। তা দেখে, ফের আলোচনা করে সরকারের কাছে নীতির খসড়া, প্রস্তাব, পরিকল্পনা জমা করা হবে। সেগুলি মন্ত্রিসভার অনুমোদন পেলে, পর্যটন দফতর ধাপে ধাপে কাজ শুরু করে দেবে। দার্জিলিঙের জেলাশাসক এস পুন্নমবলম বলেন, ‘‘পাহাড়ে অ্যাডভেঞ্চার টুরিজ়মের চাহিদা রয়েছে। সরকার চাইছে, বাকি সব পর্যটন নীতির মতোই এ বিষয়ে সুসংহত ভাবে কাজ করতে। সে কাজই শুরু হল।’’ একই দাবি করেছেন বৈঠকে থাকা কালিম্পঙের জেলাশাসক আর বিমলাও।

গোটা বিষয়টিকে শুধু কলকাতা-নির্ভর না রেখে, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন স্তরের প্রতিনিধিদের নিয়ে রাজ্য পর্যটন দফতরের টাস্ক ফোর্সের আওতায় কমিটিগুলি তৈরি হয় সম্প্রতি। গত ১ অগস্ট রাজ্যের মুখ্য সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী সরকারি ভাবে এর নির্দেশিকা জারি করেন। তাতে রুরাল ও টি-টুরিজ়ম, হেরিটেজ ও কালচারাল টুরিজ়ম, ইকোটুরিজ়ম, রিভার টুরিজ়ম, অ্যাডভেঞ্চার টুরিজ়মের পরামর্শদাতা কমিটি তৈরি হয়েছে। অ্যাডভেঞ্চার টুরিজ়ম কমিটির চেয়ারম্যান হয়েছেন কিংবদন্তি তেনজিং নোরগের ছেলে জামলিং তেনজিং। তিনি এভারেস্টজয়ী পর্বতারোহী। তিনি ছাড়া, দার্জিলিং ও কালিম্পং জেলার জেলাশাসক, পুলিশ সুপার, ‘হিমালয়ান হসপিটালিটি অ্যান্ড টুরিজ়ম ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্ক’-এর সচিব সম্রাট সান্যাল, ‘ফেথ’ প্রতিনি‌ধি দেবজিৎ দত্ত, অনিল পঞ্জাবি, অ্যাডভেঞ্চার টুর অপারেটর সাঙে শেরপাকে নিয়ে ১৪ জনের কমিটি রয়েছে। প্রতিনিধিরা জানান, রাজ্যের পাহাড় ও সমুদ্র ঘিরে প্যারাগ্লাইডিং, রক ক্লাইম্বিং, রিভার রাফ্টিং, বাইকিং করে থাকেন পর্যটকেরা। স্থানীয় মানুষজনও তাতে যোগ দেন। কিন্তু সবই অপরিকল্পিত ভাবে চলছে। পরিকাঠামো, লাইসেন্স, গুণমান-সম্পন্ন সরঞ্জাম ছাড়াও, সরকারি নজরদারির প্রয়োজন রয়েছে। কালিম্পং থেকে দিঘা— একাধিক জায়গায় দুর্ঘটনার মতো বিষয়ও সামনে এসেছে। তাই রাজ্য সরকার চাইছে, জনপ্রিয় এই পর্যটনের শাখাকে নির্দিষ্ট ঘেরাটোপের মধ্যে আনতে। এরই প্রথম পদক্ষেপ আলাদা পর্যটন নীতি তৈরি, যার কাজ এ দিন থেকেই কার্যত শুরু হয়ে গেল।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.