Advertisement
১০ ডিসেম্বর ২০২২
harishchandrapur

Tajmul Hossain: ২১ বছর পরে হরিশ্চন্দ্রপুর থেকে ফের মন্ত্রী, উচ্ছ্বাস

২০০৬ সালে হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভা আসনে তিনি ফরওয়ার্ড ব্লকের প্রার্থী হয়ে জয়ী হন। ২০১১ সালেও ওই দলেরই বিধায়ক হন তিনি।

তজমুল হোসেন।

তজমুল হোসেন। — ফাইল চিত্র।

জয়ন্ত সেন 
মালদহ শেষ আপডেট: ০৪ অগস্ট ২০২২ ০৭:৪৯
Share: Save:

সাবিনা ইয়াসমিনের পরে, মালদহ জেলায় আরও এক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন হরিশ্চন্দ্রপুরের তৃণমূল বিধায়ক তজমুল হোসেন। বুধবার বিকেলে নতুন মন্ত্রিসভায় তিনি শপথ গ্রহণ করেন। তাঁকে ক্ষুদ্র, মাঝারি উদ্যোগ ও বস্ত্র দফতরের দায়িত্ব করা হয়েছে। এর আগে, বাম আমলে হরিশ্চন্দ্রপুর থেকে মন্ত্রী হয়েছিলেন ফরওয়ার্ড ব্লকের বিধায়ক বীরেন্দ্রকুমার মৈত্র। প্রায় ২১ বছর পরে সে বীরেন্দ্ররই এক সময়ের ছায়াসঙ্গী তজমুল মন্ত্রী হলেন। ফলে, এ দিন বিকেলে তজমুল শপথ নিতেই উৎসবে মাতলেন হরিশ্চন্দ্রপুরের তৃণমূল নেতা-কর্মীরা। বিকেলে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে, আবির খেলে এলাকায় কার্যত বিজয় মিছিল বেরোয়। আনন্দে মিষ্টিমুখ করেন দলীয় কর্মী-সমর্থকেরা।

Advertisement

জানা গিয়েছে, তজমুলের রাজনৈতিক জীবন শুরু সিপিএমের হাত ধরে। হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ব্লকের মহেন্দ্রপুর পঞ্চায়েতের বাংরুয়া বুথ থেকে পাঁচ বার তিনি পঞ্চায়েত ভোটে লড়াই করেন। কিন্তু প্রতি বারই তৎকালীন কংগ্রেস প্রার্থী আব্দুর রব্বানির কাছে পরাজিত হন। তবে হাল ছাড়েননি। ২০০৩ সালে পঞ্চায়েতের ওই আসন সংরক্ষিত হয়ে গেলে, তিনি বীরেন মৈত্রের হাত ধরে ফরওয়ার্ড ব্লকে যোগ দিয়ে পঞ্চায়েত সমিতি আসনে দাঁড়িয়ে সেই রব্বানিকেই হারিয়ে দেন। তার পরে, আর রাজনৈতিক জীবনে তাঁকে ফিরে তাকাতে হয়নি।

২০০৬ সালে হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভা আসনে তিনি ফরওয়ার্ড ব্লকের প্রার্থী হয়ে জয়ী হন। ২০১১ সালেও ওই দলেরই বিধায়ক হন তিনি। তবে ২০১৫ সালের ১২ ডিসেম্বর তৎকালীন তৃণমূলের মালদহ জেলার পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে হরিশ্চন্দ্রপুর লাইব্রেরির মাঠে এক সভায় তিনি তৃণমূলে যোগ দেন। ২০১৬ সালে তৃণমূলের টিকিট পেলেও, হরিশ্চন্দ্রপুর আসনে তিনি কংগ্রেস প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। ২০২১ সালে ফের তিনি বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে বিধায়ক হন। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই এ বার তৃণমূলের মন্ত্রিসভায় ক্ষুদ্র, মাঝারি উদ্যোগ ও বস্ত্র দফতরের প্রতিমন্ত্রী হলেন তজমুল। এর আগে অবশ্য ক্ষুদ্র, মাঝারি উদ্যোগ ও বস্ত্র উন্নয়ন নিগমের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন তিনি।

তজমুল বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী আমার উপরে ভরসা রেখেছেন। সে জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। মুখ্যমন্ত্রীর এই ভরসাকে মর্যাদা দিয়েই জেলার পাশাপাশি, রাজ্যের উন্নয়নে কাজ করব।’’ এ দিকে প্রায় ২১ বছর পরে ফের উত্তর মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থেকে তজমুল প্রতিমন্ত্রী হওয়ায় খুশির হাওয়া এলাকা জুড়ে। এ দিন বিকেলে তজমুল শপথ নিতেই হরিশ্চন্দ্রপুরের তৃণমূল কার্যালয় থেকে একটি মিছিল বেরোয়। তজমুলের অনুগামী ও দলীয় কর্মী-সমর্থকেরা আবির খেলায় মাতেন। সাউন্ড বক্স বাজিয়ে চলে নাচ-গান।

Advertisement

জেলা তৃণমূল সভাপতি আব্দুর রহিম বক্সী বলেন, ‘‘সাবিনা ইয়াসমিনের পরে, জেলা থেকে তজমুল প্রতিমন্ত্রী হওয়ায় উন্নয়নে আরও গতি আসবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.