×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৮ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

স্কুলের জায়গা জবরদখল, ক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা
ওন্দা ১৬ জুন ২০১৫ ০১:১১
পুলিশের উপস্থিতিতে খোলা হচ্ছে স্কুলগেটের তালা। — নিজস্ব চিত্র।

পুলিশের উপস্থিতিতে খোলা হচ্ছে স্কুলগেটের তালা। — নিজস্ব চিত্র।

স্কুলের জায়গা দখল করে ঘর তৈরি করা হচ্ছে। অথচ স্কুল কর্তৃপক্ষ জবরদখল আটকাতে কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এমনই অভিযোগ তুলে স্কুল খোলার আগে গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখালেন স্থানীয় কিছু বাসিন্দা ও দোকানদার। বাঁকুড়ার ওন্দা ব্লকের ভোলা হিরাপুর নেতাজী সুভাষ হাইস্কুলে সোমবারের ঘটনা। এ দিন সকাল ১০টা থেকে ঘণ্টা খানেকের বেশি সময় ধরে এই স্কুলের গেট তালাবন্ধ করে রাখেন বিক্ষোভকারীরা। ফলে স্কুলে এসেও গেটের বাইরে বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে হয় ছাত্রছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষাকর্মী-সহ সকলকে। পরে সাড়ে ১১টা নাগাদ পুলিশ এসে স্থানীয় বাসিন্দা তথা আন্দোলনকারীদের বোঝানোর পরে তালা খোলা হয়। ছাত্রছাত্রী থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকা সকলেই স্কুলে ঢোকেন। পরে যথারীতি ক্লাস হয়।

নেতাজী হাইস্কুলে বর্তমানে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা প্রায় দেড় হাজার। স্কুলে প্রধানশিক্ষক, সহ-শিক্ষক শিক্ষিকা, পার্শ্ব শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষাকর্মী মিলিয়ে ৩৬ জন রয়েছেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের বক্তব্য, প্রায় দশ বছর আগে স্কুলের গা ঘেঁষে কয়েকটি দোকান করেছিলেন এলাকার কিছু বেকার যুবক। স্কুল কর্তৃপক্ষ সেই সময় সব দোকান তুলে দিয়েছিল। এলাকার বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ, সম্প্রতি স্কুলের জায়গা ফের জবরদখল হতে বসেছে। স্কুলের জায়গা দখল করেই কেউ কেউ বাড়ি তৈরি শুরু করেছেন। কিন্তু চোখের সামনে এ সব দেখেও স্কুল কর্তৃপক্ষ বাধা দেননি। কোনও ব্যবস্থাও নেননি। স্থানীয় বাসিন্দা বিশ্বনাথ ঘোষ, বরুণ মণ্ডলদের অভিযোগ, “দশ বছর আগে স্কুলের পাশের জায়গায় থাকা দোকানকেও তুলে দেওয়া হয়েছে। এখন স্কুলের জায়গা দখল করে সকলের চোখের সামনে বাড়ি তৈরি করা হচ্ছে। অথচ প্রধান শিক্ষক তা বন্ধ করতে উদ্যোগী হননি।’’ তাঁদের দাবি, এই অনৈতিক কাজের প্রতিবাদেই এ দিন স্কুলের গেটে তালা ঝোলানো হয়েছিল। স্কুল কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে আলোচনায় বসা হবে বলে আশ্বাস দেওয়ার পরে তালা খুলে দেওয়া হয়েছে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক তরুণ চক্রবর্তী বলেন, “এ দিন হঠাৎই কিছু মানুষ স্কুলের গেটে তালা দেন। স্কুলের জায়গা দখল করে বাড়ি তৈরির ব্যাপারে আমার কাছে কেউ কোনও লিখিত অভিযোগ করেননি। তাঁদেরকে লিখিত ভাবে বিষয়টি জানানোর জন্য বলেছিলাম। কিন্তু তার আগেই ওঁরা গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন। এতে সকলের অসুবিধা হয়েছে।’’ প্রধান শিক্ষক দাবি করেন, কাল, বুধবারই বিষয়টি নিয়ে সকলের সঙ্গে বসে আলোচনা করা হবে। আপাতত সমস্যা মিটে গিয়েছে।

Advertisement
Advertisement