Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

TMC: কেষ্টর গড়ে বিজেপি কর্মীদের ‘ভাইরাসমুক্ত’ করতে স্যানিটাইজার ছিটিয়ে দলে নিল তৃণমূল

নিজস্ব সংবাদদাতা
বোলপুর ২৪ জুন ২০২১ ১৪:২৭
স্যানিটাইজার ছিটিয়ে দলে নেওয়া হচ্ছে।

স্যানিটাইজার ছিটিয়ে দলে নেওয়া হচ্ছে।
—নিজস্ব চিত্র।

লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন বিজেপি কর্মীরা। একে একে তাঁরা যোগ দেবেন তৃণমূলে। সেই দলবদলের আগেই বিজেপি কর্মীদের ‘ভাইরাস মুক্ত’ করতে স্যানিটাইজার ছিটিয়ে ‘শুদ্ধ’ করছেন তৃণমূল কর্মীরা। অনুব্রত মণ্ডলের গড় বীরভূমের ইলামবাজারে বৃহস্পতিবার এ ভাবেই শাসকদলে নেওয়া হল বিজেপি কর্মীদের। এর আগে এই জেলারই লাভপুরে বিজেপি কর্মীদের একাংশ টোটো করে এলাকা ঘুরে প্রচার করেছিলেন— বিজেপি করে অন্যায় করেছেন। এ বার তৃণমূলে ফিরতে চান। তাঁদের ফেরানোও হয়েছিল। এর পর রাজ্যের কোথাও বিজেপি কর্মীদের গঙ্গা জল দিয়ে ‘শুদ্ধ’ করে তৃণমূলে ফেরানো হয়েছে। কোথাও আবার বিজেপি কর্মীকে মাথা মুড়িয়ে ‘প্রায়শ্চিত্ত’ করিয়ে দলে নেয় তৃণমূল। এ বার দলে নেওয়া হল স্যানিটাইজার ছিটিয়ে, ‘ভাইরাস মুক্ত’ করে।

বোলপুর বিধানসভা এলাকার ইলামবাজার এলাকায় দেবীপুরে বিজেপি-র ১৫০ কর্মী বৃহস্পতিবার গেরুয়া শিবির ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেন। সেই অনুষ্ঠানের জন্য করোনা বিধিনিষেধের তোয়াক্কা না করেই মঞ্চ বেঁধে শুরু করা হয় যোগদান অনুষ্ঠান। এই যোগদান কর্মসূচিতে বেশির ভাগই বিজেপি-র মহিলা মোর্চার সদস্য ছিলেন। সেখানে একটি যন্ত্র দিয়ে স্যানিটাইজার ছিটিয়ে দেওয়ার পর যোগদানকারীদের তৃণমূলে নেওয়া হয়। এ বিষয়ে ইলামবাজার তৃণমূলে নেতা দুলাল রায় বলেন, ‘‘যাঁরা বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন, তাঁদের মধ্যে ভাইরাস ছিল। তাই দলে নেওয়ার আগে ওঁদের ভাইরাস মুক্ত করার লক্ষ্যে স্যানিটাইজ করা হল। এর পরেই ওই বিজেপি কর্মীদের দলে নেওয়া হয়েছে।’’

Advertisement


এই ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বোলপুর বিজেপি-র নেতা দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘‘তৃণমূল সবচেয়ে বড় ভাইরাস। জেলা জুড়ে যে অরাজকতা সৃষ্টি করছে ওরা, এ ঘটনাই তার প্রমাণ। বিজেপি-র সাধারণ কর্মীরা নিজেদের রক্ষা করতে তৃণমূলে যাচ্ছেন। কারণ একটাই, তাঁদের উপর নির্মম অত্যাচার চলছে।’’

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement