×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

এলাকায় বোমাবাজি, জানে না পুলিশই

নিজস্ব সংবাদদাতা
রামপুরহাট ২৮ মার্চ ২০১৬ ০১:০৯

ভোটের বাজারে এলাকায় বোমাবাজি করে চলে যাচ্ছে দুষ্কৃতীরা। আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা। অথচ কয়েক ঘণ্টা পরেও ঘটনার খবরই জানে না পুলিশ-প্রশাসন!

রবিবার রামপুরহাটের বগটুই এলাকার ঘটনা। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, এ দিন দুপুরে বগটুই পূর্বপাড়া লাগোয়া ইদগাহার মাঠে, চন্দনকুন্ঠা যাওয়ার রাস্তায় আচমকা একসঙ্গে ২০-২৫টি বোমা ফাটে। শহরের অনেকেই সেই আওয়াজে কেঁপে ওঠেন। অথচ সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ দাবি করে, এ রকম কোনও ঘটনার খবর তাদের জানা নেই। ঠিক কোন জায়গায় বোমা ফেটেছে, কারা এই বোমা ফাটানোর কাণ্ডে যুক্ত, তার খোঁজও দিতে পারেনি পুলিশ। ঘটনা নিয়ে জিজ্ঞাসা করতেই এসডিও (রামপুরহাট) সুপ্রিয় দাস বলেন, ‘‘জানা নেই। এসডিপিও-র সঙ্গে যোগাযোগ করছি।’’ এসডিপিও কমল বৈরাগ্য আবার জানান, ঘটনার কথা তাঁর জানা নেই। থানায় খোঁজ নিয়ে জানাবেন। রামপুরহাট থানার সদ্য দায়িত্বপ্রপ্ত আইসি স্বপন ভৌমিক পরে জানান, ঘটনার খোঁজ খবর করতে বগটুই গ্রামে দু’গাড়ি পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তারা এখনও ফেরেননি। আর এক গাড়ি পুলিশ দখলবাটির দিকে পাঠানো হয়েছে। তারাও ফেরেনি।

এ দিকে, স্থানীয় ভীত সন্ত্রস্ত বাসিন্দারা জানান, যে এলাকায় বোমা ফাটানোর আওয়াজ পাওয়া গিয়েছে, সেই এলাকা থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরেই পাঁচ দিন আগে একটি পুলিশ ক্যাম্প হয়েছে। যেখানে সর্বদা পুলিশ মোতায়েন আছে। আবার যেখানে বোমাবাজি হয়েছে, সেখানে দিন কয়েক আগেই বোমা তৈরির মশলা পাওয়া গিয়েছিল। যা নষ্ট করার জন্য এলাকার একটি পুকুরে ফেলে দিয়েছিল পুলিশ। সেই মশলা কুড়িয়ে তা শুকিয়ে খেলা করার সময়ে তা ফেটে এলাকার এক কিশোর জখমও হয়েছিল। এ দিনের বোমাবাজিটি তারই কাছাকাছি এলাকায় হয়েছে বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি। তাঁদের কথায়, ‘‘যে ভাবে দুষ্কৃতীরা দিনের আলোয় বোমাবাজি করে চলে যাচ্ছে, তাতে আমরা আতঙ্কিত। পুলিশ-প্রশাসনের উদাসীনতা আমাদের ভয় আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।’’

Advertisement
Advertisement