Advertisement
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Bridge

নির্মাণ শেষে হড়পা বানে ভেঙে পড়ার পর থেকে সেতু-সঙ্কটে বাঘমুন্ডি, সেতুর আশ্বাস প্রশাসনের

কৃষিপণ্য বিক্রি করতে গ্রামবাসীদের যেতে হয় ওই পথ ধরে। বর্ষার সময় ঘুরে যেতে হয় প্রায় দশ-বারো কিলোমিটার পথ। ঢোকে না অ্যাম্বুল্যান্স। দোলায় করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয় রোগীদের।

হড়পা বানে ভেসে যায় নতুন সেতু, তার পর থেকে ভোগান্তি মানুষের।

হড়পা বানে ভেসে যায় নতুন সেতু, তার পর থেকে ভোগান্তি মানুষের। — নিজস্ব ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
বাঘমুন্ডি শেষ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ১৫:২১
Share: Save:

পুরুলিয়ার বাঘমুন্ডি ব্লকের তুন্তুরী সুইসা অঞ্চলের শালডাবরা সেতু। নির্মাণের পর বছরও ঘোরেনি, ভেঙে পড়েছে সেই সেতু। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, গত বছর তৈরি হওয়ার এক মাসের মধ্যে বর্ষায় হঠাৎ হড়পা বানে ভেসে যায় সেতুটি। তুন্তুরী সুইসা অঞ্চলের আটটি গ্রামের বাসিন্দারা ছাড়াও ঝালদা-১ ব্লকের কয়েকটি গ্রাম ও ঝাড়খণ্ডের বহু মানুষ বর্ষার সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করেন শালডাবরা নদী।

গ্রামবাসীদের তুন্তুরী সুইসা গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে হাসপাতাল, কলেজ, স্কুল, স্টেশন যেতে হয় ওই পথ দিয়েই। গ্রামের সাধারণ মানুষের জীবিকা নির্ভর করে কৃষিকাজের উপর। উৎপাদিত কৃষিপণ্য বিক্রি করতে গ্রামবাসীদের যেতে হয় ওই পথ ধরেই। বর্ষার সময় নদীতে জল থাকলে ঘুরে যেতে হয় প্রায় দশ-বারো কিলোমিটার পথ। গ্রামে ঢোকে না অ্যাম্বুল্যান্স। দোলায় করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয় মরণাপন্ন রোগীদের। ভোট আসে ভোট যায়। শুধু প্রতিশ্রুতি মেলে, কাজের কাজ কিছুই হয় না। গ্রামবাসীদের আবেদন, সেতুর কাজ যেন যুদ্ধকালীন তৎপরতায় করে ফেলা হয়। প্রশাসন অবশ্য আবেদনে সাড়া দিয়েছে। নতুন করে সেতুর কাজের জন্য বরাত দেওয়া হয়েছে।

ওই গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যের স্বামী মনভুল গোপ জানান, ওই সেতু নির্মাণের পর এক মাসের মধ্যে হড়পা বানে ভেঙে যায়। চরম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষকে। তিনি এ বিষয়ে বিধায়ক থেকে শুরু করে জেলা পরিষদের অচিরাচরিত ক্ষুদ্র শিল্প ও বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষকে জানিয়েছেন বলেও দাবি করেছেন। জেলা পরিষদের অচিরাচরিত ক্ষুদ্র শিল্প ও বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ নমিতা সিংহ মুড়া বলেন, ‘‘টেন্ডার হয়ে গিয়েছে। খুব দ্রুত কাজ শুরু হবে।’’ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি বেণীমাধব পরামানিক জানান, ওই শালডাবরা সেতুর টেন্ডার হয়েছে। খুব শীঘ্রই কাজ শুরু হবে। এ ছাড়া তিনি আরও বলেন, ‘‘যে সময় সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল সেই সময় পঞ্চায়েত সমিতি বিজেপির দখলে ছিল। তারা কী করেছে আমার জানা নেই। এ বার খুব ভাল করে কাজ হবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE