×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৩ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

এনপিআর-প্রশ্নে অস্ত্র এ বার আরটিআই

নিজস্ব সংবাদদাতা
০৬ মার্চ ২০২০ ০২:৩২
এনপিআর-বিরোধীতায় জনগণনা ভবন অভিযান। রাজা বাজার থেকে।—নিজস্ব চিত্র।

এনপিআর-বিরোধীতায় জনগণনা ভবন অভিযান। রাজা বাজার থেকে।—নিজস্ব চিত্র।

এনআরসি এবং এনপিআর-এর গোটা প্রক্রিয়া বাতিল করার দাবি নিয়ে জনগণনা ভবন অভিযান করল নাগরিকপঞ্জি-বিরোধী যুক্ত মঞ্চ। বাংলায় এনপিআর-এর কাজ স্থগিত রাখা হচ্ছে বলে নির্দেশিকা জারি করেছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু পাকাপাকি ভাবে ওই প্রক্রিয়া বন্ধ করা হয়েছে কি না, তা নিয়ে সংশয় দূর করতে তথ্যের অধিকার আইনে (আরটিআই) জনগণনা আধিকারিকের দফতরের কাছে নথিও চাওয়া হয়েছে যুক্ত মঞ্চের তরফে।

গ্রাম থেকে শহর পদযাত্রার পরে জনগণনা অভিযানের ডাক দিয়েছিল যুক্ত মঞ্চ। কিন্তু শাসক দলের স্থানীয় নেতৃত্ব ও পুলিশের বাধায় সেই পদযাত্রা ভণ্ডুল হয়েছিল। বিধাননগরে জনগণনা অভিযানের জন্য করুণাময়ী মোড়ে জমায়েতেরও অনুমতি দেয়নি পুলিশ। তবে বৃহস্পতিবার রাজাবাজারের ধর্নাস্থল থেকে মিছিলে পুলিশ আর বাধা দেয়নি। মিছিলে এ দিন মহিলাদের অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মতো। মিছিল শেষে মঞ্চের প্রতিনিধিরা গিয়ে জনগণনা আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

বিধানসভায় এনপিআর নিয়ে প্রথম সরব হয়েছিলেন ফরওয়ার্ড ব্লক বিধায়ক আলি ইমরান রাম্জ (ভিক্টর)। তার পরে এনপিআর স্থগিত রাখার কথা বলে রাজ্য সরকার। সুপ্রিম কোর্টে মামলা, শাহিনবাগ ও পটনার গাঁধী ময়দানে সিএএ-বিরোধী সমাবেশে বক্তৃতা করার পরে এ দিন এনপিআর-বিরোধী মিছিলে ছিলেন ভিক্টর। তিনি বলেন, ‘‘রাজ্য সরকার জনগণনা আধিকারিক দফতরকে কী জানিয়েছে, সেটা আমরা আরটিআই করে জানতে চেয়েছি। মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত না হলে ওই ধরনের নির্দেশের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন থাকে। একই বিষয়ে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতরের কাছেও আরটিআই করব।’’ যুক্ত মঞ্চের আহ্বায়ক প্রসেনজিৎ বসুরও বক্তব্য, ‘‘রাজ্যের নীতিগত অবস্থান স্পষ্ট হয়ে যাবে আরটিআই-এর জবাব পেলে।’’

Advertisement
Advertisement