Advertisement
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
AITC

TMC: ১০০ দিনের কাজের নাম বদল হয়নি, তা-ও টাকা আটকে কেন? প্রশ্ন তুলল তৃণমূল

১০০ দিনের কাজের প্রকল্পের নাম বদল হয়নি, তা হলে টাকা দেওয়া হচ্ছে না কেন? প্রশ্ন সুখেন্দুশেখর রায় ও চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যর।

তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক সম্মেলনে সুখেন্দুশেখর রায় ও চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য।

তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক সম্মেলনে সুখেন্দুশেখর রায় ও চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৯ অগস্ট ২০২২ ১৭:১০
Share: Save:

১০০ দিনের কাজের ক্ষেত্রে প্রকল্পের নাম বদল করা হয়নি। তা সত্ত্বেও কেন ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করা হল পশ্চিমবঙ্গকে? এমন প্রশ্ন তুলে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করলেন তৃণমূলের দুই মুখপাত্র সুখেন্দুশেখর রায় ও চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। মঙ্গলবার তৃণমূল ভবনের সাংবাদিক সম্মেলনে প্রথম থেকেই কেন্দ্রীয় সরকার ও বিজেপিকে আক্রমণ করেন তাঁরা। সম্প্রতি দিল্লিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১০০ দিনের কাজের টাকা-সহ কেন্দ্রীয় প্রকল্প বাবদ প্রাপ্য অর্থের দাবি করেছেন। পাশাপাশি চিঠিও দিয়েছেন।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা বলেন, ‘‘জানুয়ারি মাস থেকে ১০০ দিনের কাজের অর্থ আটকে রাখা হয়েছে। আমরা ১০০ দিনের কাজের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছি। তা সত্ত্বেও, অর্থ আটকে রাখা হয়েছে।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘২০২১-২২ সালের এই খাতে ৪০০ কোটি টাকা কমিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। আর ২০২২-২৩ সালে ৫০০ কোটি টাকার বেশি কমানো হয়েছে। আমাদের ভাল কাজ সত্ত্বেও প্রতিহিংসাবশত বাংলাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।’’ তৃণমূলের রাজ্যসভার উপদলনেতা সুখেন্দুশেখর বলেন, ‘‘কোনও ক্ষেত্রেই নাম বদল করে মুখ্যমন্ত্রীর নামে করা হয়নি। অথচ এই কেন্দ্রীয় সরকার ২৩টি প্রকল্পের মধ্যে ১৯টি প্রকল্পের নাম বদল করেছে। যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো অনুযায়ী রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গেই আলোচনা করার দরকারছিল। সেই নিয়ম মানা হয়নি।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘মহাত্মা গাঁধীর নামে ১০০ দিনের প্রকল্প। সেই প্রকল্পের নাম তো বদল করা হয়নি। তা হলে কেন টাকা আটকে রাখা হয়েছে? এর সদুত্তর দিতে পারেনি কেন্দ্র। এই অর্থ পাওয়া রাজ্যের অধিকারের মধ্যে পড়ে। কারণ, মোট অর্থের ৬০ শতাংশ দেয় কেন্দ্র ও রাজ্য দেয় ৪০ শতাংশ। তাই আমাদের দাবির পক্ষে যথেষ্ট যুক্তি রয়েছে।’’

প্রসঙ্গত, বিজেপির সভাপতি জেপি নড্ডা জানিয়েছিলেন, রাজ্য এ বিষয়ে দু’বছরের সঠিক হিসাব দেয়নি বলেই টাকা আটকে রয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.