×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৭ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

‘ক্ষমতায় এলে বিকাশ দুবে করে ছাড়ব’, হুমকি সায়ন্তনের

নিজস্ব সংবাদদাতা
বাগনান ০৩ নভেম্বর ২০২০ ২৩:৫৫
বাগনানের বিক্ষোভ সমাবেশে সায়ন্তন বসু। —নিজস্ব চিত্র।

বাগনানের বিক্ষোভ সমাবেশে সায়ন্তন বসু। —নিজস্ব চিত্র।

রাজ্যে ক্ষমতায় এলে অনেকের হাল বিকাশ দুবের মতো করে দেওয়া হবে বলে হুমকি দিলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। নির্দিষ্ট করে কারও নাম যদিও করেননি তিনি। তবে মঙ্গলবার বাগনানে ‘রাজা-গজা’ বলে উল্লেখ করে তাঁর ওই মন্তব্যের পর রাজনৈতিক জল্পনা, তৃণমূল বিধায়ক অরুণাভ সেনকেই তিনি নিশানা করেছেন। কারণ বাগনানের বিধায়ক অরুণাভর আর এক নাম রাজা।

দুষ্কৃতীদের গুলিতে দলের কর্মনী কিঙ্কর চক্রবর্তীর মৃত্যুর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বাগনান বন্ধের ডাক দেয় বিজেপি। সেই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত বিজেপিরই ৮ জন কর্মী গ্রেফতার হয়েছেন। সেই গ্রেফতারির প্রতিবাদে মঙ্গলবার বাগনানে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দেন সায়ন্তন। বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ, হাওড়া গ্রামীণের বিজেপি সভাপতি শিবশঙ্কর বেজ-সহ দলের আরও বেশ কয়েক জন নেতা হাজির ছিলেন ওই মঞ্চে।

সেখান থেকেই এনকাউন্টারের হুমকি ছাড়েন সায়ন্তন। তিনি বলেন, ‘‘তৃণমূলের হার্মাদরা কিঙ্কর মাজিকে খুন করেছে। পুলিশ খুনিদের ধরতে পারেনি। তাদের ধরতে হবে। বিনা দোষে আমাদের কার্যকর্তাদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অবিলম্বে তাদের মুক্তি দিতে হবে। এই দু’টি দাবি নিয়েই আজকে আমরা সভা করছি।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: বহু দিন পর শুভেন্দুর মুখে ‘নেত্রী’, বার্তা কি কালীঘাটকে​

এর পরই সরাসরি শাসকদলকে নিশানা করেন সায়ন্তন। তিনি বলেন, ‘‘বাগনানে আসার পথে জেলার সহ সভআনেত্রী পাপিয়াদি জানালেন, থানা থেকে ফোন করে বলছে, বাইকে চেপে যাবেন না, র‌্যালি করে যাবেন না। কেন, না উপর থেকে চাপ আছে। বারণ আছে। থানার ওসি, আইসির কাছে জানতে চাই, এই উপরটা কে? আজকে বলতে হবে। কারণ এখানে অনেক রাজা আর গজা ঘুরে বেড়ায়। এর আগে অনেক রাজা-গজাকে আমরা টাইট দিয়েছি। আপনারা মাঝেমধ্যেই খবর পান উত্তরপ্রদেশে পুলিশের গাড়ি দুর্ঘটনাগ্রস্ত হয়েছে। আমরা কথা দিচ্ছি রাজাবাবু, এখানে যদি ক্ষমতায় আসি আপনার মতো অনেক রাজা-গজাকে আমরা বিকাশ দুবে করে ছেড়ে দেব। গ্যারান্টি দিয়ে গেলাম।’’

এখানেই থামেননি সায়ন্তন। তিনি আরও বলেন, ‘‘যাঁরা বাগনান কাঁপাচ্ছেন ভাবছেন, তাঁরা জেনে রাখুন, এরকম বাগনানের অনেক গুন্ডা, মস্তানকে বিজেপি পকেটে পুরে ঘুরে বেড়ায়। উত্তরপ্রদেশ এবং আদিত্যনাথের নাম শুনেছেন? এখানকার রাজার মতো এক গুন্ডা-বদমাশ ওখানেও ছিল, তারা জেল থেকে জামিন নিয়েও বেরোতে চায় না। কারণ বেরোলে যদি আবার গাড়ি অ্যাক্সিডেন্ট হয়ে যায়! তার জন্য সতর্ক করে দিচ্ছি।’’

সায়ন্তনের এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তাঁদের দাবি, এই ধরনের মন্তব্য বিজেপির সংস্কৃতি। বাংলায় এ সব চলে না।

আরও পড়ুন: নবান্নে বৈঠক শেষে তামাং: গুরুং আমার চোখে ফেরার আসামী​

তবে সায়ন্তনই প্রথম নন, ক্ষমতায় এলে উত্তরপ্রদেশের কায়দায় বাংলাতেও এনকাউন্টার হবে বলে মন্তব্য করেছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। যোগীর রাজ্যে পুলিশের গুলিতে গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের মৃত্যুতে গোটা দেশ যখন তোলপাড়, সেইসময় দিলীপ বলেছিলেন, ‘‘বিজেপি ক্ষমতায় এলে দেখিয়ে দেবে, জঙ্গলরাজ কী ভাবে সাফ করতে হয়। যেমন উত্তরপ্রদেশে হয়েছে। কী ভাবে দুষ্কৃতীদের দমন করতে হয়, বিহার, উত্তরপ্রদেশই তার প্রমাণ। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ক্ষমতায় এলেও তার ব্যতিক্রম হবে না।’’

Advertisement