Advertisement
৩০ মে ২০২৪
Suvendu Adhikari

তৃণমূলেই থাকছেন শুভেন্দু, অভিষেকের সঙ্গে বসেই কাটল জট, বলছেন সৌগত

শুভেন্দু নিজে এখনও এ নিয়ে একটি শব্দও কোথাও বলেননি। তবে সৌগতর দাবি, দু’-এক দিনের মধ্যে সাংবাদিক বৈঠক করে সিদ্ধান্ত জানাবেন শুভেন্দু।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শুভেন্দুর দ্বন্দ্ব ছিল না বলে দাবি করলেন সৌগত রায়। —ফাইল চিত্র

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শুভেন্দুর দ্বন্দ্ব ছিল না বলে দাবি করলেন সৌগত রায়। —ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ১১:৫৩
Share: Save:

শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূলেই থাকছেন। মঙ্গলবারের বৈঠকে মান-অভিমানের পালা মিটতেই এ কথা জানিয়ে দিলেন বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা সৌগত রায়। মন্ত্রিত্বে ফিরবেন কিনা, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন দলনেন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও শুভেন্দু নিজে এখনও এ নিয়ে একটি শব্দও কোথাও বলেননি। তবে সৌগতর দাবি, দু’-এক দিনের মধ্যে সাংবাদিক বৈঠক করে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন শুভেন্দু।

শুভেন্দুর সঙ্গে মঙ্গলবার রাতে টানা প্রায় দু’ঘণ্টা বৈঠক হয় তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে। ওই বৈঠকে মধ্যস্থতাকারী সৌগত রায়ের পাশাপাশি ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। রাজনৈতিক শিবিরের মতে, মূলত অভিষেকের সঙ্গে টানাপড়েনেই মন্ত্রিত্ব ছাড়ার মতো পদক্ষেপ করেন। এ ছাড়া দলের ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরও বৈঠকে ছিলেন। শুভেন্দুর সঙ্গে কথা বলেন মমতাও। তার পরেই বরফ গলেছে বলে দাবি করেন তৃণমূল নেতৃত্ব। যদিও শুভেন্দু

এর পর বুধবার একাধিক সংবাদ মাধ্যমে সৌগত দাবি করেছেন, শুভেন্দু তৃণমূলেই থাকছেন। গোড়া থেকেই শুভেন্দুর সঙ্গে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় ছিলেন সৌগত। দু’বার তাঁর সঙ্গে বৈঠকও হয়েছে। বুধবার তিনি বলেন, ‘‘শুভেন্দু-অভিষেক মুখোমুখি বসতেই সমস্যা মিটে গেল। আমরা কেউ নই।’’ একই সঙ্গে তাঁর দাবি, ‘‘শুভেন্দু-অভিষেকের মধ্যে কোনও ব্যক্তিগত মান-অভিমান ছিল না। সাংগঠনিক কিছু বিষয় নিয়ে শুভেন্দুর বক্তব্য ছিল। সেগুলো মিটে গিয়েছে।’’

আরও পড়ুন: অভিষেকের ফোনে মমতা-শুভেন্দু কথা, ২ ঘণ্টা বৈঠকে বরফ কি গলছে?

আরও পড়ুন: বালিশ, বিছানা, ত্রিপল, অ্যাম্বুল্যান্স সঙ্গে নিয়ে দিল্লি অভিযানে কৃষকরা

শুভেন্দু মন্ত্রিত্ব ছাড়তেই উচ্ছ্বসিত বিজেপি শিবির তাঁকে দলে আহ্বান জানিয়ে রেখেছিল। এ বিষয়ে সৌগত বুধবার বলেন, ‘‘বিজেপির মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়রা হতাশ। হাত তুলে আহ্বান জানিয়েছিল। ওর সঙ্গে কথা না বলেই স্বাগত জানাতে শুরু করে দিয়েছিল।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE