Advertisement
১৫ জুন ২০২৪

ইএসআই ভবন উদ্বোধনে নেই রাজ্যের মন্ত্রীরা

মন্ত্রী-সান্ত্রীরা না আসায় বৃহস্পতিবার তাঁদের বিঁধেছেন দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বন্দারু দত্তাত্রেয় ও বাবুল সুপ্রিয়। বাবুলের অভিযোগ, ‘‘এটি দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর প্রতি অপমান।’’ বন্দারুর দাবি, ‘‘এই ঘটনা রাজ্য শ্রমিকদের স্বার্থ বিরোধী।’’

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৪ জুলাই ২০১৭ ০৩:০৫
Share: Save:

যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো ভেঙে রাজ্যের অধিকারে কেন্দ্র বার বার হস্তক্ষেপ করছে বলে অভিযোগ রয়েছে নবান্নের। সেই যুক্তরাষ্ট্রীয় ধর্ম মেনে কেন্দ্রের তৈরি ইএসআই ভবনের উদ্বোধনে রাজ্যের মন্ত্রীদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিল শ্রম মন্ত্রক। তাতে সাড়া দেননি রাজ্যের মন্ত্রী, সাংসদরা। এ নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর।

মন্ত্রী-সান্ত্রীরা না আসায় বৃহস্পতিবার তাঁদের বিঁধেছেন দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বন্দারু দত্তাত্রেয় ও বাবুল সুপ্রিয়। বাবুলের অভিযোগ, ‘‘এটি দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর প্রতি অপমান।’’ বন্দারুর দাবি, ‘‘এই ঘটনা রাজ্য শ্রমিকদের স্বার্থ বিরোধী।’’

এ দিন সল্টলেকে ইএসআই-র নতুন আ়ঞ্চলিক ভবনের উদ্বোধনের পাশাপাশি বালটিকুরি ও দুর্গাপুরের ইএসআই হাসপাতাল সম্প্রসারণের শিলান্যাস অনুষ্ঠানে দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিজেপি-র সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায় ছাড়াও রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটকসহ তৃণমূলের আরও আধ ডজন সাংসদ-বিধায়ককে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল ইএসআই কর্পোরেশন (ইএসআইসি)। রূপা ও আইএনটিইউসি-র নেতা রমেন পাণ্ডে সেখানে থাকলেও রাজ্য বা তৃণমূল কংগ্রেসেরর পক্ষে কেউই ছিলেন না।

মঞ্চ থেকেই বাবুল বলেন, ‘‘অনুষ্ঠানে আসার জন্য সরকারি আমন্ত্রণপত্রের পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবে ফোন করাও হয়েছিল। এর পরেও কেউ এলেন না। আমিও ব্যক্তিগত ভাবে মলয় ঘটককে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম।’’

রাজ্য অনুষ্ঠানটি এক প্রকার বয়কট করায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রীও। বন্দারু বলেন, ‘‘এটা রাজনৈতিক অনুষ্ঠান নয়। শ্রমিকদের জন্য অনুষ্ঠান। এখানে মলয়বাবু ও সাংসদদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। আমরা বলি, ‘সব কা সাথ, সবকা বিকাশ’। ওঁদের কী সমস্যা ছিল জানি না। ওঁরা এলেন না। ওঁরা তো তাহলে শ্রমিক-বিরোধী।। তবে না এলেও অনুষ্ঠান ভালই হল।’’

রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটকের প্রতিক্রিয়া জানতে বার বার ফোন ও এসএমএস করা হলেও তিনি জবাব দেননি। তবে তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলের দাবি, ‘‘বসিরহাট, পাহাড়, নারদ-সারদা নিয়ে যা শুরু হয়েছে তার প্রেক্ষিতে দলীয় নেতৃত্ব নির্দেশ দিয়েছেন বলেই উনি অনুষ্ঠানে যাননি।’’

আসানসোলের সাংসদ অবশ্য বলেন, ‘‘আজ এখানে মলয়দা এলে শ্রমসচিব ও ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে বলে আসানসোল ইএসআই হাসপাতালের নকশা স্থির করা যেত। ওই অঞ্চলের বহু খনি শ্রমিক এতে উপকৃত হতেন। এটা রাজনৈতিক বিষয় নয়। প্রশাসনিক বিষয়। দুর্ভাগ্য যে রাজ্য এল না।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE