Advertisement
১৬ জুন ২০২৪

‘ভুল করেছিলাম উন্নয়নকে চিনতে, কংগ্রেস ছেড়ে তাই তৃণমূলেই এলাম’

চব্বিশ ঘণ্টাও কাটল না, শুক্রবার তৃণমূলের দলীয় পতাকা গায়ে জড়িয়ে কংগ্রেসের সেই প্রার্থী হাসিমুখে জানিয়ে দিচ্ছেন, ‘‘ভুল করেছিলাম উন্নয়নকে চিনতে, কংগ্রেস ছেড়ে এ বার তাই তৃণমূলেই নাম লেখালাম।’’

কৌশিক সাহা
কান্দি শেষ আপডেট: ২৮ এপ্রিল ২০১৮ ০৩:২০
Share: Save:

পুলিশের কাছে তাঁর আর্জি ছিল— ‘আমাকে বাঁচান!’

কাদের হাত থেকে? সে ব্যাপারেও স্পষ্ট করে পুলিশ সুপারের কাছে তিনি জানিয়ে এসেছিলেন শাসক দলের নির্দিষ্ট মুখগুলির নাম।

তবে, চব্বিশ ঘণ্টাও কাটল না, শুক্রবার তৃণমূলের দলীয় পতাকা গায়ে জড়িয়ে কংগ্রেসের সেই প্রার্থী হাসিমুখে জানিয়ে দিচ্ছেন, ‘‘ভুল করেছিলাম উন্নয়নকে চিনতে, কংগ্রেস ছেড়ে এ বার তাই তৃণমূলেই নাম লেখালাম।’’ এ দিন, কান্দি মহকুমাশাসকের দফতরে গিয়ে নিজেই নাম প্রত্যাহার করে তৃণমূল ব্লক সভাপতির গাড়িতে সটান দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের ৫২ নম্বর আসনে হিজল অঞ্চলের কংগ্রেস প্রার্থী তরজিমুন খাতুন বলছেন, ‘‘দিদির উন্নয়নের কাছেই শেষ পর্যন্ত মাথা নিচু হয়ে গেল, তাই বদলে ফেললাম দল।’’

অথচ হিজল অঞ্চল কংগ্রেসের সভাপতি, সাবির আলি শেখের স্ত্রী তরজিমুন গত ৬ এপ্রিল মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর থেকেই নাগাড়ে অভিযোগ করে আসছিলেন ‘ওরা প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে।’ ওরা কারা? পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে সাবিরও জানিয়েছিলেন— ‘তৃণমূলের আশ্রয়ে থাকা গুন্ডাবাহিনী আমার স্ত্রীর মনোনয়ন প্রত্যাহার করার জন্য ক্রমাগত হুমকি দিয়ে চলেছে। এমনকী একা পেলে, বোমা মেরে আমাকেও খুন করবে বলে শাসিয়ে গিয়েছে।’

দলবদলের আগে পুলিশের কাছে তরজিমুনের স্বামীর দায়ের করা অভিযোগ

এক রাতেই সে অভিযোগ ভুলে গেলেন? তৃণমূলের বিশাল পতাকার খুঁটে মুখ মুছে সাবির বলছেন, ‘‘আসলে কী জানেন তো, আমার স্ত্রী প্রার্থী হতে চায়নি। কংগ্রেস জোর করেই প্রার্থী করেছিল ওঁকে। আর, কংগ্রেসের জেলা নেতৃত্ব জোর করেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ করিয়েছিল।’’

মুর্শিদাবাদ পুলিশ সুপার মুকেশ কুমার তরজিমুনের ‘ডিগবাজি’ শুনে বলছেন, ‘‘ওঁদের অভিযোগ শুনে পুলিশ তো তদন্ত শুরু করেছিল। তবে থানায় গিয়ে ওই মহিলা জানিয়ে এসেছেন, ‘আর খোঁজাখুঁজির দরকার নেই। অভিযোগ তুলে নিচ্ছি।’’

তৃণমূলের জেলা সভাপতি সুব্রত সাহা যা শুনে বলছেন, ‘‘সত্যিই যদি আমাদের দলীয় কর্মীরা এমন হুমকি দিতেন, তা হলে কি দল ছেড়ে বাঘের গুহায় ঢুকতেন ওই মহিলা!’’

মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেস সভাপতি আবু তাহের খান অবশ্য বলছেন, ‘‘এখন ভয়ের নাম উন্নয়ন, গ্রামে কী ধরনের সন্ত্রাস চলছে, বলে বোঝাতে পারব না। প্রাণের ভয়েই ওঁরা নাম প্রত্যাহার করেছেন।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE