Advertisement
১৭ জুন ২০২৪
jemima goldsmith

মধ্যরাতে বাড়িতে দুই অজ্ঞাতপরিচয়! ধরা পড়ল সিসিটিভিতে, আতঙ্কে ইমরান খানের প্রাক্তন স্ত্রী

জিও নিউজ-কে জেমাইমা জানিয়েছেন, তখন মাঝরাত। হঠাৎই একটা আওয়াজ পেয়ে ঘুম ভেঙে যায় তাঁর। তখন তিনি দেখেন, দুই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি তাঁর বাড়ির ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছেন।

Jemima goldsmith

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রাক্তন স্ত্রী জেমাইমা। ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
লন্ডন শেষ আপডেট: ৩০ মার্চ ২০২৩ ১৩:৪৬
Share: Save:

মধ্যরাতে বাড়ির ভিতরে ঢুকছিলেন দুই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি। এমনই দাবি করলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর ইমরান খানের প্রাক্তন স্ত্রী তথা ব্রিটিশ চলচ্চিত্র নির্মাতা জেমাইমা গোল্ডস্মিথ।

টুইটারে দুই ব্যক্তির ছবি প্রকাশ করে জেমাইমা বলেছেন, “এই দু’জনকে যদি চিনতে পারেন, তা হলে অনুগ্রহ করে আমাকে জানাবেন।” লন্ডনের যে ফ্ল্যাটে থাকেন জেমাইমা, সেই ফ্ল্যাটে কয়েক দিন আগে এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি ইমরানের প্রাক্তন স্ত্রীর। সেই ঘটনার পর থেকেই আতঙ্কে রয়েছেন তিনি।

জিও নিউজ-কে জেমাইমা জানিয়েছেন, তখন মাঝরাত। হঠাৎই একটা আওয়াজ পেয়ে ঘুম ভেঙে যায় তাঁর। তখন তিনি দেখেন, দুই অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি তাঁর বাড়ির ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছেন। কিন্তু কিছু একটা আঁচ করে ওই দু’জন পালিয়ে যান। তবে তাঁদের ছবি ধরা পড়েছে সিসিটিভি ক্যামেরায়। এই ঘটনার পর পরই স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডকে ফোন করেন জেমাইমা। একটি মামলাও দায়ের করেছেন তিনি।

দুই অজ্ঞাতপরিচয়ের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। তাঁরা কে, কেনই বা বাড়িতে ঢোকার চেষ্টা করছিলেন, তা নিয়ে সন্দেহ এবং আশঙ্কা তৈরি হয়েছে জেমাইমার। এর আগে ২০১৭ সালে এক ট্যাক্সিচালক ১ হাজার বার ফোন এবং মেসেজ করেছিলেন জেমাইমাকে। হাসান মাহমুদ নামে ওই ট্যাক্সিচালকের সঙ্গে নিজস্বী তোলার পর থেকেই জেমাইমাকে ফোন এবং মেসেজ করে বিরক্ত করার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। ১৯৯৫ সালে জেমাইমাকে বিয়ে করেন ইমরান। কিন্তু সেই বিয়ে বেশি দিন টেকেনি। ২০০৪ সালে বিবাহবিচ্ছেদ হয়। তাঁদের দুই পুত্র রয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

jemima goldsmith London Imran Khan
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE