Advertisement
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
China

China: সৌদি সফরে চিনা প্রেসিডেন্ট, ‘ক্ষমতায় ফিরছিই’ প্রত্যয় থেকেই কি বিদেশ সফরে শি?

এমনিতে সৌদি আরব চিনের নির্ভরযোগ্য মিত্র দেশ। দেশে বিদ্যুতের চাহিদা মেটানোর জন্য চিন সৌদি থেকে আমদানি করা জ্বালানির উপর নির্ভরশীল।

ক্ষমতা ফেরার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী চিনা প্রেসিডেন্ট জিনপিং।

ক্ষমতা ফেরার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী চিনা প্রেসিডেন্ট জিনপিং।

সংবাদ সংস্থা
বেজিং শেষ আপডেট: ১৪ অগস্ট ২০২২ ১৬:৩৯
Share: Save:

দু’বছরের দীর্ঘ কোভিড-পর্ব পেরিয়ে ফের বিদেশ সফরে চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। একটি জনপ্রিয় ব্রিটিশ দৈনিকে সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে যে, অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই সৌদি আরব সফরে যেতে চলেছেন চিনের প্রেসিডেন্ট। অবশ্য চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্রকে এই সফরের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, তাঁর কাছে এমন কোনও তথ্য নেই। চিন এই সফরের বিষয়টিকে অস্বীকার করতে চাইলেও, সৌদি আরব যে ভাবে তাদের চিনা অতিথিকে বরণ করে নেওয়ার তোড়জোড় চালাচ্ছে, তাতে জল্পনার মাত্রা আরও বেড়েছে।

জল্পনা তৈরি হয়েছে আরও একটি কারণেও। চিনের কমিউনিস্ট পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কে দল এবং দেশের কর্ণধার হবেন, তা নির্ধারিত হয়ে যায় পার্টি কংগ্রেসে। চলতি বছরের নভেম্বর মাসে সে দেশে যোড়শ পার্টি কংগ্রেস হওয়ার কথা। কিন্তু তার আগেই যখন জিনপিং বিদেশ সফরে বেরোচ্ছেন, তখন অনেকেরই অনুমান চিনের মসনদে আরও একবার তিনিই বসতে চলেছেন। শুধু তাই-ই নয়, পার্টির নীতিনির্ধারকমণ্ডলী পলিটব্যুরোতেও শি তাঁর অধিকাংশ আস্থাভাজনকেই জায়গা দিতে পারবেন বলে শোনা যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে আরও একবার একাধারে পার্টির সাধারণ সম্পাদক এবং দেশের প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন শি। সেই আত্মবিশ্বাসের ছাপটাই কি দেখা যাবে তাঁর সৌদি সফরে?

এমনিতেও সৌদি আরব চিনের নির্ভরযোগ্য মিত্র দেশ। দেশে বিদ্যুতের বিপুল চাহিদা মেটানোর জন্য চিন সৌদি থেকে আমদানি করা জ্বালানির উপর নির্ভরশীল। সৌদির রাজ-সিংহাসনে মহম্মদ বিন সলমান আসীন হওয়ার পর থেকে দুই দেশের বো়ঝাপড়া আরও নিবিড় হয়েছে। তাই কোভিড-উত্তর প্রথম বিদেশ সফরে শি সৌদিকেই বেছে নিয়েছেন।

বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, খুব সম্ভবত নভেম্বরের জি-২০ বৈঠকেও অংশগ্রহণ করতে চলেছেন চিনা প্রেসিডেন্ট। সবকিছু ঠিকঠাক চললে এই বৈঠক চলাকালীন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সঙ্গে একান্ত বৈঠকে বসতে পারেন শি। অবশ্য চিনের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট কে হবেন, তা ঠিক হবে ২০২৩-এর পিপলস কংগ্রেসে। তবে যে ভাবে আসন্ন বিভিন্ন সফর কিংবা আন্তর্জাতিক বৈঠকে শি-এর অংশগ্রহণ করার খবর পাওয়া যাচ্ছে, তাতে শি ক্ষমতার ফেরার বিষয়ে সম্পূর্ণ আশাবাদী বলেই মনে করা হচ্ছে। শি-এর পূর্বসূরীদের ক্ষেত্রেও দেখা গিয়েছে, যাঁরা ক্ষমতায় ফেরার বিষয়ে নিঃসন্ধিগ্ধ, তাঁরাই আগাম সফরসূচি ঘোষণা করে দিয়েছিলেন। শি তা না করলেও, এই বছরের শেষভাগে তিনি যে ঠাসা আন্তর্জাতিক সফরে ব্যস্ত থাকবেন, বিভিন্ন সংবাদসূত্রে তেমনটাই জানা যাচ্ছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.