×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

হোয়াইট হাউসে বসে প্রথম ফোন পুতিনকে, নরমে-গরমে বার্তা বাইডেনের

সংবাদ সংস্থা
ওয়াশিংটন ২৭ জানুয়ারি ২০২১ ১৪:০৮
জো বাইডেন (বাঁ দিকে) ও ভ্লাদিমির পুতিন। —ফাইল চিত্র

জো বাইডেন (বাঁ দিকে) ও ভ্লাদিমির পুতিন। —ফাইল চিত্র

ডোনাল্ড ট্রাম্পের নমনীয় অবস্থান কাটিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ফের ‘ঠান্ডা যুদ্ধ’-এর বার্তা দিলেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ফোনে কথা বললেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর এই প্রথম অন্য কোনও দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের সঙ্গে কথা বললেন বাইডেন। হোয়াইট হাউস সূত্রে খবর, রুশ বিরোধী দলনেতা অ্যালেক্সি নাভালনির গ্রেফতারি, সাইবার গুপ্তচরবৃত্তি-সহ একাধিক বিষয় নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট।

প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন মস্কো নিয়ে অনেক ক্ষেত্রেই নমনীয় অবস্থান নয়িছেন ট্রাম্প। তাঁর প্রশাসনকেও সেই ভাবে পরিচালনার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু তিনি যে সেই পথে হাঁটতে চান না, হোয়াইট হাউসে বসার পর প্রথমেই রুশ প্রেসিডেন্টকে ফোন করে সে কথা বুঝিয়ে দিলেন বাইডেন।

নাভালনির গ্রেফতারিতে ওয়াশিংটন উদ্বিগ্ন— এই বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি আফগানিস্তানে আমেরিকান সেনাদের হত্যা বা হত্যার পরিকল্পনা নিয়েও বাইডেন তাঁর উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন পুতিনকে। পাশাপাশি রাশিয়ার বিরুদ্ধে সাইবার গুপ্তচরবৃত্তির দীর্ঘদিনের অভিযোগ নিয়েও সরব হয়েছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট। মস্কো-ওয়াশিংটনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আপাতত দুই প্রশাসন এই সিদ্ধান্তে এসেছে যে, কেউ কারও ক্ষতি করবে না। আবার সম্পর্কের উষ্ণতা বাড়াতে তাড়াহুড়োও করবে না কোনও পক্ষ।

Advertisement

ফেব্রুয়ারি মাসেই শেষ হচ্ছে রাশিয়া-আমেরিকা পরমাণু অস্ত্র চুক্তি। সেই চুক্তির মেয়াদ আরও ৫ বছর বাড়ানো নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চিন বা ইরানের মতো দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বরাবরই ওয়াশিংটনের বিপক্ষে অবস্থান নেয় মস্কো। সেই কারণেই বাইডেন মনে করেন, দু’দেশের মধ্যে এই উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় বন্ধ হওয়া দরকার।

Advertisement