Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৯ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ইস্তফা দিলেও নিয়ন্ত্রণ শরিফের হাতেই, প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন শাহবাজ

জোর রাজনৈতিক সঙ্কট ইসলামাবাদে। নওয়াজ শরিফকে প্রধানমন্ত্রী পদে থাকার অযোগ্য বলে ঘোষণা করে দিল পাকিস্তানের সর্বোচ্চ আদালত। ইস্তফা দিলেন নওয়াজ।

সংবাদ সংস্থা
ইসলামাবাদ ২৮ জুলাই ২০১৭ ১৩:০১
Save
Something isn't right! Please refresh.
সুপ্রিম কোর্টে জিততে পারলেন না নওয়াজ। হাতছাড়া প্রধানমন্ত্রিত্ব। ছবি: এএফপি।

সুপ্রিম কোর্টে জিততে পারলেন না নওয়াজ। হাতছাড়া প্রধানমন্ত্রিত্ব। ছবি: এএফপি।

Popup Close

প্রধানমন্ত্রী পদে থাকার অযোগ্য নওয়াজ শরিফ। তিনি আইনসভার সদস্য পদে থাকারও অযোগ্য। জানিয়ে দিল পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট। রায় মেনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী পদে ইস্তফাও দিয়ে দিলেন তিনি। পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী বেছে নেওয়ার জন্য জোর তৎপরতা শুরু হয়েছে ইসলামাবাদে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়লেও শাসক দল পিএনএল(এন)-এর সর্বময় কর্তা নওয়াজই। সুতরাং তাঁর পছন্দের ব্যক্তিই যে প্রধানমন্ত্রী পদে বসতে চলেছেন, সে নিয়ে সংশয় কমই।

‘‘তিনি পার্লামেন্টের একজন সৎ সদস্য হিসেবে বিবেচিত হওয়ার অধিকার হারিয়েছেন এবং প্রধানমন্ত্রীর দফতরও আর তাঁর হাত থাকতে পারে না।’’ পাক সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এজাজ আফজল খান শুক্রবার এ কথা বলেছেন। নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল(এন) যদি সরকারে থাকতে চায়, তা হলে অন্য কারওকে প্রধানমন্ত্রী পদে আনতে হবে বলে আদালত জানিয়ে দিয়েছে।

Advertisement



আদালতের রায় শোনার পর ইসলামাবাদে উল্লাস নওয়াজ শরিফের কট্টর বিরোধী তথা ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ-এর সমর্থকদের। ছবি: এএফপি।

২০১৬ সালে পানামা পেপার্স ফাঁস হওয়ার পর নওয়াজ এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের নামে বিদেশে বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি থাকার তথ্য সামনে আসে। দেশে-বিদেশ তাঁর ও পরিবারের নামে বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি যে রয়েছে, তা নওয়াজ অস্বীকার করেননি। তিনি জানান, ওই সম্পত্তি তিনি তাঁর পারিবারিক ব্যবসার সূত্রের অর্জন করেছেন। কিন্তু বিরোধী শিবির নওয়াজের এই ব্যাখ্যা মানতে রাজি হয়নি। তাঁকে প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে বরখাস্ত করার আবেদন জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয় বিরোধীরা।

আরও পড়ুন: পরমাণু অস্ত্র প্রয়োগের ভাবনা ছিল মুশারফের

চলতি বছরের এপ্রিলে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েছিল, নওয়াজকে বরখাস্ত করা হবে না। তাঁর বিরুদ্ধে ‘যথেষ্ট প্রমাণ’ মেলেনি বলে আদালত সে সময় জানিয়েছিল। কিন্তু অভিযোগ খতিয়ে দেখা দরকার বলে সুপ্রিম কোর্ট মেনে নিয়েছিল এবং তদন্তকারী দল গঠন করে অভিযোগের সারবত্তা খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছিল। সেই তদন্তকারী দল সুপ্রিম কোর্টে নিজেদের রিপোর্ট জমা দিয়েছে। শরিফ পরিবারের যা উপার্জন, তার সঙ্গে তাঁদের সম্পত্তির পরিমাণ এবং জীবনযাত্রার মান সঙ্গতিপূর্ণ নয় বলে তদন্তকারী দল আদালতকে জানিয়েছে।

এই রিপোর্টের ভিত্তিতেই নওয়াজের বিরুদ্ধে ফৌজদারি তদন্ত শুরুর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে নওয়াজের অনেক প্রশ্ন রয়েছে বলে তাঁর ঘনিষ্ঠ বৃত্ত জানিয়েছে। তবে তিনি রায়কে আপাতত মেনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়েছেন। নওয়াজের ভাই তথা পঞ্জাবের দীর্ঘ দিনের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন। প্রতিরক্ষা মন্ত্রী খোয়াজা আসিফ এবং অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী চৌধুরি নিসার আলি খানের নামও শোনা যাচ্ছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement