Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

তীব্র গতি, আকাশ আলো করা ঝলকানি! বিমান থেকে কী দেখলেন পাইলটরা?

সংবাদ সংস্থা
ডাবলিন ১৪ নভেম্বর ২০১৮ ১৫:৪৪
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

চার পাইলটের কেউ বলছেন ভয়ঙ্কর গতি। কেউ দেখেছেন, গোটা আকাশে তীব্র আলোর জ্যোতি ছড়িয়ে দিয়েছিল। কারও বক্তব্য, মুহূর্তে বিমানের বাঁ দিক থেকে ডান দিকে অদৃশ্য হয়ে গেল। কেউ বা বর্ণনা করার ভাষাই পাচ্ছেন না, কারণ এমন কোনও ‘যান’ বা ‘যন্ত্র’ কখনও দেখেননি।

এমনই এক রহস্যময়, অদ্ভুত, অপরিচিত ‘বস্তু’ দেখা গেল আয়ারল্যান্ডের আকাশে। বিজ্ঞানের পরিভাষায় যাকে বলা হয় ‘আনআইডেন্টিফায়েড ফ্লাইং অবজেক্ট’ (ইউএফও)। বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, অন্তত চার জন পাইলট ওই অঞ্চল দিয়ে বিমান ওড়ার সময় সেই অদ্ভুত বস্তু দেখেছেন। তাই ঘিরেই এখন তোলপাড় মুক্তোর দেশ। ইতিমধ্যেই সরকারি তরফে বিষয়টি নিয়ে খোঁজখবরও শুরু হয়েছে। রহস্যভেদে উঠে পড়ে লেগেছেন বিজ্ঞানীরাও।

চার জন পাইলটের বক্তব্যে অন্তত দু’টি মিলও খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। প্রচণ্ড গতি এবং তীব্র আলোয় গোটা আকাশ আলোকিত। একটি বেসরকারি সংস্থার মন্ট্রিয়ল থেকে লন্ডনগামী এক বিমানের চালক বলেছেন, ‘‘প্রথমে আমাদের বিমানের বাঁ দিকে প্রচণ্ড আলোর ঝলকানি দেখলাম। মুহূর্তের মধ্যেই আবার অদৃশ্য হয়ে গেল।’’ অন্য এক পাইলট আবার বলেছেন, ‘‘সুপারসনিক বিমানের গতির চেয়েও বেশি ছিল গতি। আর আলো এতটাই জোরালো যে, ওরকম আলো দেখা যায়নি।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: আরও মদ চাই! না দেওয়ায় এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটকে থুতু, গালিগালাজ আইরিশ বিমানযাত্রীর

কোনও বস্তুর গতি শব্দের চেয়ে বেশি হলে তাকে বলা হয় সুপারসনিক গতি। মার্কিন সামরিক বাহিনীতে সর্বোচ্চ গতিবেগের যে যুদ্ধবিমান রয়েছে, তার গতি শব্দের চেয়ে প্রায় আড়াই গুণ বেশি। এক জন পাইলটের বক্তব্য, ওই যুদ্ধবিমানের চেয়েও বেশি ছিল গতি।

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কায় অনাস্থা প্রস্তাবে পরাজয় রাজাপক্ষের, রনিলকেই স্বীকৃতি পার্লামেন্টের

বস্তু বা যান যেটাই হোক, সেটা আসলে কী? মুক্তোর দেশ আয়ারল্যান্ডে এ নিয়ে এখন জল্পনা তুঙ্গে। গতির কথা মাথায় রেখে বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ মনে করছেন, কোনও সামরিক মহড়ার কারণে তীব্র আলো বা দ্রুতগামী যান দেখা যেতে পারে। তবে প্রাথমিক তদন্তে সেনার সঙ্গে কথা বলে সেই সম্ভাবনা খারিজ করে দিয়েছে আয়ারল্যান্ড সরকার। কারও ধারনা, উল্কাপাতের কারণেও অনেক সময় তীব্র আলো দেখা যেতে পারে। তবে সাধারণত বায়ুমণ্ডলের এত নীচের স্তরে উল্কার আলো এত তীব্র থাকে না। তবে সম্ভাবনা এখনও বাতিল হয়নি। সব মিলিয়ে জল্পনা বেড়েই চলেছে। ঘণীভূত হচ্ছে রহস্য।

আরও পড়ুন

Advertisement