×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৬ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

রানাকে ভারতে প্রত্যর্পণের সম্ভাবনা প্রবল

সংবাদসংস্থা
ওয়াশিংটন ১৫ জানুয়ারি ২০১৯ ০২:২০
তাজ হোটেলে হামলা, ইনসেটে তাহায়ুর হুসেন রাণা।—ফাইল চিত্র।

তাজ হোটেলে হামলা, ইনসেটে তাহায়ুর হুসেন রাণা।—ফাইল চিত্র।

মুম্বই সন্ত্রাসের (২৬/১১) অন্যতম চক্রী তহব্বুর রানাকে আমেরিকা থেকে ভারতে প্রত্যর্পণের সম্ভাবনা ক্রমশ বাড়ছে। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই ভারত ও আমেরিকার সংশ্লিষ্ট দফতরগুলি তৎপরতা শুরু করেছে। পাক বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক ওই সন্ত্রাসবাদী এখন শিকাগোর জেলে।

মুম্বইয়ের ২৬/১১ জঙ্গি হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে ২০০৯ সালে গ্রেফতার করা হয় রানাকে। ওই হামলায় ৬ মার্কিন নাগরিক-সহ ১৬৬ জন নিহত হয়েছিলেন। ২০১৩ সালে রানাকে দোষী সাব্যস্ত করে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেয় মার্কিন আদালত। মার্কিন প্রশাসনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ২০২১ সালে রানার কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষ হবে। তাকে ভারতে প্রত্যর্পণের ব্যাপারে ট্রাম্প প্রশাসন ‘পূর্ণ সহযোগিতা’ করছে। রানার কারাবাসের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তাকে প্রত্যর্পণের নথিপত্র তৈরির কাজ শেষ করতে হবে। সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে মার্কিন প্রশাসনের এক আধিকারিক বলেছেন, ‘‘রানার কারাবাসের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তাকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা এ ব্যাপারে কাজ করছি।’’ প্রসঙ্গত, নয়াদিল্লির ‘ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ’ এবং ‘চাবাড হাউস’-এ হামলার পরিকল্পনাকারীদেরও অন্যতম রানা। ওই জঙ্গি হামলার তদন্তের জন্যই রানার প্রত্যর্পণ চায় ভারত।

সূত্রের খবর, প্রত্যর্পণের ক্ষেত্রে আমলাতন্ত্র ‘বাধা’ হতে পারে বলে আশঙ্কা দুই দেশের অনেক আধিকারিকেরই। ভারতের বিদেশ, স্বরাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রক এবং আমেরিকার আইন এবং বিদেশ বিভাগ প্রত্যর্পণের ব্যাপারে তৎপরতা শুরু করেছে। কিন্তু প্রত্যর্পণ সংক্রান্ত নথি তৈরির কাজ যে গতিতে চলছে, তা ২০২১ সালের আগে শেষ হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। কিন্তু আর একটি সূত্রের খবর, সম্প্রতি ভারতের জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)-র একটি দল বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে আমেরিকা যায়। সে সময় প্রত্যর্পণ সংক্রান্ত নথি তৈরির কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য আবেদন জানান এনআইএ-র অফিসারেরা। এই আবেদনে দুই দেশই রাজি হয়েছে। বর্তমানে মার্কিন আইন অনুযায়ী, রানার কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে যদি প্রত্যর্পণের নথি চূড়ান্ত করা না যায়, তা হলে ওই সন্ত্রাসবাদীকে কানাডায় পাঠিয়ে দেবে মার্কিন প্রশাসন। সে ক্ষেত্রে তাকে ভারতে নিয়ে আসতে আরও অনেক কাঠখড় পোড়াতে হবে সাউথ ব্লককে।

Advertisement
Advertisement