×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ জুন ২০২১ ই-পেপার

ইমপিচমেন্ট-ভোটাভুটি 

ওয়াশিংটন
সংবাদ সংস্থা  ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ০৪:৪২
ডোনাল্ড ট্রাম্প। —ফাইল চিত্র

ডোনাল্ড ট্রাম্প। —ফাইল চিত্র

বড়দিন উপলক্ষে একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকে নিয়ে আজ সকালে মিশিগান উড়ে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর আজই তাঁর ইমপিচমেন্ট নিয়ে ভোটাভুটি শুরু হচ্ছে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে।

গত কাল হাউসের স্পিকার তথা ডেমোক্র্যাটিক নেত্রী ন্যান্সি পেলোসিকে একটি ছ’পাতার চিঠি লিখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। চিঠির ছত্রে ছত্রে হাউসের ডেমোক্র্যাট সদস্যদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছেন ট্রাম্প। সেখানে ইমপিচমেন্ট পদ্ধতিকেই তিনি ‘অভ্যুত্থানের চেষ্টা’ এবং ‘বিকৃত বিচার’ বলে উল্লেখ করেছেন। হোয়াইট হাউসেরই এক নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক কর্মী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, প্রায় এক সপ্তাহ ধরে ওই চিঠিটি লেখার প্রস্তুতি নিয়েছেন ট্রাম্প। চিঠি লিখতে নিয়েছেন নিজের আইনজীবীদের পরামর্শও। তবে চিঠিতেই ট্রাম্প কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন, ইমপিচমেন্ট ভোটাভুটি প্রক্রিয়া এখন আটকানো যাবে না। তবে তিনি যে অন্যায় করেননি, বারবার তা দাবি করেছেন ট্রাম্প।

ন্যান্সি পেলোসি অবশ্য জানিয়েছেন, ওই চিঠি তিনি পুরোটা পড়ে উঠতে পারেননি। হাউস সদস্যদের উদ্দেশে তাঁর মন্তব্য, ‘‘এখন প্রার্থনার সময়। ইমপিচমেন্ট পদ্ধতি মার্কিন ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ আইনি অধিকার, যা সংবিধান আমাদের হাতে তুলে দিয়েছে।’’ ভোটাভুটি শুরুর আগে হাউসে আজ সকাল ন’টা নাগাদ শুরু হয় বিতর্ক। হাউস সদস্যেরা ভোট দেবেন সন্ধে সাড়ে ছ’টা থেকে সাড়ে সাতটার মধ্যে। হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে বর্তমানে ডেমোক্র্যাটরা সংখ্যাগুরু হলেও সেনেটে কিন্তু রিপাবলিকানদেরই আধিপত্য। ফলে হাউসে ট্রাম্পকে ইমপিচ করার পক্ষে ভোট গেলেও সেনেটে এসে ডেমোক্র্যাটদের বাধা পেতে হবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা। সেনেটের দুই তৃতীয়াংশ সদস্য ট্রাম্পের বিপক্ষে গেলে, তবেই প্রেসিডেন্টকে গদি থেকে সরানো সম্ভব বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

Advertisement

Advertisement