Advertisement
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
International News

প্রজাতন্ত্র দিবসে ভারতে আসার আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করলেন ট্রাম্প?

এর মধ্যেই গত কয়েক দিন ধরে হোয়াইট হাউসের তরফে ভাসিয়ে দেওয়া হচ্ছে, জানুয়ারিতে প্রজাতন্ত্র দিবসের সময় ট্রাম্প ভারতে আসতে পারবেন না। কারণ ওই সময় ‘স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন অ্যাড্রেস’ কর্মসূচি রয়েছে ট্রাম্পের।

প্রজাতন্ত্র দিবসে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রত্যাখ্যান করেছেন বলে খবর।

প্রজাতন্ত্র দিবসে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রত্যাখ্যান করেছেন বলে খবর।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২৮ অক্টোবর ২০১৮ ১১:১৯
Share: Save:

রাশিয়ার সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তি, আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে ইরানের কাছ থেকে তেল কেনা, এইচ ওয়ান বি নিয়ে আমেরিকার কড়া অবস্থানের মতো বিষয় নিয়ে ইন্দো-মার্কিন ঠান্ডা যুদ্ধ চলছিলই। তার মধ্যেই প্রজাতন্ত্র দিবসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ভারতে আসতে পারছেন না— এমন খবরে কূটনৈতিক মহলে তৎপরতা শুরু হয়েছে। জানুয়ারি মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অন্য কর্মসূচি থাকায় তিনি প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারছেন না বলে সূত্রের খবর। যদিও নয়াদিল্লি বা ওয়াশিংটন, কোনও তরফেই সরকারি ভাবে এ খবর জানানো হয়নি।

সূত্রের খবর, প্রজাতন্ত্র দিবসে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার জন্য গত অগস্ট মাসেই হোয়াইট হাউসে আমন্ত্রণপত্র যায় হোয়াইট হাউসে। তখন হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব সারা স্যান্ডার্স সেই আমন্ত্রণ পত্রের কথা স্বীকারও করেন। তবে সেই আমন্ত্রণ গ্রহণ করা নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি বলেও জানান তিনি।

এর মধ্যেই গত কয়েক দিন ধরে হোয়াইট হাউসের তরফে ভাসিয়ে দেওয়া হচ্ছে, জানুয়ারিতে প্রজাতন্ত্র দিবসের সময় ট্রাম্প ভারতে আসতে পারবেন না। কারণ ওই সময় ‘স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন অ্যাড্রেস’ কর্মসূচি রয়েছে ট্রাম্পের। এই কর্মসূচিতে সারা বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব থেকে শুরু বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত প্রজাতন্ত্র মার্কিন সংসদের যৌথ অধিবেশনে পেশ করেন প্রেসিডেন্ট। তাতে প্রেসিডেন্টকে সশরীরে হাজির থাকতে হয়।

আরও পড়ুন: সিবিআই ‘প্রধান’ অলোক বর্মা-কাণ্ডে জুড়লেন অমিত-পুত্র

যদিও আমন্ত্রণ গ্রহণ বা প্রত্যাখ্যান কোনও সিদ্ধান্তের বিষয়েই সরকারি ভাবে হোয়াইট হাউসের তরফে এখনও কিছু জানানো হয়নি। নয়াদিল্লিতে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকও এ বিষয়ে চুপ। অন্যদিকে দিল্লিতে মার্কিন দূতাবাস জানিয়েছে, সিদ্ধান্ত হবে ওয়াশিংটন থেকেই। তাদের কাছে এ নিয়ে কোনও বার্তা নেই।

প্রেসিডেন্ট থাকা অবস্থায় বারাক ওবামা দু’বার ভারতে এসেছিলেন। তার মধ্যে একবার প্রজাতন্ত্র দিবসে ভারতের আতিথেয়তা গ্রহণ করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে ‘চায়ে পে চর্চা’ও হয়েছিল প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্টের।

আরও পড়ুন: ঋণের ফাঁদে ইসলামাবাদ, বন্ধুত্বের মুখোশে পাকিস্তানে লুঠ চালাচ্ছে চিন?

কিন্তু হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প আসার পর থেকেই নয়াদিল্লি-ওয়াশিংটন কূটনৈতিক সুসম্পর্কের বাতাবরণ পাল্টাতে শুরু করে। এইচ১ বি ভিসা এবং আউটসোর্সিং নিয়ে আমেরিকার কড়া অবস্থান নিয়ে ভারত উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ইরানের কাছ থেকে তেল কেনায় ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা জারি করার পরও তা অগ্রাহ্য করে ভারতের তেল কেনাকে ভারতের ‘ঔদ্ধত্য’ মনে করেছে হোয়াইট হাউস। আবার রাশিয়ার সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তিকেও ভাল চোখে নেয়নি ওয়াশিংটন। কূটনৈতিক এই টানাপড়েনের জেরেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ভারত সফর এড়িয়ে যাচ্ছেন বলে কূটনৈতিক মহলে জোর গুঞ্জন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE