Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

আফগানিস্তানে যুদ্ধের জন্য ভারতীয় উপগ্রহ ব্যবহার করবে মার্কিন বাহিনী

আফগানিস্তানে তালিবানের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে এ বার ভারতের সাহায্যপ্রার্থী আমেরিকা। সামরিক ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে ভারতের কৃত্রিম

সংবাদ সংস্থা
১০ জুলাই ২০১৬ ১৩:১২
আফগান যুদ্ধক্ষেত্রে মার্কিন বাহিনী। —ফাইল চিত্র।

আফগান যুদ্ধক্ষেত্রে মার্কিন বাহিনী। —ফাইল চিত্র।

আফগানিস্তানে তালিবানের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে এ বার ভারতের সাহায্যপ্রার্থী আমেরিকা। সামরিক ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে ভারতের কৃত্রিম উপগ্রহ (স্যাটেলাইট) ব্যবহার করবে পেন্টাগন। মার্কিন কংগ্রেসের ‘সায়েন্স, স্পেস অ্যান্ড টেকনোলজি সাব-কমিটি অন এনভায়রনমেন্ট’ সদস্যদের এ কথা জানিয়েছেন পেন্টাগনের এক শীর্ষ কর্তা।

আধুনিক যুদ্ধবিগ্রহে আবহাওয়ার পূর্বাভাস খুব গুরুত্বপূর্ণ। মার্কিন সেনা আফগানিস্তানে প্রতিটি সামরিক পদক্ষেপ চূড়ান্ত করার আগে আবহাওয়ার পূর্বাভাস জেনে নেয়। আবহাওয়া কেমন থাকবে তা না জেনে এগোলে, খুব নিখুঁত কৌশলও যুদ্ধ ক্ষেত্রে অনেক সময় ভেস্তে যায়। এত দিন আফগানিস্তানে মোতায়েন মার্কিন বাহিনী ইউরোপীয় স্যাটেলাইটগুলি ব্যবহার করত। কিন্তু ইরাকের যুদ্ধক্ষেত্রে বিভিন্ন ইউরোপীয় দেশের সেনা যুদ্ধে অংশ নিয়েছে। সেই বাহিনীর ব্যবহারের সুবিধার্থে ইউরোপীয় স্যাটেলাইট গুলিকে মধ্য এশিয়ার দিকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ফলে আফগানিস্তানে মোতায়েন মার্কিন বাহিনীকে এখন অন্য কোনও স্যাটেলাইটের সাহায়্য নিতে হবে।

আফগানিস্তান এবং আশপাশের এলাকার আবহাওয়ার পূর্বাভাস নিখুঁত ভাবে দিতে পারে, এমন স্যাটেলাইট এই মুহূর্তে শুধু চিন আর ভারতের রয়েছে। মার্কিন বাহিনী প্রথমে চিনের স্যাটেলাইট থেকে তথ্য নেওয়ার কথা ভেবেছিল। কিন্তু চিনা স্যাটেলাইটের সঙ্গে পেন্টাগনের সংযোগ স্থাপিত হলে, চিন মার্কিন সামরিক সদর দফতরের সার্ভার হ্যাক করার সুযোগও পেয়ে যাবে। অনেক গুরুত্বপূর্ণ এবং চূড়ান্ত গোপনীয় তথ্য চিনের নাগালে পৌঁছে যেতে পারে সে ক্ষেত্রে। এই কথা মাথায় রেখেই চিনের স্যাটেলাইট ব্যবহার না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পেন্টাগন। ভারতের স্যাটেলাইট থেকে আমেরিকার অনেকগুলি বিশ্ববিদ্যালয় তথ্য নিয়ে থাকে। নয়াদিল্লির সঙ্গে ওয়াশিংটনের সম্পর্কও এখন নতুন মাত্রায়। তাই আফগানিস্তানের যুদ্ধে ভারতের স্যাটেলাইটের সাহায্য নেওয়াই সবচেয়ে ভাল সিদ্ধান্ত হবে বলে মনে করছে পেন্টাগন।

Advertisement

আরও পড়ুন: জল থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়তে ফের ব্যর্থ উত্তর কোরিয়া

মার্কিন কংগ্রেসের ‘সায়েন্স, স্পেস অ্যান্ড টেকনোলজি সাব-কমিটি অন এনভায়রনমেন্ট’ এ বিষয়ে পেন্টাগনের কাছে বিশদ তথ্য চেয়েছিল। মার্কিন বিমান বাহিনীর ডেপুটি চিফ অব স্টাফ ফর অপারেশনস তথা ডায়রেক্টর অফ ওয়েদার র‌্যালফ স্টফলার মার্কিন কংগ্রেসের ওই কমিটিকে জানিয়েছেন, ‘‘ইরাক এবং সিরিয়ায় আমাদের যে অভিযান চলছে, তাকে সাহায্য করার জন্য ইউরোপের মিটিওস্যাট ৮ সে দিকে সরছে। এতে পূর্ব আফগানিস্তানের কিছুটা অংশে আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য পেতে আমাদের অসুবিধা হবে। আমরা স্থির করেছি, আমরা ভারতের সহযোগিতা নেব এবং ভারতীয় স্যাটেলাইট থেকে তথ্য নিয়ে পূর্ব আফগানিস্তানের ওই সমস্যা মেটাবো।’’

স্টফলার মার্কিন কংগ্রেসের সদস্যদের আরও জানিয়েছেন যে ভারতের স্যাটেলাইট ব্যবহার করার কথা প্রথমে পেন্টাগন ভাবেনি। ওই অঞ্চলে রুশ এবং চিনা স্যাটেলাইটও রয়েছে। কিন্তু আমেরিকার ন্যাশনাল ওশেনিক অ্যান্ড অ্যাটমোস্ফেরিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন চিনা স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে পেন্টাগনকে নিষেধ করেছে।

আরও পড়ুন

Advertisement