রাজনৈতিক দলগুলির অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ আর বিক্ষিপ্ত হিংসাত্মক ঘটনায় উত্তপ্ত্ বাংলাদেশ। বাংলাদেশে নির্বাচনের আর তিন দিন বাকি। প্রচারের শেষপর্যায়ে তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক আবহাওয়া।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে নানা অভিযোগ জানাতে গিয়ে আলোচনার মাঝখানেই বেরিয়ে গিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা কামাল হোসেন। ওই বৈঠকে ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির-সহ আরও কয়েকজন।

অন্য দিকে আওয়ামি লিগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম বলেছেন, ‘‘বাংলাদেশের নির্বাচনের কয়েকদিন আগেও দেশটির এগারোতম সংসদ নির্বাচনকে ভন্ডুল করতে নানা যড়যন্ত্র অব্যাহত ছিল এখনও চলছে।’’ তাঁর অভিযোগের তির বিএনপি জামাত ঐক্যফ্রন্টের দিকেই।

আরও পড়ুন: খনি শ্রমিকরা জলমগ্ন, প্রধানমন্ত্রী ব্যস্ত ছবি তোলায়, মোদীকে তোপ রাহুলের​

মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনের সাথে দেড় ঘণ্টা পর শেষে ঐক্যফ্রন্ট নেতা মির্জা ফখরুল বলেন,,‘‘দুর্ভাগ্যজনক ভাবে সিইসি আমাদের অভিযোগের কোনও গুরুত্ব দেননি; কোনো আশ্বাসও পাইনি।’’ এ জন্যই আলোচনা শেষের আগে বৈঠক থেকে বেরিয়ে আসেন বিএনপি মহাসচিব ফখরুল। তাঁর আরও অভিযোগ, ভোটের তিন দিন আগেও নির্বাচন কমিশন ও সরকার নির্বাচন-অনুকূল ন্যূনতম পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারেনি।

আরও পড়ুন: আইএস মাথাচাড়া দিচ্ছে ভারতে! দিল্লি- উত্তরপ্রদেশে ব্যাপক তল্লশি এনআইএ-র​

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ জানান,‘‘ভোটের মাঠে ভয়াবহ তাণ্ডব চলছে। নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার, আটক, নির্যাতন অব্যাহত রয়েছে। সরকার ও ইসি যৌথভাবে এ নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে।’’  

অন্য দিকে আওয়ামি লিগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম সাংবাদিকদের মঙ্গলবার বিকেলে বলেন, ‘‘নির্বাচনী প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত বিএনপি-জামাত ঐক্যফ্রন্টের হামলাতে আওয়ামি লিগের পাঁচ জন নেতাকর্মী নিহত হয়েছেন এবং ৩৫০ জনেরও বেশী সমর্থক গুরুতর জখম হয়েছেন।’’  বিএনপি-জামাত কর্মী সমর্থকদের হাতে মহাজোটের প্রার্থীদের আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ তারা পাচ্ছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে ভয়-ভীতি সৃষ্টি করার অভিযোগও জানান তিনি। তাঁর আশঙ্কা, বিএনপি-জামাত জোট নির্বাচনের আগে দেশে বড় ধরনের নাশকতামূলক হামলার পরিকল্পনা করেছে।

ঢাকায় যখন এই বাকযুদ্ধ, সেই সময়েই চট্টগ্রামের চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে নৌকার প্রার্থীর ভোটের প্রচার লক্ষ্য করে ছোড়া পেট্রোল বোমায় তিনজন দগ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার  দুপুরে সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম-৪ আসনে আওয়ামি লিগের প্রার্থী দিদারুল আলমের প্রচারের সময়ে বোমা হামলাতে আহত পাঁচজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।

একই দিনে নির্বাচন টাকা দিয়ে প্রভাবিত করার চেষ্টার অভিযোগে ঢাকার মতিঝিল থেকে তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব। আটক আলি হায়দার আমদানি-রপ্তানি ও কোম্পানি ইউনাইটেড করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। ঢাকার মতিঝিল সিটি সেন্টারের ২৭ তলা অফিস থেকে আলি হায়দারকে আটক করে র‌্যাব। আটক অন্য দু’জন হলেন আলমগির হোসেন ও জয়নাল আবেদিন। আটক আলি হায়দারের কাছে নগদ প্রায় আট কোটি টাকা ও ১০ কোটি টাকার চেক পাওয়া গেছে। র‌্যাব জানিয়েছে, এই টাকার সঙ্গে তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত এক বিএনপি নেতার লিফলেট পাওয়া গিয়েছে। এ ছাড়া  ঢাকার একটি নির্বাচনী আসনের সব ভোটারের নাম সম্বলিত একটি তালিকাও আলি হায়দারের অফিসে পাওয়া গেছে বলেও র‌্যাব জানিয়েছে।

            

 

 

               

 

আন্তর্জাতিক স্তরের বাছাই করা ঘটনাগুলো নিয়ে বাংলায় খবর জানতে পড়ুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগ।