সংসদে বাজেট পেশের সময় আগামী পাঁচ বছরে দেশের অর্থনীতিকে ৫ লক্ষ কোটি টাকায় পৌঁছে দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের লক্ষ্য, ধুঁকতে থাকা অর্থনীতিতে নতুন প্রাণের সঞ্চার। অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে উৎপাদন ক্ষেত্রে গতি আনার কথা ভাবছে কেন্দ্র। আর এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে ব্যাঙ্কগুলিই। কেন্দ্র চাইছে, উৎপাদন ক্ষেত্রে ঋণ দেওয়ার পরিমাণ বাড়াক ব্যাঙ্কগুলি। সেই লক্ষ্যপূরণে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির শাখা স্তর থেকে নতুন পরামর্শ ও নতুন ভাবনা উঠে আসুক—এমনটাই চাইছিল কেন্দ্রীয় সরকার। সেই পথে হেঁটেই রবিবার চিন্তন কর্মশালা শেষ করল ইলাহাবাদ ব্যাঙ্কের চুঁচুড়া জোনাল অফিস।

ব্যাঙ্কের তরফে একটি প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, জাতীয় অগ্রাধিকারের সঙ্গে নিজেদের ব্যবসার সমন্বয় সাধনের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলি সর্বদাই স্বতস্ফূর্ত ভাবে এগিয়ে এসেছে। এমন ক্ষেত্রে দেশের এগিয়ে থাকা ব্যাঙ্কগুলির মধ্যে অন্যতম ইলাহাবাদ ব্যাঙ্কও সব সময় সামনের সারিতে থেকেছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ইলাহাবাদ ব্যাঙ্ক সফল ভাবেই শনি ও রবিবার দু’দিনের এই চিন্তন কর্মশালা করতে পেরেছে। এই শাখাভিত্তিক আলোচনা সভায় তৃণমূল স্তরের ব্র্যাঞ্চ ম্যানেজারদের থেকে অভূতপূর্ব সাড়া মিলেছে যাতে লক্ষ্যপূরণে নতুন রোডম্যাপ তৈরি করা যায়। গত পাঁচ বছরে ব্যাঙ্কের ব্যবসা, বিভিন্ন স্থানীয় ইস্যু, আর্থিক বৃদ্ধির সম্ভাবনার কথাও উঠে এসেছে। চুঁচুড়ার ওই চিন্তন শিবিরে উপস্থিত ছিলেন এলাহাবাদ ব্যাঙ্কের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (এইচ আর ও চিফ লার্নিং অফিসার) অনুজা বন্দ্যোপাধ্যায় ও জোনাল হেড বৈধর প্রধান।

আরও পড়ুন: কাজ হচ্ছে না কেন? হাওড়ার বস্তি নিয়ে প্রকাশ্যেই ববি-অরূপকে তিরস্কার মমতার​

আরও পড়ুন: রাগ করে বেরিয়ে গিয়েছিলেন আরসালান, বাবার ধমক খেয়ে ফেরার পথেই দুর্ঘটনা!​