আশঙ্কা ছিল, বন্ধ থাকা জেট এয়ারওয়েজ কিনতে শেষ পর্যন্ত আদৌ কেউ এগিয়ে আসবে কি না। বিমান সংস্থা ও তার কর্মীদের কিছুটা স্বস্তি দিয়ে শুক্রবার নিলামের শেষ দিনে দরপত্র জমা দিল বেশ কয়েকটি সংস্থা। যার মধ্যে রয়েছে জেটের অন্যতম অংশীদার এতিহাদ এয়ারওয়েজও। তবে বাদবাকি সংস্থার নাম জানা যায়নি।

শুক্রবার জেটের জন্য দরপত্র জমা পড়েছে বলে জানিয়েছিলেন স্টেট ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান রজনীশ কুমার। বলেছিলেন, দু’টি সংস্থা তা জমা দিয়েছে। আরও একটি সংস্থার আগ্রহ দেখানোর কথা। শেষ পর্যন্ত এতিহাদই খোলাখুলি দরপত্র জমা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। তবে অন্য সংস্থার সঙ্গে জোট বেঁধে লগ্নিতেই তারা আগ্রহী বলে স্পষ্ট করেছে।

গত ১৭ এপ্রিল থেকে পরিষেবা বন্ধ করেছে জেট। সমস্যার পড়েছেন সংস্থার প্রায় ২২,০০০ কর্মী। এর মধ্যে পরিষেবা ফের চালু করতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন সংস্থার পাইলটেরা। তাঁদের অভিযোগ, সংস্থার ঋণদাতারা অন্তর্বর্তী পুঁজি জোগানোর কথা বললেও, তা এখনও মেলেনি। তাঁদের আর্জি, সংস্থার ঋণদাতা স্টেট ব্যাঙ্ককে অন্তর্বর্তীকালীন পুঁজি জোগাতে নির্দেশ দিক শীর্ষ আদালত। উল্লেখ্য, স্টেট ব্যাঙ্ক-সহ ২৬ ঋণদাতার হাতেই রয়েছে সংস্থার রাশ।

এর আগে জেটের আর্থিক সমস্যা তুঙ্গে ওঠায় সংস্থার রাশ হাতে নেয় ঋণদাতারা। এপ্রিলে জেটে লগ্নির জন্য প্রথম আগ্রহপত্র জমা দিতে বলেছিল তারা। প্রাথমিক ভাবে চার সংস্থা আগ্রহ দেখায়। যাদের মধ্যে ছিল এতিহাদও।