• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শিল্পের ক্ষত গভীর মুডি’জ়ের পূর্বাভাসে

GDP

লকডাউন শিথিল হলেও চাহিদা যে ঘুরে দাঁড়ায়নি, তা ফের দেখাল জুলাইয়ের শিল্পোৎপাদন। শুক্রবার সরকারি পরিসংখ্যান বলছে, শিল্পে সঙ্কোচন চলছেই। উৎপাদন কমেছে আগের বছরের এই সময়ের তুলনায় ১০.৪%। যার কারণ মূলত খনন (-১৩%), কল-কারখানা (-১১.১%) ও বিদ্যুতের (-২.৫%) সঙ্কুচিত উৎপাদন। টিভি, ফ্রিজের মতো দীর্ঘমেয়াদি ভোগ্যপণ্যের উৎপাদনও কমেছে ২৩.৬%।

সরকারের অবশ্য যুক্তি, করোনার আগের হারের সঙ্গে এর তুলনা না-টানাই ভাল। বরং পরিস্থিতি এপ্রিল, মে ও জুনের চেয়ে কিছুটা শুধরেছে।

সংশ্লিষ্ট মহল বলছে, এই সঙ্কোচন অপ্রত্যাশিত নয়। তবে এ দিন সেই ক্ষত গভীর করেছে মূল্যায়ন বহুজাতিক মুডি’জ়ের হুঁশিয়ারি। তারা চলতি অর্থবর্ষে জিডিপি সঙ্কোচনের পূর্বাভাস বাড়িয়ে ১১.৫% করেছে। বলেছে, লকডাউনের ধাক্কা ও বাড়তে থাকা সংক্রমণের জের যে অর্থনীতিকে আশঙ্কার থেকেও বেশি কাহিল করবে, এটা তার স্পষ্ট ইঙ্গিত। মূল্যায়ন সংস্থা কেয়ার রেটিংস সঙ্কোচনের পূর্বাভাস বাড়িয়ে ৮%-৮.২% করে দায় ঠেলেছে কেন্দ্রের ঘাড়ে। তাদের দাবি, সরকার অর্থনীতিক চাঙ্গা করতে দাওয়াই দেবে না ধরেই এই হিসেব।

আশঙ্কার ছবি

• জুলাইয়ে শিল্পোৎপাদন সরাসরি কমল ১০.৪%।

• এর আগে জুনে তা কমেছিল ১৫.৭৭% (সংশোধিত)।

• কেন্দ্রের দাবি, এই হার করোনার আগের হারের সঙ্গে তুলনা না-করলেই ভাল।

• তবে পরিস্থিতি এপ্রিল, মে ও জুনের চেয়ে জুলাইয়ে কিছুটা শুধরেছে বলেই দাবি তাদের।

• ফিচ, ইন্ডিয়া রেটিংসের পরে ভারতের জিডিপি সঙ্কোচনের পূর্বাভাস বাড়াল মুডি’জ়ও। সংস্থাটি জানিয়েছে চলতি অর্থবর্ষে তা কমবে ১১.৫%।

• সেই সঙ্গে এই অর্থবর্ষে ভারতের জিডিপির সাপেক্ষে ঋণ ৯০ শতাংশে ও রাজকোষ ঘাটতি ৭.৫% হওয়ার আশঙ্কাও জানিয়েছে মুডি’জ়।

অনেকের মতে, শিল্পের ভয় আরও বাড়াচ্ছে এই সব পূর্বাভাস। কারণ, সরকার অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষণ দেখলেও, এরা অনিশ্চয়তা কমার কথা বলছে না। তার উপরে বেকারত্ব বাড়ছে ও রোজগার কমছে। চাহিদা না-বাড়লে উৎপাদন বাড়বে কী করে?  বাড়লেই বা কিনবে কে!

গত এপ্রিল-জুনে জিডিপি বৃদ্ধির হার শূন্যের ২৩.৯% নীচে নামতেই, পুরো অর্থবর্ষে তা সঙ্কোচনের আরও ভয়াবহ পূর্বাভাস দেওয়া শুরু হয়েছে। ফিচ, গোল্ডম্যান স্যাক্স, ক্রিসিল, ইক্রার মতো মূল্যায়ন ও উপদেষ্টা সংস্থাগুলির কে নেই তালিকায়। এ দিন মুডি’জ়ের হুঁশিয়ারি যে ভাবে কেন্দ্রের আয় কমছে ও খরচ বাড়ছে, তাতে এ বছর ভারতের ঋণ ছুঁতে পারে জিডিপির প্রায় ৯০%, রাজকোষ ঘাটতি হতে পারে ৭.৫%।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন