এগারো দফার বৈঠকে মেলেনি সমাধান সূত্র। চিন থেকে আমদানি করা যে সমস্ত পণ্যে এখনও শুল্ক বসানো হয়নি, সেগুলির উপরেও ২৫% শুল্ক বসানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে আমেরিকা। সে ক্ষেত্রে প্রায় ৩০,০০০ কোটি ডলারের পণ্যে নতুন করে শুল্ক চাপাবে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। এ ব্যাপারে শিল্প ও বিভিন্ন ব্যক্তি-সহ নানা পক্ষের মতামত নিচ্ছে ওয়াশিংটন। কিন্তু এদেরই একাংশের মত, চিনের পণ্যে শুল্ক চাপালে দেশীয় শিল্পেরই ক্ষতি। কারণ, সে ক্ষেত্রে চাপ পড়বে কাঁচামালের দামে। কমবে পণ্যের চাহিদা। মার খাবে ব্যবসা। কর্মসংস্থানও। সোমবার থেকে টানা এক সপ্তাহ প্রশাসনের সঙ্গে সশরীরে দেখা করে কথা বলবে বিভিন্ন পক্ষ। বাণিজ্য দফতরে চিঠিও পাঠিয়েছে অনেকে। আর্জি জানিয়েছে শুল্কের বিষয়ে পুনর্বিবেচনা করতে। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই ২৫,০০০ কোটি ডলারের চিনা পণ্যের উপরে ২৫% শুল্ক চাপিয়েছে মার্কিন প্রশাসন।

এ দিকে, মার্কিন হুমকির জেরে যে তাদের বিক্রি বড় ধাক্কা খেয়েছে তা প্রথম বার স্বীকার করল চিনা টেলিকম সংস্থা হুয়েই। সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও রেন ঝেংফেই জানিয়েছেন, উৎপাদন ছাঁটাই করা হতে পারে।