• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আটকে পড়ায় বাড়তি টাকা! বিতর্কে আইআইএম 

lockdown
—ফাইল চিত্র।

লকডাউনে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট-কলকাতার (আইআইএমসি) ক্যাম্পাসে আটকে পড়া চার পড়ুয়ার কাছ থেকে কর্তৃপক্ষের চড়া হারে থাকার খরচ চাওয়ার অভিযোগ ঘিরে বিতর্ক বেঁধেছে। পড়ুয়া, প্রাক্তনী ও শিক্ষকদের একাংশের অভিযোগ, এক বছরের এমবিএ পাঠ্যক্রমের (এমবিএএক্স) ওই পড়ুয়াদের ৫ এপ্রিলের পর থেকে দৈনিক ৫০০ টাকা করে দিতে বলা হয়েছে। তাঁদের প্রশ্ন, লকডাউনে ক্যাম্পাসে থেকে যেতে বাধ্য হওয়া পড়ুয়ার কাছে কী ভাবে প্রায় বাজারদরে থাকার খরচ চাইলেন কর্তৃপক্ষ? 

আইআইএমসি-র ডিরেক্টর অঞ্জু শেঠ অবশ্য এক বিবৃতিতে দাবি করেছেন, ওই পড়ুয়াদের টাকা দিতে হবে না। ক্যাম্পাস ছাড়তেও বাধা দেওয়া হচ্ছে না। তাঁরা যাতে কোনও সমস্যায় না-পড়েন, ব্যক্তিগত ভাবে তা খেয়াল রাখার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। তবে কর্তৃপক্ষ যে কখনওই ওই পড়ুয়াদের কাছে ওই ভাড়া চাননি, বিবৃতিতে এমন কথাও বলা হয়নি। 

সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, ৫ এপ্রিলের সমাবর্তন পিছিয়ে দিলেও, পড়ুয়াদের হস্টেল খালি করতে বলা হয়নি। চাকরি সংক্রান্ত ইন্টারভিউ না-হওয়ায় এবং লকডাউনে ওই চার জন-সহ অন্যান্য পাঠ্যক্রমেরও আরও কিছু ছাত্র ক্যাম্পাসে আটকে পড়েন। ২৩ মে হঠাৎ ওই চার জনকে জানানো হয়, ডিরেক্টরের নির্দেশ মতো ৫ এপ্রিলের পর থেকে তাঁদের সেখানে থাকতে হলে দৈনিক ৫০০ টাকা দিতে হবে। শুধু মার্চের মাঝামাঝি থেকে ওই চার্জ মকুব করছেন কর্তৃপক্ষ। বিস্মিত শিক্ষক, পড়ুয়া ও প্রাক্তনীদের প্রশ্ন, মার্চের মাঝামাঝি থেকে ৫ এপ্রিল, অর্থাৎ সমাবর্তন পর্যন্ত সমস্ত খরচ তো পাঠ্যক্রমের খরচেই ধরা থাকে। তা হলে তা মকুবের কথা আসে কী করে? অভিযোগ, পড়ুয়াদের ওই ভাড়ার টাকা পরে মেটানোর মৌখিক আশ্বাসও দিতে হয়েছে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন