আগামী পাঁচ বছরে অর্থনীতিকে ৫ লক্ষ কোটি ডলারে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন ফেরি করছেন নরেন্দ্র মোদী। সেই স্বপ্নের বেলুন চুপসে দিতে এ বার মাঠে নামলেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। প্রশ্ন তুললেন, মোদীর ওই লক্ষ্য পূরণ হলেও, তাতে আদৌ বড়াই করার মতো কিছু থাকবে কি? 

চিদম্বরমের দাবি, ‘‘বাজারদর না ধরলে, সংখ্যার হিসেবে জিডিপি বছরে ১২% হারে বাড়ছে। ফলে তা চক্রবৃদ্ধি হারের নিয়মে ছ’বছরে এমনিতেই দ্বিগুণ হবে। এর জন্য অর্থমন্ত্রীর দরকার নেই। যে কোনও সুদের কারবার করা মহাজন তা জানে।’’ ২০২৪-এর লোকসভা ভোটে ৫ লক্ষ কোটি ডলারের অর্থনীতিকে হাতিয়ার করার যে লক্ষ্য নিয়েছে বিজেপি, তাকে বিঁধে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর যুক্তি, ‘‘জিডিপি ২০১৭ সালেই ২.৪৮ লক্ষ কোটি ডলারে পৌঁছেছে। ফলে ২০২৩-২৪ সালে এমনিতেই তা ৫ লক্ষ কোটি ডলার ছোঁবে। সহজ পাটিগণিত। এতে বিরাট কিছু নেই।’’

তার পরেই মোদীকে খোঁচা, ‘‘এ ভাবে আকাশে গাজর ঝোলাবেন না। আরও বড় লক্ষ্য স্থির করুন।’’

আজ রাজ্যসভার বাজেট বিতর্কে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনকেও কটাক্ষ করেন চিদম্বরম। বলেন, মোদী সরকার বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় এলেও, বাজেটে ‘সাহসী কাঠামোগত সংস্কার’-এর দেখা মেলেনি। উল্টে পেশ হয়েছে ‘স্থিতাবস্থা বজায় রাখার বাজেট’। ফলে আরও এক বছর বৃদ্ধি ৬.৫ থেকে ৬.৮ শতাংশের মধ্যে থাকবে। অভিযোগ তুলেছেন, দেশে কেনাকাটায় ভাটার টান। অথচ সমস্যা সমাধানে সঞ্চয় বাড়ানোর দাওয়াই বাজেটে নেই।

লোকসভায় নির্মলার মন্তব্য ছিল, তাঁর নিজেকে ছাত্রছাত্রীদের সামনে শিক্ষিকা মনে হয়। চিদম্বরমের কটাক্ষ, ‘‘সঞ্চয় না বাড়লে ও লগ্নি না হলে কী ভাবে ৮% বৃদ্ধি হবে, তা বুঝতে আমি ছাত্র হতে রাজি। অর্থমন্ত্রী শিক্ষিকা হয়ে বুঝিয়ে দিন।’’