রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ারের ভাগ সম্পর্কে সুপারিশ তৈরির জন্য গড়া বিমল জালান কমিটি তাদের রিপোর্ট চূড়ান্ত করেছে। সূত্রের খবর, বাড়তি ভাড়ারের একাংশ তিন থেকে পাঁচ বছরের মধ্যে ভাগে ভাগে কেন্দ্রকে হস্তান্তরের কথা বলা হয়েছে সেখানে। সে ক্ষেত্রে রিপোর্ট কেন্দ্রকে স্বস্তিই দেবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের। ভাগের হিসেব সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানা না গেলেও শীঘ্রই রিপোর্টটি শীর্ষ ব্যাঙ্কের কাছে জমা পড়বে।

কেন্দ্রের বক্তব্য, এখন মোট সম্পদের মধ্যে প্রায় ২৮% জরুরি প্রয়োজনের জন্য সরিয়ে রাখে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। কিন্তু উন্নত দেশগুলির ক্ষেত্রে তা ১২ শতাংশের বেশি নয়। তাই ভাঁড়ারের অতিরিক্ত অংশ শীর্ষ ব্যাঙ্ক কেন্দ্রকে দিতেই পারে।

বিশেষজ্ঞদের একাংশের বক্তব্য, পরোক্ষ কর সংগ্রহ আশানুরূপ না হওয়ায় গত কয়েক বছরে কোনওক্রমে রাজকোষ ঘাটতির লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করেছে কেন্দ্র। এর উপরে এখন অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার জন্য শিল্প মহলের তরফে দাবি উঠছে বিপুল অঙ্কের ত্রাণ প্রকল্পের। রাজকোষ ঘাটতির লক্ষ্যমাত্রা না পেরিয়ে তা দিতে গেলে মোটা টাকা চাই কেন্দ্রের। তাই সে দিক থেকে জালান কমিটির রিপোর্ট হয়তো কেন্দ্রের পক্ষে স্বস্তির।