Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Future

রিলায়্যান্স চুক্তি ঘিরে বহাল ফিউচার, অ্যামাজ়নের পত্রযুদ্ধ

খুচরো বাজারে জমি দখলের লক্ষ্যে পত্রযুদ্ধের বিরাম নেই নতুন বছরের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়েও।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ৩০ ডিসেম্বর ২০২০ ০৩:৫৫
Share: Save:

খুচরো বাজারে জমি দখলের লক্ষ্যে পত্রযুদ্ধের বিরাম নেই নতুন বছরের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়েও।

Advertisement

এই পত্রযুদ্ধের কেন্দ্রে ভারতে রিটেল বা খুচরো ব্যবসার ছবি বদলের অন্যতম কারিগর হিসেবে পরিচিত কিশোর বিয়ানির ফিউচার গোষ্ঠীর খুচরো, পাইকারি, গুদাম ও পণ্য পরিবহণ ব্যবসা। মাস কয়েক আগে যা কেনার প্রস্তাব দেয় রিলায়্যান্স রিটেল ভেঞ্চার্স (আরআরভিএল)। তাতেই আপত্তি তুলে সংঘাতে জড়িয়েছে ফিউচারে লগ্নি করা আমেরিকার ই-কমার্স সংস্থা অ্যামাজ়ন। এ নিয়ে মামলার ফাঁকেই ভারতে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চিঠি, পাল্টা চিঠির যুদ্ধে অবতীর্ণ ফিউচার ও অ্যামাজ়ন। এ বার ওই চুক্তি খতিয়ে দেখে ‘নো অবজেকশন সার্টিফিকেট’ (এনওসি) দেওয়ার জন্য সেবিকে চিঠি দিয়েছে ফিউচার। আবার ওই চুক্তিকে ‘বিতর্কিত লেনদেন’ বলে দাবি করে তা খতিয়ে দেখার প্রক্রিয়া খারিজ করতে সেবিকে চিঠি দিয়েছে অ্যামাজ়নও।

ভারতের খুচরো বাজার দেশি-বিদেশি সংস্থার কাছে বিপুল সম্ভাবনাময়। বিশেষজ্ঞদের মতে, লড়াই সব থেকে বেশি মুদিদ্রব্যের বাজার দখল নিয়ে। চার বছরে যে বাজার ৪৬% বাড়বে বলে পূর্বাভাস বিশেষজ্ঞদের। বহর দাঁড়াবে বার্ষিক প্রায় ১ লক্ষ ৩০ হাজার কোটি ডলার। যার মধ্যে মুদিদ্রব্যের বাজারই হবে প্রায় ৭৪ হাজার কোটি ডলারের। আর ফিউচারের বিপণন কেন্দ্রের মধ্যেও মুদিদ্রব্যের কেন্দ্রই সিংহভাগ। যে বিপণির নিরিখে দৌড়ে পিছিয়ে রিলায়্যান্স ও অ্যামাজ়ন, দু’পক্ষই।

খুচরো
বাজারে ঝড়

Advertisement

• ফিউচার গোষ্ঠীর খুচরো, পাইকারি, গুদাম ও পণ্য পরিবহণ ব্যবসা কেনার প্রস্তাব দেয় রিলায়্যান্স রিটেল ভেঞ্চার্স।

• প্রস্তাবে আপত্তি তুলে চুক্তিভঙ্গের অভিযোগে ফিউচারের বিরুদ্ধে সিঙ্গাপুরের আদালতে যায় অ্যামাজ়ন। ফিউচারে লগ্নি
আছে যে সংস্থার।

• চুক্তিভঙ্গের অভিযোগ অস্বীকার ফিউচারের।

• চূড়ান্ত রায় না-দেওয়া পর্যন্ত ফিউচারের ব্যবসা বিক্রিতে স্থগিতাদেশ সিঙ্গাপুরের আদালতের।

• সেবি, শেয়ার বাজার-সহ বিভিন্ন কর্তৃপক্ষকে চিঠি, পাল্টা চিঠি দুই সংস্থার।

• অ্যামাজ়নের দেওয়া চিঠি খারিজের জন্য ফিউচারের আর্জি বাতিল দিল্লি হাইকোর্টেও। ফিউচার-রিলায়্যান্সের চুক্তি খারিজের জন্য অ্যামাজ়নের আবেদনও বাতিল করেছে আদালত।

• একই সঙ্গে দিল্লি হাইকোর্ট বলেছে, চুক্তি দেখিয়ে যে ভাবে অ্যামাজ়ন ফিউচার রিটেলকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে, তা ভারতের বিদেশি মুদ্রা পরিচালন আইন ও প্রত্যক্ষ বিদেশি লগ্নি আইনের বিরোধী।

• ফিউচার-রিলায়্যান্সের অধিগ্রহণ প্রস্তাবে অবশ্য সায় দিয়েছে ভারতীয় প্রতিযোগিতা কমিশন।

• তবে ফিউচার-অ্যামাজ়নের পত্রযুদ্ধ এখনও চলছে।

এ নিয়ে একপ্রস্থ আইন আদালত ও পত্রযুদ্ধের পালা ইতিমধ্যেই সাঙ্গ হয়েছে। দিল্লি হাইকোর্ট অন্যান্য নির্দেশের মধ্যে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কর্তৃপক্ষকে আইন ও নিয়ম মেনে সিদ্ধান্ত নিতে বলেছে। সেই নির্দেশ উল্লেখ করে, ২৩ ডিসেম্বর সেবিকে দেওয়া চিঠিতে ফিউচার ওই ব্যবসা বিক্রির জন্য দ্রুত এনওসি দিতে আর্জি জানিয়েছে। দেরি হলে তা শুধু সংস্থাই নয়, তাদের লগ্নিকারী ও অন্যদেরও বিপুল ক্ষতি হবে, দাবি ফিউচারের।

অ্যামাজ়নের পাল্টা দাবি, তাদের বিরুদ্ধে ফিউচারের স্থগিতাদেশের আর্জি খারিজ করছে দিল্লি হাইকোর্ট। জানিয়েছে, সিঙ্গাপুরের আদালতের নির্দেশ ভারতীয় আইনেও প্রযোজ্য। এর প্রেক্ষিতে চুক্তিতে সায় না-দিতে সেবির কাছে আর্জি জানিয়েছে তারা। এ নিয়ে সেবি-কে পঞ্চমবার চিঠি দিল অ্যামাজ়ন। পত্রযুদ্ধ নিয়ে অবশ্য সংস্থাগুলির থেকে প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.