×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ডিজিটাল পেমেন্টকে পাখির চোখ করেই মুকেশের হাত ধরলেন জাকারবার্গ

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ২২ এপ্রিল ২০২০ ১৩:৫৫
মুকেশ অম্বানীর রিলায়্যান্স জিয়োতে বিনিয়োগ ফেসবুকের।

মুকেশ অম্বানীর রিলায়্যান্স জিয়োতে বিনিয়োগ ফেসবুকের।

রিলায়্যান্স জিয়োর হাত ধরে ডিজিটাল যুগে পদার্পণ করেছে ভারত। এই ডিজিটাল মাধ্যমকে কাজে লাগিয়েই ভারতবাসীর জন্য আরও ব্যবসা-বাণিজ্যের সুযোগ করে দিতে চান তাঁরা। সেই লক্ষ্য নিয়েই ভারতে রিলায়্যান্স জিয়োর সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছেন। রিলায়্যান্স জিয়োর প্রায় দশ শতাংশ শেয়ার কিনে ভারতবাসীর উদ্দেশে এমনই বার্তা দিলেন ফেসবুক কর্ণধার মার্ক জাকারবার্গ

নিজেদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট সার্ভিসকে ব্যবহার করে ভারতে ডিজিটাল পেমেন্ট সার্ভিসকে চালু ও জনপ্রিয় করতে চাইছে ফেসবুক। সেই লক্ষ্য নিয়েই ফেসবুক মুকেশ অম্বানীর সংস্থায় এই বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ করেছেন বলে মত অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

মুকেশ অম্বানীর রিলায়্যান্স জিয়ো সংস্থায় ৪৩ হাজার ৫৭৪ কোট টাকা বিনিয়োগ করেছে জাকারবার্গের ফেসবুক। বুধবার তা নিয়ে ফেসবুকে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেন জাকারবার্গ। তাতে তিনি বলেন, ‘‘জিয়োর সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভারতে বিনিয়োগ করছি আমরা। বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে একসঙ্গে কাজ করতে চলেছি আমরা, যাতে ভারতবাসীর সামনে আরও ব্যবসা-বাণিজ্যের সুযোগ তৈরি হয়।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: মুকেশ অম্বানীর জিয়োর ১০ শতাংশ শেয়ার কিনল ফেসবুক​

জাকারবার্গ আরও বলেন, ‘‘ভারতের একটা বড় অংশ ফেসবুক এবং হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে যুক্ত। তাঁদের মধ্যে প্রতিভাবান উদ্যোগপতিও রয়েছেন। এই মুহূর্তে ভারত ডিজিটাল পরিবর্তনের মাঝপথে পৌঁছে গিয়েছে। তাতে জিয়োর মতো সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। অনলাইনের মাধ্যমে কোটি কোটি ভারতবাসীকে ক্ষুদ্র ব্যবসার সঙ্গে জুড়ে দিতে বড় ভূমিকা নিয়েছে তারা। আর এই ক্ষুদ্র ব্যবসাই যে কোনও দেশের অর্থনীতির মূল ভিত্তি। তাই এ ব্যাপারে ওদের আমাদের সাহায্য প্রয়োজন।’’

শরিক হিসাবে ভারতে ফেসবুককে স্বাগত জানিয়েছেন মুকেশ অম্বানীও। সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে তিনি বলেন, ‘‘রিলায়্যান্স এবং জিয়োর সকলে ফেসবুক -কে স্বাগত জানাতে পেরে খুশি আমরা। মার্ক জাকারবার্গ এবং আমি ভারতের ডিজিটাল রূপান্তকরণে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’’

আরও পড়ুন: সংঘাতের অবসান, রাজ্যে করোনা-পরিস্থিতি দেখতে পথে নামছে কেন্দ্রীয় দল​

হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে জিয়ো মার্টের এই সংযুক্তির ফলে দেশের ৩ কোটি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী উপকৃত হবেন বলে দাবি মুকেশ অম্বানীরও। তাঁর কথায়, ‘‘এর ফলে অনলাইনে পাডা়র দোকান থেকেই প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের অর্ডার দেওয়া যাবে। দিনের দিন তা পৌঁছেও যাবে বাড়িতে।’’ এর ফলে ওই সমস্ত দোকানের ব্যবসাও বৃদ্ধি পাবে বলে আশাবাদী তিনি।

Advertisement