দিনে মাত্র ২ টাকা। শ্রমিক-কর্মীদের ন্যূনতম দৈনিক বেতনের ভিত এটুকুই বাড়াতে চলেছে মোদী সরকার! ২০১৭ সালের ১৭৬ টাকা থেকে এখন তা বেড়ে হবে ১৭৮ টাকা। যার উপরে ভিত্তি করে ন্যূনতম বেতনের অঙ্ক ঠিক হবে সমস্ত রাজ্যে।

মঙ্গলবার শ্রম আইন সংস্কারের পথে হেঁটে লোকসভায় বেতন বিধি ও কর্মীদের নিরাপত্তা বিধি সংক্রান্ত দু’টি বিল পেশ করেছে কেন্দ্র। যাবতীয় শ্রম আইনকে চারটি বিধিতে ধরতে চাইছে তারা। এর মধ্যে বেতন বিধি বিল পাশ হলে, ন্যূনতম বেতনের ভিত ১৭৮ টাকায় বেঁধে দেবে শ্রম মন্ত্রক।

ওই অঙ্ক এত কম কেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কর্মী সংগঠনগুলি। সিটু-র সাধারণ সম্পাদক তপন সেনের কটাক্ষ, ‘‘আসলে কর্পোরেট বসদের প্রতিদান দিচ্ছে বিজেপি।’’

দিনে ১৭৮ টাকা বেতন মানে মাসে ৪,৬২৮ টাকা। অনেক রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে এখনই এর থেকে বেশি বেতন মেলে। সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী, দিনে ২,৭০০ ক্যালোরি শক্তিসম্পন্ন খাবারের কথা মাথায় রেখে ন্যূনতম বেতন ঠিক করা উচিত। তা মেনে সপ্তম বেতন কমিশন ২০১৬ সালে হিসেব কষে দেখে যে, ন্যূনতম বেতন মাসে ১৮,০০০ টাকা হওয়া জরুরি। শ্রম মন্ত্রকের বিশেষজ্ঞ কমিটি ২,৪০০ ক্যালোরি ধরে ২০১২ সালের বাজার দরের ভিত্তিতেই দৈনিক বেতন ৩৭৫-৪৪৭ টাকা করার সুপারিশ করে। এখন তার থেকে অনেক নীচে ন্যূনতম বেতনের ভিত বাঁধছে শ্রম মন্ত্রক।

কর্মীদের নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য ও কাজের পরিবেশ বিধিতে ১৩টি আইন একত্রিত করা হচ্ছে। ১০ জন বা তার বেশি কর্মীর সংস্থায় এই বিধি কার্যকর হবে। আজ শ্রমমন্ত্রী সন্তোষ গঙ্গোয়ার দু’টি বিল লোকসভায় পেশের পরে তা সংসদীয় কমিটিতে পাঠানোর দাবি তোলেন বিরোধীরা। কংগ্রেসের অধীর চৌধুরী, তৃণমূলের সৌগত রায়দের দাবি, এর সঙ্গে বহু মানুষের স্বার্থ জড়িত। গঙ্গোয়ারের যুক্তি, ১৩টি কর্মী সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা করেই বিলের খসড়া তৈরি হয়েছে।